Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:২৬

নির্মাণসামগ্রীর দখলে ব্যস্ত সড়ক

কাজী শাহেদ, রাজশাহী

নির্মাণসামগ্রীর দখলে ব্যস্ত সড়ক
নগরীর বিভিন্ন সড়ক ও পাড়া-মহল্লার রাস্তা ঘুরে দেখা গেছে, ভবন নির্মাণকারীরা নিষেধাজ্ঞার তোয়াক্কা না করেই সড়কে নির্মাণসামগ্রী রেখে রাস্তায় চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছেন। আবার ইট, বালু, রড ব্যবসায়ীরাও রাস্তার ওপর তাদের মালামাল রেখে ব্যবসা পরিচালনা করছেন।

 

রাজশাহী মহানগরীর ব্যস্ততম সড়ক রানীবাজার থেকে সাগরপাড়া বটতলা। কিছুদিন আগেই এই সড়কটি কার্পেটিং করেছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন। কিন্তু এখন এই সড়কটির ওপর ফেলে রাখা হয়েছে নির্মাণসামগ্রী। সড়কটির অধিকাংশ জায়গায় নির্মাণসামগ্রী ফেলে রাখায় জমছে বৃষ্টির পানি। এতে কমছে সড়কটির আয়ু। শুধু ওই সড়কটিই নয়, নগরীর প্রধান প্রধান সড়কসহ পাড়া-মহল্লার রাস্তাগুলোর অধিকাংশ জায়গায় গৃহ নির্মাণসামগ্রী রেখে ভবনের নির্মাণকাজ চলছে। এতে এসব সড়ক দিয়ে চলাচলকারী যানবাহন এবং পথচারীদের পড়তে হচ্ছে নানা দুর্ভোগে। ভবন নির্মাণকারীদের অসচেতনতার কারণে মাঝে মধ্যেই ভুক্তভোগীদের সঙ্গে অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটছে। নগরীর বিভিন্ন সড়ক ও পাড়া-মহল্লার রাস্তা ঘুরে দেখা গেছে, ভবন নির্মাণকারীরা নিষেধাজ্ঞার তোয়াক্কা না করেই সড়কে নির্মাণসামগ্রী রেখে রাস্তায় চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছেন। আবার ইট, বালু, রড ব্যবসায়ীরাও রাস্তার ওপর তাদের মালামাল রেখে ব্যবসা পরিচালনা করছেন।

লক্ষ্মীপুর মোড়, ভেড়িপাড়া মোড়, কাজিহাটা রেডিও সেন্টারের সামনে, মিশন হাসপাতালের সামনে, জমজম ক্লিনিকের সামনে, পাঠানপাড়া রোড, উপশহর, বিলশিমলা, রেশমপট্টি, কাজলা, রানীনগর, বিনোদপুরেরে বিভিন্ন অলিগলিতে রাস্তায় পাথর, বালু, রড, সিমেন্টসহ বিভিন্ন নির্মাণসামগ্রী রেখে বহুতল ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। এতে এ সড়কে যেমন সৃষ্টি হচ্ছে যানজট, তেমনি ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন পথচারীরা।

কাজলা এলাকার সুফিয়া বেগম বলেন, রাস্তা দিয়ে হেঁটে চলাচলে খুব অসুবিধা হয়। এলাকায় রিকশা-ভ্যান ছাড়া কোনো গাড়ি ঢুকতে পারে না। শুধু তাই নয়, একটা রিকশার পাশ দিয়ে সাইকেল যাওয়ারও জায়গা থাকে না। লক্ষ্মীপুর এলাকার আব্বাস উদ্দিন জানান, এলাকায় কেউ অসুস্থ হলে অ্যাম্বুলেন্স পর্যন্ত রাস্তা দিয়ে বাড়ির কাছে আসতে পারে না। কোনো বাড়িতে যদি অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটে তবে ফায়ার সার্ভিসের গাড়িও ঢোকার উপায় নেই। রাস্তা নগরীর মানুষের চলাচলের জন্য, তাও বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে নির্মাণসামগ্রী রেখে।

এ ব্যাপারে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের ২৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আশরাফুল হাসান বাচ্চু বলেন, রাস্তায় নির্মাণসামগ্রী রেখে ভবন নির্মাণ করা উচিত নয়। এক্ষেত্রে অবশ্যই নির্মাণকারীদের সচেতন হওয়া জরুরি। এরকম অনিয়ম দেখলে তাদের নিরুৎসাহিত করি এবং দ্রুত অপসারণের নির্দেশ দিই।

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের প্রধান পরিছন্ন কর্মকর্তা শেখ মো. মামুন জানান, ভবন তৈরির সময় রাস্তায় নির্মাণসামগ্রী রাখার ব্যাপারে সিটি করপোরেশন থেকে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নির্মাণকারীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে অনুমতি দেওয়া হয়। কিন্তু আমাদের পক্ষ থেকে এই অনুমতি দেওয়ার সময় আমরা নির্মাণকারীদের এ বিষয়ে নিরুৎসাহিত করি। কিন্তু সেক্ষেত্রে পথচারী বা যানবাহন চলাচলে যেন কোনো অসুবিধা না হয়, সে পরিমাণ জায়গা রেখে তাদের অনুমতি দেওয়া হয়। তিনি আরও বলেন, এ নিয়ম মানছেন না অনেকেই। এতে নগরীর সড়কে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। তাই এ বিষয়ে রাজশাহী সিটি করপোরেশন বিভিন্ন পরিকল্পনা ও পদক্ষেপ গ্রহণ করতে যাচ্ছে।


আপনার মন্তব্য