শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৩ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ মার্চ, ২০২১ ২৩:৪২

হাসপাতালের লিফটে লাশ, প্রেমে সাড়া না দেওয়ায় হত্যা!

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের লিফট থেকে রিমু (২০) নামে কলেজছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি কারমাইকেল কলেজের বাংলা বিভাগে অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। স্বজনদের অভিযোগ- প্রেমে সাড়া না দেওয়ায় রিমুকে হত্যার পর তার লাশ হাসপাতালের লিফটে রেখে পালিয়ে যায় বখাটেরা। গতকাল দুপুরে লাশের ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় জলঢাকা থানায় খুন ও অপহরণের মামলা হয়েছে। রুবাইয়া ইসলাম রিমু নীলফামারী সদরের আবদুর রাজ্জাকের মেয়ে। স্বজনরা জানান, করোনাকালে কলেজ বন্ধ থাকায় রিমু নিজ বাড়িতে থেকে পাশর্^বর্তী টেঙ্গনমারী বাজারে প্রাইভেট পড়াতেন। সেখানে যাতায়াতের সময় তাকে প্রতিদিন উত্ত্যক্ত করত জলঢাকা কচুকাটা ইউনিয়নের ফয়সাল নামে এক বখাটে। ঘটনাটি পরিবারে জানালে রিমুর বড় ভাই ফয়সালকে মারধর করেন। স্বজনদের দাবি- রিমু সোমবার দুপুরে প্রাইভেট পড়িয়ে বাড়ি ফেরার পথে বখাটে ফয়সাল (২৪) ও একই এলাকার রিজভী (২৪) তাকে জোর করে মোটরসাইকেলে তোলে নেয়। জলঢাকার রাজারহাট বাজারের অদূরে একটি ব্রিজের কাছে চলন্ত অবস্থায় তাকে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় স্থানীয়রা দুই বখাটেকে আটক করলে তারা রিমুকে জলঢাকা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকরা তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালে রেফার্ড করেন। সন্ধ্যায় হাসপাতালে আনার পথেই তার মৃত্যু হয়। বখাটেরা রিমুর লাশ হাসপাতালের লিফটে রেখে পালিয়ে যায়। রমেক হাসপাতালের পরিচালক  ডা. রেজাউল করিম জানান, রিমুর লাশ লিফটে পাওয়া গেছে। ময়নাতদন্ত শেষে লাশ স্বজন ও পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। জলঢাকা থানার ওসি মোস্তাফিজার রহমান জানান, নিহতের বাড়ি নীলফামারী সদরে হলেও ঘটনাস্থল জলঢাকায়। এ কারণে নিহতের বাবা আবদুর রাজ্জাক জলঢাকা থানায় মামলা করেছেন। ওসি জানান, বখাটেদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।


আপনার মন্তব্য