শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০১:৪৮

রাজধানীতে গৃহবধূ ও কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীতে গৃহবধূ ও কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় এক গৃহবধূ ও এক কলেজ ছাত্রী আত্মহত্যা করেছেন। তারা হলেন- গেন্ডারিয়ায় অর্থি দাস (২৫) ও যাত্রাবাড়ীতে আনিকা আক্তার (১৭)। তাদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। নিহত অর্থির স্বামী ব্যাংক কর্মকর্তা দীলিপ জানান, স্ত্রী ও সন্তান নিয়ে নারিন্দায় একটি বাসায় থাকেন। কয়েক দিন আগে ব্যাংকের কয়েকজন মিলে সিলেটে ঘুরতে যান দীলিপ। গতকাল সকালে বাসায় ফিরতে দেরি হওয়ায় অর্থি তার উপর অভিমান করেন। গতকাল জন্মাষ্টমীর পূজা ছিল। স্ত্রীকে নিয়ে পূজায়  যেতে চাইলে তিনি জানান মঙ্গলবার ঘুরতে বের হবে। কিন্তু দীলিপের ব্যাংকে কাজ থাকায় ঘুরতে পারবে না বলায় আরও ক্ষেপে যায়। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়া বাধে। দুপুরে তার স্ত্রী ঘরের দরজা বন্ধ করে ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না দিয়ে ফাঁস নেয়। বিষয়টি টের পেয়ে তিনি দরজা ভেঙে অর্থিকে উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

অর্থির বাড়ি ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানার উচ্চপাড়া গ্রামে। এদিকে, গতকাল ভোরে যাত্রাবাড়ীর সুতি খালপাড় ৫৪/২ নম্বর বাড়ির ৩য় তলা থেকে আনিকার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। আনিকা সেন্ট্রাল উইমেন্স কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক ১ম বর্ষের ছাত্রী। পুলিশ বলছে, আনিকার বাবার নাম আমির হোসেন। বাড়ি মানিকগঞ্জের সিংগাইর থানার মানিকনগরে। আনিকা দীর্ঘদিন ধরে খালা শাহনাজ পারভীনের বাসায় ছিল। গতকাল ভোরে বাথরুমে যায় আনিকা। অনেক সময় পার হলেও বের না হওয়ায় বাথরুমের দরজা ভাঙা হয়। বাথরুমে গলায় ওড়না পেঁচানো আনিকাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখা যায়। তাকে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। প্রেমঘটিত কারণে সে আত্মহত্যা করতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।


আপনার মন্তব্য