Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper

শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৪ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ২৩:০৫

ফুটবলে এশিয়ার সেরা হওয়ার লড়াই

ক্রীড়া ডেস্ক

ফুটবলে এশিয়ার সেরা হওয়ার লড়াই

এশিয়ান অঞ্চলে যুক্ত হওয়ার পর অস্ট্রেলিয়ার পারফরম্যান্স দারুণ। গত দুবারেই তারা ফাইনাল খেলেছে। ২০১১ সালে ফাইনালে জাপানের কাছে ১-০ গোলে পরাজিত হলেও গতবার (২০১৫) দক্ষিণ কোরিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়ে প্রথমবারের মতো এশিয়া কাপ জয় করেছে অস্ট্রেলিয়া। সংযুক্ত আরব আমিরাতের চারটি শহরের ৮টি মাঠে আজ থেকে শুরু হওয়া এশিয়ান কাপের ১৭তম আসরে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই অংশ নিচ্ছে সকারুরা। ২৬ দলের এ টুর্নামেন্ট আজ শুরু হয়ে শেষ হবে ১ ফেব্রুয়ারি।

দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চল থেকে এএফসি এশিয়ান কাপে খুব কম সময়ই দল থাকে। গত ১৬টি আসরে মাত্র চার বার দক্ষিণ এশিয়ান দল ছিল। এর মধ্যে বাংলাদেশ খেলেছে ১৯৮০ সালে। সেবার লাল-সবুজের দল গ্রুপ পর্বে চারটা ম্যাচ খেলে চারটিতেই হেরেছিল। অবশ্য উত্তর কোরিয়ার বিপক্ষে দুটি গোল করেছিলেন আশরাফ উদ্দিন চুন্নু ও কাজী সালাউদ্দিন। এছাড়া তিনবার এশিয়ান কাপ খেলেছে ভারত। ১৯৬৪ সালে তারা রানার্সআপ হয়েছিল। সেবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ইসরায়েল। ১৯৮৪ ও ২০১১ সালেও এশিয়ান কাপ খেলেছে ভারত। তবে সেরা ফল রানার্সআপ হওয়াটাই। আরও একবার দক্ষিণ এশিয়ার প্রতিনিধি হিসেবে এশিয়ান কাপ খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে ভারতীয়রা। আজ থেকে শুরু হওয়া টুর্নামেন্টে তারা ‘এ’ গ্রুপে খেলবে স্বাগতিক সংযুক্ত আরব আমিরাত, থাইল্যান্ড ও বাহরাইনের বিপক্ষে। এই গ্রুপের দুটি দলই (বাহরাইন ১১৩ ও থাইল্যান্ড ১১৮) ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ভারতের (৯৭) নিচে। কেবল সংযুক্ত আরব আমিরাতই (৭৯) উপরে। ভারতের দারুণ সম্ভাবনা আছে নকআউট পর্ব খেলার।

এবার ফেবারিটের তালিকায় শীর্ষে থাকছে ইরান। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে এশিয়ান দলগুলোর মধ্যে শীর্ষে অবস্থান করছে তারা (২৯)। অস্ট্রেলিয়া ৪১, জাপান ৫০ এবং দক্ষিণ কোরিয়া আছে ৫৩ নম্বরে। শিরোপার লড়াইটা যে এদের মধ্যেই হবে, তা বেশ বুঝা যায়। ইরান এশিয়ান কাপ জিতেছে টানা তিনবার (১৯৬৮, ১৯৭২ ও ১৯৭৬)। তবে ইসলামী বিপ্লবের পর তারা আর এশিয়ান কাপ জিততে পারেনি। এমনকি ফাইনালও খেলতে পারেনি। ৩ বার এশিয়ান কাপ জিতেছে সৌদি আরবও (১৯৮৪, ১৯৮৮ ও ১৯৯৬)। এছাড়া দক্ষিণ কোরিয়া দুবার (১৯৫৬ ও ১৯৬০) এবং ইসরায়েল (১৯৬৪), কুয়েত (১৯৮০), অস্ট্রেলিয়া (২০১৫) ও ইরাক (২০০৭) একবার করে এশিয়ান কাপের শিরোপা ঘরে তুলেছে। দেখা যাক, এবার কারা চ্যাম্পিয়ন হয়!


আপনার মন্তব্য