শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৩ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ জুন, ২০২১ ২৩:৩৬

রাজশাহীতে সন্ধ্যার পর সবকিছু বন্ধ লকডাউন নওগাঁর কিছু এলাকায়

প্রতিদিন ডেস্ক

Google News

করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় আজ থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য প্রতিদিন রাজশাহীতে শপিং মল ও দোকানপাট সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। এ ছাড়া নওগাঁ পৌরসভা ও নিয়ামতপুর উপজেলায় বুধবার মধ্যরাত থেকে এক সপ্তাহের জন্য বিশেষ লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন। নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্য।

রাজশাহী : করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় রাজশাহীতে বিধিনিষেধ আরও বাড়ানো হয়েছে। আজ থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য প্রতিদিন রাজশাহীর শপিং মল ও দোকানপাট সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। গতকাল বিকালে জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল সাংবাদিকদের বিষয়টি জানিয়েছেন। তিনি জানান, ওষুধ, জরুরি প্রয়োজনীয় দ্রব্য, চিকিৎসাসেবা এবং দাফন ও সৎকারে প্রয়োজনীয় জিনিস বিক্রির দোকান বিধিনিষেধের আওতামুক্ত থাকবে। এ ছাড়া সন্ধ্যা ৭টার পর জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কোনোভাবেই বাড়ির বাইরে যাওয়া যাবে না। জরুরি প্রয়োজনে চলাচলের ক্ষেত্রে নিজের পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখতে হবে। সামাজিক অনুষ্ঠানসহ সব ধরনের গণজমায়েত বন্ধ থাকবে। তবে আমসহ অন্যান্য কৃষিপণ্য ও খাদ্যসামগ্রী পরিবহন এ আওতার বাইরে থাকবে। এসব আদেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দেন জেলা প্রশাসক।

নওগাঁ : করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ১৫ দফা নির্দেশনা দিয়ে নওগাঁ পৌরসভা ও নিয়ামতপুর উপজেলায় এক সপ্তাহের জন্য বিশেষ লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন। গতকাল দুপুরে জেলা প্রশাসক হারুন-অর-রশীদের কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন। জেলা প্রশাসক বলেন, সম্প্রতি জেলায় করোনা সংক্রমণ বেড়ে গেছে। ঈদের পর থেকে করোনা সংক্রমণের হার ৩০ শতাংশের ওপরে। এ ছাড়া নওগাঁ পৌরসভা ও সীমান্তবর্তী উপজেলা নিয়ামতপুরে দুই সপ্তাহ ধরে করোনার হার প্রায় ৫০ শতাংশ। মঙ্গলবার রাতে জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির জরুরি বৈঠকে বিশেষ লকডাউনের সিদ্ধান্ত হয়। পরিস্থিতি অবনতি হওয়ায় সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নির্দেশনাক্রমে বুধবার দিবাগত রাত ১২টা থেকে লকডাউন দেওয়া হয়েছে। এক সপ্তাহের জন্য নওগাঁ পৌরসভা ও নিয়ামতপুর উপজেলাজুড়ে লকডাউন কার্যকর হবে। লকডাউনের সময় সব দোকানপাট ও যানচলাচল বন্ধ থাকবে। জরুরি পণ্যবাহী গাড়ি ছাড়া রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, বগুড়া ও জয়পুরহাট থেকে কোনো যানবাহন নওগাঁয় ঢুকতে পারবে না। আবার নওগাঁ থেকেও কোন যানবাহন জেলার বাইরে যাবে না। রোগী ও অন্য জরুরি সেবার ক্ষেত্রে এটি প্রযোজ্য হবে না। এ ছাড়াও সাপাহার, পোরশা ও মান্দা উপজেলা, রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও আন্তর্জাতিক সীমান্ত সংলগ্ন সব হাট-বাজার বন্ধ থাকবে। তবে সকাল ৭টা থেকে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিত্যপণ্য বেচাকেনা করা যাবে। আমের আড়ত পৃথক খোলা জায়গায় বেচাকেনা করা যাবে। এ ছাড়া বাগান থেকে আম ট্রাকে পাঠানো যাবে ও কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে আম পরিবহন চালু থাকবে। আর এসব বিধিনিষেধ কেউ ভঙ্গ করলে কঠিন শাস্তি পেতে হবে বলে জানান জেলা প্রশাসক।