শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:৪৯

সেই শাহাদাতের স্পিনে দাপট

প্রস্তুতি ম্যাচ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সেই শাহাদাতের স্পিনে দাপট
জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে বিকেএসপিতে যুব বিশ্বকাপ জয়ী দলের ৬ তারকা

যুব বিশ্বকাপ জয়ের পর শাহাদাত হোসেন এখন ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে পরিচিত মুখ। ব্যাটিংয়ে দাপট দেখিয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের সেরা একাদশে জায়গা করে নিয়েছিলেন। বিশ্বকাপে খেলা ছয় ম্যাচের মধ্যে মাত্র ফাইনালে আউট হয়েছিলেন। ৭৪ রানের হার না মানা একটি অসাধারণ ইনিংসও ছিল তার। বল হাতে নেওয়ার প্রয়োজনই হয়নি।

কিন্তু যুব বিশ্বকাপের তারকা ব্যাটসম্যান শাহাদাত যে একজন দাপুটে অফ-স্পিনার তা গতকাল বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (বিকেএসপি) মাঠে জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি ম্যাচে দেখিয়ে দিলেন। ৫ রানে তুলে নিয়েছিলেন ৩ উইকেট। দিন শেষে ৮ ওভার বোলিং করে দিয়েছেন মাত্র ১৬ রান। ৩টি মেডেনও নিয়েছেন। উইকেট ৩টিই। বোলিং করেছেন ৮ ওভারের টানা স্পেলে। প্রস্তুতি ম্যাচে প্রথম দিনে বাংলাদেশের সেরা বোলার তিনি।

দিন শেষে সফরকারী জিম্বাবুয়ে ৭ উইকেট হারিয়ে তুলেছে ২৯১ রান। প্রথম দিনে জিম্বাবুয়ের ব্যাটিং অনুশীলনও ভালোই হয়েছে। আগামাী ২২ ফেব্রুয়ারি শুরু হচ্ছে সিরিজের একমাত্র টেস্ট। তার আগে বিসিবি একাদশের বিরুদ্ধে অনুশীলন ম্যাচ খেলছে জিম্বাবুয়ে। গতকাল প্রথমে ব্যাট করতে নেমে প্রথম সেশনটা দারুণ কাটিয়েছে। বিনা উইকেটে তারা করেছিল ৯৫ রান। ধৈর্য্য পরীক্ষায় সফল জিম্বাবুয়ের দুই ওপেনার। তবে প্রথম উইকেট পতনের পর বালির বাঁধের মতো ভেঙে পড়ে জিম্বাবুয়ের মিডল অর্ডার। ৪১ রানের মধ্যে টপ অর্ডারের ৫ ব্যাটসম্যানকে হারায় সফরকারীরা। কিন্তু লোয়ার অর্ডারে আবারও লড়াই জমিয়ে তুলেছেন জিম্বাবুয়ের ব্যাটসম্যানরা। অষ্টম উইকেট জুটিতে মুম্বা ও এনলভু অপরাজিত ৬৫ রানের জুটি গড়ে। মুম্বা অপরাজিত রয়েছেন ৫৪ রানে, এনলভু ব্যাট করছেন ২৫ রান নিয়ে।

ওপেনার কেভিন কাসুজা করেছেন ৭০ রান, আরেক ওপেনার প্রিন্স মাসভরে করেছেন ৪৫ রান। তাদের ওপেনিং জুটিটি ছিল ১০৫ রানের। প্রথম উইকেট পতনের পর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড একাদশ খেলায় ফেরেন। তবে শেষ বিকালে দৃঢ়তা দেখিয়েছে সফরকারীরা।

বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে আল-আমীন জুনিয়র নিয়েছেন ৪০ রানে দুই উইকেট। এক উইকেট পেয়েছেন শরিফুল ইসলাম। যুব বিশ্বকাপ জয়ী দলের দুই বোলার কাল বোলিং করেছেন। শাহাদত ও শরিফুল দুজনই উইকেট পেয়েছেন। ব্যাটিংয়ে দেখা যাবে, আকবর আলী, মাহমুদুল হাসান জয় ও পারভেজ হোসেন ইমনকে। তবে আগে দেখতে হবে জিম্বাবুয়েরা কখন অলআউট হয়।

বিকেএসপিতে সুবিধা করতে পারেননি পেসাররা। বঙ্গবন্ধু বিপিএলে দারুণ পারফর্ম করা মুকিদুল ইসলাম প্রস্তুতি ম্যাচে সুযোগ পেয়েও প্রথম দিনে আলো ছড়াতে পারেননি। ১১ ওভার বোলিং করেছেন দিয়েছেন ৩৯ রান। কোনো উইকেট পাননি সুমন খানও। তবে বোলিংয়ে বেশ কিপ্টেমী করেছেন। ১৩ ওভারে দিয়েছেন ২৯ রান। লেগ-স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের পারফরম্যান্স ছিল যাচ্ছেতাই! ১৯ ওভার বোলিং করে দিয়েছেন ৭৭ রান। তবে তরুণ লেগ-স্পিনার রিশভ হোসেন দারুণ বোলিং করেছেন। ১৭ বছর বয়সী এই বোলার ১২ ওভার বল করে  দিয়েছেন মাত্র ২৬ রান। ৩টি মেডেনও নিয়েছেন তিনি।

অবশ্য বিকেএসপির যে মরা উইকেটে খেলা হচ্ছে সেখানে পেসারদের বেশি কিছু করারও নেই। ফ্লাট উইকেট। মুভমেন্ট ছিল না বললেই চলে। তবে এমন উইকেটে বল হাতে নিয়েই বাজিমাত করে দিয়েছেন শাহাদাত।

 

প্রথম দিন
জিম্বাবুয়ে : ২৯১/৭ (৯০ ওভার)
(কাসুজা ৭০, মুম্বা ৫৪*, মাসভরে ৪৫, মারুমা ৩৪ ; শাহাদাত ৩/১৬,
আল-আমীন ২/৪০, শরিফুল ১/৪৫)।


আপনার মন্তব্য