Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২৩:১০

শেষ আটে বসুন্ধরা কিংস

ক্রীড়া প্রতিবেদক

শেষ আটে বসুন্ধরা কিংস
দুই জায়ান্টের লড়াই। স্বাধীনতা কাপ ফুটবলে শেখ রাসেলের দুর্গে আক্রমণে বসুন্ধরা কিংসের কলিনড্রেস। ম্যাচে গোলের দেখা মেলেনি। ড্র করেই মাঠ ছেড়েছে দুই দল —বাংলাদেশ প্রতিদিন

টার্গেট মৌসুমের সবগুলো শিরোপা জেতা। যদিও মৌসুমের প্রথম টুর্নামেন্ট ফেডারেশন কাপের শিরোপা জেতা হয়নি। সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে রানার্সআপেই। তারপরও রাশিয়া বিশ্বকাপ খেলা ফুটবলার ড্যানিয়েল কলিনড্রেসকে নিয়ে দুর্দান্ত ফুটবল খেলা বসুন্ধরা কিংস এবার নতুন মিশনে নেমেছে। দলটির নতুন মিশন স্বাধীনতা কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট। বিজয়ের মাসে স্বাধীনতা কাপ টুর্নামেন্টের আয়োজন করে ভীষণ সমালোচিত বাফুফে।

কিন্তু অভিষেক বছরে আলো ছড়ানো বসুন্ধরা কিংস দুরন্ত ফুটবল খেলছে টুর্নামেন্টটিতে। গতকাল শীতের সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে গ্রুপে নিজেদের শেষ খেলায় গোলশূন্য ড্র করেছে ২০১৩ সালের স্বাধীনতা কাপের শিরোপাধারী শেখ রাসেলের সঙ্গে। যদিও এই ড্রয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করে নিতে কোনো সমস্যা হয়নি বসুন্ধরার। দুই ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে ‘ডি’ গ্রুপ থেকে সবার আগে জায়গা করে নিয়েছে সেরা আটে। ৮ ডিসেম্বর গ্রুপ থেকে দ্বিতীয় দল হিসেবে সেরা আটে জায়গা নেওয়ার লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে শেখ রাসেল ও শেখ জামাল। ড্র হলেই উঠে যাবে শেখ রাসেল। পরের রাউন্ডে উঠতে জিততেই হবে শেখ জামালকে। উল্লেখ্য, প্রথম ম্যাচে শেখ জামালকে ২-০ গোলে হারিয়েছিল বসুন্ধরা কিংস।

বসুন্ধরা গতকাল খেলতে নামে ব্রাজিলিয়ান মার্কোস ভিনিসিয়াসকে ছাড়া। ইনজুরির জন্য ফেডারেশন কাপের সবগুলো ম্যাচ খেলতে পারেননি ব্রাজিলিয়ান রিক্রুট। তার জায়গায় খেলেছেন জাতীয় দলের মতিন মিয়া। এছাড়া কলিনড্রেস, বখতিয়ার ও জর্জ গোটরকে নিয়েই একাদশ সাজান কোচ অস্কার ব্রুজোন।

তবে শেখ রাসেলের একাদশে ছিলেন চার বিদেশি রাফায়েল ওডেইন, আজিজভ আলিসার, অ্যালেক্স রাফায়েল ও উদোকা অ্যালিসন। সাত বিদেশি খেললেও ম্যাচটিতে গোল হয়নি। যদিও অপেক্ষাকৃত বেশি সময় বলের নিয়ন্ত্রণ ছিল বসুন্ধরা কিংসের পায়ে। গতকাল সন্ধ্যায় দুই দল মৌসুমে দ্বিতীয়বারের মতো মুখোমুখি হয়। ফেডারেশন কাপের সেমিফাইনালে শেখ রাসেলকে ১-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছিল নবাগত দলটি। ম্যাচে প্রথম আক্রমণে যায় বসুন্ধরা। ৬ মিনিটে কিংসের স্ট্রাইকার মাহবুবুর রহমানের শট ধরে ফেলেন মুক্তির গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা।

১৩ মিনিটে বক্সের বাঁ প্রান্ত থেকে মতিন মিয়ার ক্রসে পা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হন মাসুক মিয়া জনি।  ২৭ মিনিটে সহজ সুযোগ নষ্ট করেন কিংসের কিরগজিস্তানের মিডফিল্ডার বখতিয়ার। প্রথমার্ধে আর কোনো সুযোগ তৈরি হয়নি গোলের। দ্বিতীয়ার্ধে দুই দল বলের নিয়ন্ত্রণ নিতে যেয়ে গোলের আক্রমণে যেতে পারেনি। ফলে ম্যাচে গোল হয়নি। শেষ হয় গোলশূন্য।  

‘সি’ গ্রুপে ব্রাদার্স ইউনিয়ন ও মুক্তিযোদ্ধার ম্যাচটি ড্র হয়েছে ১-১ গোলে। দিনের প্রথম ম্যাচে দুই দলের ড্রয়ে গ্রুপ থেকে সবার আগে কোয়ার্টারে জায়গা করে নিয়েছে ১৯৯০ সালের স্বাধীনতা কাপের চ্যাম্পিয়ন আবাহনী। মুক্তিযোদ্ধা প্রথম ম্যাচে ১-২ গোলে হেরেছিল আবাহনীর কাছে। দলটিরও সুযোগ রয়েছে সেরা আটে খেলার।

এজন্য আবাহনীর কাছে ন্যূনতম ২ গোলের ব্যবধানে হারাতে হবে গোপীবাগের দল ব্রাদার্সকে। গতকাল দিনের প্রথম ম্যাচে ৮ মিনিটে ব্রাদার্সের পক্ষে গোল করেন ব্রাজিলের লিওনার্দো লিমা। ২৩ মিনিটে মুক্তিযোদ্ধার পক্ষে সমতা আসে সুজন মিয়ার শটে আশরাফুলের মাথা ছুঁয়ে।


আপনার মন্তব্য