Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ অক্টোবর, ২০১৯ ২৩:৪৪

এক বছরেও কার্যকর হয়নি সড়ক পরিবহন আইন

জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস আজ

আরাফাত মুন্না

এক বছরেও কার্যকর হয়নি সড়ক পরিবহন আইন

লাইসেন্স না থাকলে চালকের ছয় মাসের কারাদ- বা ২৫ হাজার টাকা জরিমানা। দুই যানবাহনের পাল্লাপাল্লিতে দুর্ঘটনা ঘটলে চালকের তিন বছরের কারাদ- অথবা জরিমানা ২৫ লাখ টাকা। আইন অমান্য করলে কাটা যাবে চালকের নির্ধারিত নম্বরও। একপর্যায়ে সব নম্বর কাটা গেলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাতিল হবে তার লাইসেন্স। এমন অনেক প্রয়োজনীয় বিধানই রয়েছে সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে করা নতুন সড়ক পরিবহন আইনে। তবে গত বছর সেপ্টেম্বরে সংসদে পাস হওয়া আইনটি এক বছরেও কার্যকর হয়নি। পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের দাবির মুখে কার্যকরের আগেই নতুন আইনটি সংশোধন করা হচ্ছে বলেও খবর রয়েছে। এদিকে ‘জীবনের আগে জীবিকা নয়, সড়ক দুর্ঘটনা আর নয়’-এ প্রতিপাদ্য নিয়ে আজ তৃতীয়বারের মতো পালিত হচ্ছে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস। দিবসটিকে কেন্দ্র করে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। সড়ক পরিবহন আইনটি কার্যকরে গেজেট প্রকাশের নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না, হাই কোর্ট থেকে গত এপ্রিলে এ সংক্রান্ত রুলও জারি করা হয়েছে। এখনো রুলের জবাব না পেলেও রুল শুনানির উদ্যোগ নিয়েছেন রিটকারী আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। তিনি জানান, আজ হাই কোর্টে আবেদনটির ওপর শুনানি হতে পারে।

সড়ক নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, সড়ক পরিবহন আইনটি কার্যকর না করতে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের চাপ রয়েছে। এর ফলে সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে সরকারের সদিচ্ছার বিষয়টি প্রশ্নের মুখে পড়েছে। মালিক-শ্রমিকদের দাবির মুখে আইনটি পর্যালোচনায় চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালকে সভাপতি করে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিল। গত ২৫ সেপ্টেম্বর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন কমিটির ওই তিন সদস্য। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক নৌমন্ত্রী, সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যকরী সভাপতি ও সংসদ সদস্য শাজাহান খান, সড়ক পরিবহন সমিতির সভাপতি মসিউর রহমান রাঙ্গাসহ মালিক ও শ্রমিক নেতারা। পরে কমিটি তাদের মতামত দিয়েছে। যেখানে সাজা কমিয়ে আইন সংশোধনীর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রের তথ্য। কমিটির অন্য সদস্য হলেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ও রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। গত বছরের ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসের চাপায় দুই কলেজশিক্ষার্থী নিহত হন। সেদিন থেকে নিরাপদ সড়কের দাবিতে সারা দেশে রাস্তায় নেমে আসেন বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর তড়িঘড়ি করে পাস করা হয় সড়ক পরিবহন আইন। আইনটি কার্যকরে গেজেট প্রকাশের বাধ্যবাধকতা রয়েছে আইনেই। সংসদে পাস হওয়া সড়ক পরিবহন আইনের ১ (২) ধারায় বলা হয়েছে, সরকার গেজেটের মাধ্যমে যে তারিখ নির্ধারণ করবে, সেই তারিখে এই আইন কার্যকর হবে। সরকার আইনটি কার্যকরের গেজেট প্রকাশ না করলেও সড়ক খাতের শৃঙ্খলা ফেরাতে এবং দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণে গত ১৭ ফেব্রুয়ারি একটি কমিটি করেছে। এই কমিটির নেতৃত্বে রয়েছেন সাবেক নৌমন্ত্রী শাজাহান খান। তিনি বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনেরও কার্যকরী সভাপতি। কমিটি সুপারিশের খসড়াও চূড়ান্ত করেছে। যদিও এসব সুপারিশের বেশির ভাগই পুরনো।

জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস আজ : আজ দেশব্যাপী পালিত হবে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস। ‘জীবনের আগে জীবিকা নয়, সড়ক দুর্ঘটনা আর নয়’- এ প্রতিপাদ্য নিয়ে তৃতীয়বারের মতো দিবসটি পালিত হতে যাচ্ছে। এ উপলক্ষে আলোচনা সভা, র‌্যালি ও সড়ক সচেতনতা কার্যক্রমের আয়োজন করা হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর