শিরোনাম
প্রকাশ : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:০৩
আপডেট : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:০৭
প্রিন্ট করুন printer

রাস্তার জন্য টাকা বরাদ্দ হলেও সংস্কার করছে স্থানীয়রা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

রাস্তার জন্য টাকা বরাদ্দ হলেও সংস্কার করছে স্থানীয়রা
রাস্তা ও সেতুর মুখ সংস্কারে টাকা বরাদ্দ হলেও সংস্কার করছে স্থানীয়রা।

রংপুরের মিঠাপুকুরে ভেঙে যাওয়া কাঁচা সড়ক ও সেতুর মুখ মেরামতের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল সরকারি প্রকল্প। কিন্তু সেই প্রকল্পের কাজ না করে টাকা নিজের কাছে রেখেছেন উপজেলার বালুয়ামাসিমপুরের ইউপি চেয়ারম্যান। পরে স্থানীয় গ্রামবাসী ওই সড়ক ও সেতুর মুখ মেরামত করছেন।

জানা গেছে, উপজেলার বালুয়া মাসিমপুর ইউনিয়নের হাছিয়া নামাপাড়া গ্রামের একমাত্র চলাচলের কাঁচা সড়কটি গতবারের বন্যায় মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ভেঙে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। সড়কটিতে একটি সেতুর দুই পাশের মুখও ভেঙে যায়। একারণে দীর্ঘদিন ধরে চরম ভোগান্তিতে পড়েছিলেন ৬ গ্রামের প্রায় ৪ হাজার মানুষ।

রাস্তাটি মেরামতের জন্য একাধিকবার স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ময়নুল হকের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। কিন্তু তাতে কোনো কর্ণপাত করেননি তিনি। পরে স্থানীয় ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান জুয়েলের অর্থায়নে ভেঙে যাওয়া সড়ক ও সেতুর দুই মুখ মেরামত শুরু করে এলাকাবাসী।

অথচ ২০২০-২১ অর্থ বছরের কাবিখা প্রকল্পের আওতায় ওই রাস্তাটি সংস্কারের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ২ লাখ ৫৯ হাজার টাকা। ইতিমধ্যে বরাদ্দের প্রথম ও দ্বিতীয় কিস্তির ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা উত্তোলন করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান ময়নুল হক। ওই টাকাগুলো প্রায় দেড় মাস ধরে নিজের পকেটে রেখেছেন তিনি।

এ বিষয়ে বালুয়া মাসিমপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ময়নুল হক বলেন, রাস্তা ও সেতুর মুখ সংস্কার শ্রমিক দিয়ে হবে না, ভেকু (স্কেবেটর) দ্বারা করতে হবে। ভেকু না পাওয়ায় কাজটি করতে দেরি হচ্ছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোশফিকুর রহমান জানান, ওই রাস্তাটি সংস্কার করার জন্য ২ লাখ ৬০ হাজার টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে প্রথম ও দ্বিতীয় কিস্তির ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা চেয়ারম্যান উত্তোলন করেছেন। টাকা উত্তোলনের পরেও সংস্কার কাজটি না করার জন্য ক্ষোভ প্রকাশ করেন পিআইও।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর