শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:৫৭

সরস্বতী পূজা উদযাপন

নিজস্ব ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

সরস্বতী পূজা উদযাপন

সনাতনী বিশ্বাস মতে, সরস্বতী জ্ঞান, বিদ্যা ও শিল্পকলার দেবী। জ্ঞান ও বিদ্যালাভের আশায় মাঘ মাসের শুক্ল পঞ্চমী তিথিতে সনাতন ধর্মাবলম্বী বিশেষ করে হিন্দু শিক্ষার্থীরা সরস্বতী দেবীর আরাধনা করেন। প্রতি বছরের মতো গতকাল রাজধানীর বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে বিপুল আয়োজন আর উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে উদযাপিত হয়েছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব সরস্বতী পূজা। সকালে রাজধানীতে বিভিন্ন পূজামন্ডপ ঘুরে দেখা যায়, দেবীর সামনে হাতেখড়ি দিয়ে শিশুরা বিদ্যাচর্চার সূচনা করছেন। ভক্তরা দেবীর চরণে অঞ্জলি দিয়ে আরাধনা করছেন জ্ঞান বৃদ্ধির জন্য। ঢাকা  বিশ্ববিদ্যালয়ে সকালে পূজার মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলে। বিভিন্ন বিভাগ ও ইনস্টিটিউটের উদ্যোগে হলের খেলার মাঠজুড়ে বাহারি ডিজাইনের মন্ডপে দিনভর পূজা চলে। আয়োজক কমিটি সূত্রে জানা গেছে, এ বছর বিভিন্ন বিভাগের ৭০টি মন্ডপ ছিল। চারুকলা অনুষদের তৈরি সবচেয়ে বড় প্রতিমাটি হলের পুকুরে স্থাপন করা হয়। এ ছাড়াও মেয়েদের পাঁচটি হলেও শোভা পায় বীণা হাতে দেবী সরস্বতীর প্রতিমা। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়েও উৎসাহ, উদ্দীপনা ও আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়। এবার পুরান ঢাকার পোগোজ ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজসহ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট ৩৬টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হয়। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান এবং ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ পূজামন্ডপগুলো পরিদর্শন করেন। বসুন্ধরায় নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি প্রাঙ্গণে আয়োজন করা হয় সরস্বতী পূজার। উৎসবের পঞ্চম তিথিতে সুর ও বিদ্যার দেবীর চরণে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মধ্য দিয়ে পূজার সূচনা হয়। এরপর মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্বালন, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, প্রসাদ বিতরণ ও আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সবশেষে সন্ধ্যা আরতির মধ্য দিয়ে পূজার আয়োজনের সমাপ্তি ঘোষণা করা। বনানীতে প্রাইম এশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে সরস্বতী পূজা উদযাপিত হয়েছে। সকাল থেকেই শিক্ষক-শিক্ষার্থী, ভক্ত ও দর্শনার্থীদের মিলনমেলায় পরিণত হয় পূজামন্ডপ।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর