Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ অক্টোবর, ২০১৯ ২৩:৩৩

অষ্টম কলাম

এক মাসের শিশুকে রেখে চলে গেলেন মা

পঞ্চগড় প্রতিনিধি

এক মাসের শিশুকে রেখে চলে গেলেন মা

কান্নার শব্দ শুনে দরজা খুলতেই বাড়ির মালিক তানিয়া মদক দেখতে পান মাটিতে পড়ে থাকা একটি শিশু চিৎকার করছে। তখন বাজে রাত আটটা। অচেনা অজানা শিশুটিকে দেখে চিৎকার দিয়ে ওঠেন তানিয়া মদক। এ সময় আশপাশের আরও কয়েকজন মহিলা ছুটে আসেন। তারা ফুটফুটে শিশুটিকে কোলে তুলে নেন। মুহূর্তেই লোকজন ছুটে আসেন। পরে তানিয়া মদকের স্বামী অশোক চন্দ্র মদক পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। গত বৃহস্পতিবার রাতে শিশুটির মা শিশুটিকে ওই বাড়ির মূল ফটকের সামনে মাটিতে ফেলে রেখে চলে যান বলে অনুমান করছেন স্থানীয়রা। শিশুটির বয়স ১ মাস। পুলিশ জানায়, এই শিশুটির মা রিমু আক্তার নামে এক নারী। তার স্বামীর বাড়ি দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর এলাকায়। ওই নারীর বাবার বাড়ি পঞ্চগড় সদর উপজেলার ভিতরগড় এবং নানার বাড়ি পঞ্চগড় জেলা শহরের কামাত পাড়া এলাকায়। তিনি এই এলাকাতেই বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকলেও হঠাৎ অন্যকোথাও চলে যান। এক দেড় বছর পর তার শিশু সন্তানকে নিয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তার নানা বাড়ি এলাকায় আসে। সন্ধ্যার পর ওই  এলাকার পেয়ারা মজুমদার নামে এক গৃহবধূকে তার কন্যা সন্তানটিকে রাখতে বলেন। পেয়ারা মজুমদার জানান, রিমু তার ওই শিশু সন্তানকে তাকে দিয়ে দিতে চায়। কিন্তু তিনি বিরক্তি প্রকাশ করে তাকে পরে আসতে বলেন। এর পর পরই শিশুটিকে তানিয়া মদকের বাড়ির সামনে ফেলে রেখে চলে যায় সে।

শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হলে দত্তক নেওয়ার জন্য হাসপাতালে ভিড় জমে ওঠে। শিশুটিকে একপলক দেখার জন্য অনেক লোক ছুটে আসেন। হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার সিরাজদৌলা পলিন জানান, শিশুটি সুস্থ আছে। শিশুটিকে শিশু ওয়ার্ডে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

পরে জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন এবং পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী শিশুটিকে দেখতে আসেন। এ সময় জেলা প্রশাসক জানান, দত্তক নেওয়ার জন্য অনেকেই ইচ্ছা প্রকাশ করছেন। কিন্তু আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে দত্তক নিতে হবে। এদিকে শিশুটির মা ও বাবাকে খুঁজছে পুলিশ।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর