শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১১ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১০ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:৩৬

কাটছে না সংশয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক

কাটছে না সংশয়

বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল ৮ এপ্রিল। কিন্তু ৪ এপ্রিল নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ। এছাড়া উপায়ও ছিল না। কেননা শিশু কিশোর সংঘের কাউন্সিলর তারেক মো. আদেলের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে কোর্টে রিট করেন মো. সিকান্দার হায়াত। তার এই রিটে ক্রীড়ামোদীরা বিস্ময় প্রকাশ করেন। কেননা অতীতে হকির সঙ্গে বর্ষিয়ান এই ব্যক্তি জড়িত থাকলেও দীর্ঘদিন তিনি দেশের বাইরে ছিলেন। দেশে ফিরেই হঠাৎ করে কেন এই রিট। তাছাড়া তারেক আদেলের কাউন্সিলরশিপ নিয়ে একটি পক্ষ আগেই আপত্তি করে। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র শো করায় সেই আপত্তি না টিকায় জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ বৈধভাবেই তারেকের কাউন্সিলরশিপ মেনে নেয়। সেখানে আবার সিকান্দারের রিট ক্রীড়ামোদীদের অবাক না করে পারেনি। এতেই ঝুলে যায় হকির নির্বাচন। তবে ক্রীড়াপরিষদ আজ পুনরায় নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করতে পারে। পরিষদের একজন আইনি পরামর্শক জানান ২৫ এপ্রিলের মধ্যে নির্বাচন হবে। প্রশ্ন হচ্ছে যেখানে তারেকের বিষয়টি আইনিভাবে ফয়সালা হলো না সেখানে নতুন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা হয় কীভাবে?
তারেক শুধু কাউন্সিলর নন, নির্বাচনে সদস্য পদে প্রার্থীও। সুতরাং প্রার্থীর বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন হতে পারে না? এ ব্যাপারে আইনি পরামর্শক বলেন, কোনো বাঁধা নেই। যদি বৃহস্পতিবার নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা হয়ও হাতে সময় থাকবে। এর মধ্যে তারেক সাহেব নিজের কাউন্সিলরশিপ বৈধ প্রমাণ করতে পারলে অবশ্যই তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারেন। তা না হলে তাকে ছাড়া নির্বাচন করতে আইনি বাধা নেই। প্রশ্ন হচ্ছে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ চূড়ান্ত রায় দেওয়ার পর তারেকের কাউন্সিলরশিপের বৈধতা নিয়ে তা কোর্টে গড়াবে কেন? ধারণা করা হচ্ছে ২৪ এপ্রিল নতুন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা হবে। এখানেও থেকে যাচ্ছে সংশয় ও অনিশ্চিয়তা। যদি ক্রীড়া পরিষদের বৈধতা পাওয়ার পরও তারেককে ছাড়া নির্বাচন হয় তখন আবার তারেক পাল্টা মামলা করলে তা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন ঝুলে থাকার আশঙ্কা রয়েছে। আসলে শেষ পর্যন্ত কি যে হবে তা ৫/৬ দিনের মধ্যে সব পরিষ্কার হয়ে যাবে বলে ক্রীড়া পরিষদের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা ধারণা করছেন।


আপনার মন্তব্য