Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:২৮

মধুর সমস্যা মৌসুমীদের

ক্রীড়া প্রতিবেদক

মধুর সমস্যা মৌসুমীদের

বাংলাদেশ পুরুষ ও নারী ফুটবলারদের মধ্যে আজব এক পার্থক্য। পুরুষ জাতীয় দল গোল পেতে উজার করে খেলে। তবু অধিকাংশ সময়ে কাক্সিক্ষত গোলের দেখা মিলছে না বলে মাথা নিচু করে মাঠ ছাড়ছে। মেয়েদের বেলায় দৃশ্যটা আবার ভিন্ন। জয় মিললেও অক্ষেপটা থেকেই যাচ্ছে। কেননা প্রত্যাশিতভাবে গোলের সংখ্যা বাড়ানো যাচ্ছে না। এ এক মধুর সমস্যা বলা যায় নারী ফুটবলারদের। সোমবার উদ্বোধনী ম্যাচে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ২-০ গোলে হারিয়ে শুভ সূচনা করেছে মৌসুমী, মারিয়ারা। শুরুতে জয় পেয়ে সেমিফাইনাল অনেকটা নিশ্চিত। তবু তৃপ্তির ঢেঁকুড় তুলতে পারেনি নারী ফুটবলাররা। কেননা বড় ব্যবধানে জেতা যায়নি। এর আগে বিভিন্ন টুর্নামেন্টে তিনবার আমিরাতের সঙ্গে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। ব্যবধান ছিল ৬-০, ৪-০ ও ৭-০। সেখানে মাত্র ২-০ গোলে জিতলে কি তৃপ্তি পাওয়া যায়। গোল সংখ্যা নিয়ে মোটেই বিচলিত নন টেকনিক্যাল ডিরেক্টর পল স্মলি। তিনি বলেন, জয়টাই মুখ্য, এখানে কত গোল হলো তা ফ্যাক্টর নয়। তবে এই কথায় কি মৌসুমীদের সান্ত্বনা দেওয়া যায়। যারা প্রতিপক্ষদের নিয়ে গোল উৎসবে মাতে ব্যবধানটা ছোট হলে সেই জয়ে কি পরিপূর্ণতা আসে। প্রশ্ন হলো আমিরাতকে তাহলে গোলের বন্যায় ভাসানো গেল না কেন? এ যেন এক মধুর সমস্যা। গোল দিতে দিতে নারী ফুটবলারদের এখন এমন অবস্থা হয়েছে যে সবাই জালে বল পাঠাতে চায়। ডিফেন্ডাররা ঘর পাহারা না দিয়ে ছুটে যায় গোল দিতে। গোল পেতে স্বার্থপর হয়ে উঠে। সতীর্থকে পাস দিলেই যেখানে গোল হয়। সেখানে কি না নিজেই দূর থেকে শট নিচ্ছে।

 

সেমিতে বাংলাদেশ

বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী গোল্ডকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সংযুক্ত আরব আমিরাতের মেয়েদের ২-০ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনালের পথে এগিয়ে ছিল বাংলাদেশ। গতকাল কিরগিজস্তানের কাছে সংযুক্ত আরব আমিরাত ২-১ গোলে হেরে যাওয়ায় সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়েছে মৌসুমীদের।


আপনার মন্তব্য