Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ অক্টোবর, ২০১৯ ২৩:৪৩

সভাপতি ব্যস্ত উপজেলা নিয়ে সম্পাদকের হাতে দল

সভাপতি ব্যস্ত উপজেলা নিয়ে সম্পাদকের হাতে দল

জামালপুরে কখনো শক্ত ঘাঁটি গড়ে তুলতে পারেনি বিএনপি। বিএনপির সাবেক মহাসচিব প্রয়াত ব্যারিস্টার আবদুস সালাম তালুকদার তার নিজের জেলা জামালপুরে বিএনপিকে শক্তিশালী করার চেষ্টা করলেও কোন্দলের কারণে তা পারেনি। সেই কোন্দল এখনো বিদ্যমান রয়েছে। বিশেষ করে সাবেক দুই এমপি এম রশিদুজ্জামান মিল্লাত এবং নিলোফার চৌধুরী মণির অনুসারী পদবঞ্চিত কিছু নেতা-কর্মী বিএনপির রাজনীতিতে আলাদা বলয় তৈরি করে রেখেছেন। জামালপুরে দীর্ঘদিন ধরে আহ্বায়ক কমিটি দিয়েই চলছিল জেলা ছাত্রদলের কমিটি। দীর্ঘদিন পর সম্প্রতি  জেলা ছাত্রদলের কমিটি দেওয়া হলেও সেখানেও কোন্দল। ছাত্রদলের সভাপতি জেলা বিএনপির সঙ্গে থাকলেও সাধারণ সম্পাদক তাদের বিরোধী পক্ষে। তাই জেলা ছাত্রদলের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক দলীয় সব কর্মসূচিও পালন করেন পৃথকভাবে। জামালপুরে ৫টি আসনের মধ্যে জামালপুর-১ (দেওয়ানগঞ্জ-বকশীগঞ্জ) আসনে বিএনপির কোন্দল সবচেয়ে বেশি। এই আসনে দলীয় মনোনয়নের জন্য সাবেক এমপি এম রশিদুজ্জামান মিল্লাত এবং পুলিশের সাবেক আইজিপি বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুল কাইয়ুমের মধ্যে দলীয় কোন্দল বলতে গেলে প্রকাশ্যেই। ইতিপূর্বে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিএনপির এই দুই গ্রুপে একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে।

জামালপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ফরিদুল কবীর তালুকদার শামীম একই সঙ্গে সরিষাবাড়ী উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক। তিনি জেলা বিএনপির চেয়ে তার নিজের উপজেলা সরিষাবাড়ীর রাজনীতিতেই সার্বক্ষণিক সময় দেন। তাই দলকে একাই নেতৃত্ব দিচ্ছেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহ্ মো. ওয়ারেছ আলী মামুন। জানতে চাইলে তিনি বলেন, জামালপুরে বিএনপির কোনো কোন্দল নেই।


আপনার মন্তব্য