শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৪ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ জুলাই, ২০২১ ২৩:১২

শিথিলতায় সতর্কতা কেন জরুরি

জ্বর-কাশি নিয়ে বাইরে যাওয়া যাবে না

ডা. মুশতাক হোসেন

নিজস্ব প্রতিবেদক

জ্বর-কাশি নিয়ে বাইরে যাওয়া যাবে না
Google News

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও আইইডিসিআরের উপদেষ্টা ডা. মুশতাক হোসেন বলেছেন, গ্রামে-গঞ্জে জেলায়-উপজেলায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে। সংক্রমণ পরিস্থিতির উন্নতি তো হয়নি বরং অবনতি হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে বাইরে গেলে উচ্চ ঝুঁকি থাকবে। জ্বর-কাশি নিয়ে কোনোভাবেই ঘরের বাইরে যাওয়া যাবে না। ঈদের পর শহরে সংক্রমণ বাড়বে। তাই সতর্কতায় নজর দিতে হবে।

গতকাল তিনি বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, করোনা মহামারী ঠেকাতে তিনটি পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি হয়ে পড়েছে। যত রোগী শনাক্ত হচ্ছে তাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনার মধ্যে আনতে হবে। তারা যেন সঠিক চিকিৎসা ও পরামর্শ পায় সে ব্যবস্থা করতে হবে। শতকরা ৫-১০ ভাগ রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে। বাকিরা বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছে। যারা বাড়িতে থাকছে তাদের সহযোগিতা করতে হবে যেন সঠিকভাবে চিকিৎসা চালিয়ে নিতে পারে। টেলিমেডিসিন সেবার আওতায় থাকলে তারা সুস্থ হয়ে উঠবে। দ্বিতীয়ত, সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। ভিড় এড়িয়ে চলতে হবে। সবাইকে টিকা নিতে হবে। ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তিদের বলব ঘরের বাইরে যাবেন না। যারা জরুরি প্রয়োজনে যাবেন অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করবেন। দূরত্ব বজায় রাখবেন এবং সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে। সবচেয়ে ভালো হয় বাইরে থেকে ফিরে গোসল করলে।

ডা. মুশতাক হোসেন আরও বলেন, করোনা যেহেতু গ্রামে-গঞ্জে ছড়িয়ে পড়েছে, তাদের শনাক্ত করতে বাড়ি বাড়ি যেতে হবে স্বাস্থ্যকর্মীদের। স্বাস্থ্যকর্মীরা অধিক সংক্রমিত এলাকায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন্ট টেস্টের মাধ্যমে রোগী শনাক্ত করতে পারবেন। দ্রুত রোগী শনাক্ত হলে মৃত্যুহার কমে আসবে। ঈদের পর শহরে সংক্রমণ বাড়বে। তাই সেবা ব্যবস্থাপনায় নজর দিতে হবে।