শিরোনাম
প্রকাশ : ১০ মে, ২০২১ ১০:১৪
প্রিন্ট করুন printer

পর্তুগালের কোথায় কখন ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে

রনি মোহাম্মদ (লিসবন, পর্তুগাল)

পর্তুগালের কোথায় কখন ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে
ফাইল ছবি
Google News

করোনার মহামারি কাটিয়ে স্বাভাবিক জীবন ফিরতে শুরু করে পর্তুগাল। গত ১ মে থেকে পর্তুগালের জরুরি অবস্থা সহ কিছু শর্ত স্বপক্ষে সকল প্রকার শপিংমল, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় উপাসনালয়গুলো সহ সকল পর্যটন কেন্দ্র গুলো খুলে দেওয়া হয়।

এরই ধারা বাহিকতায় পর্তুগালে এবার ঈদুল ফিতরের সবচেয়ে বৃহৎ জামাত বাঙালি অধ্যুষিত মাতৃ মনিজের পার্কের মাঠে কিছু শর্ত স্বাপক্ষে ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে অনুমোদন দিয়েছে পর্তুগাল সরকার। 

বায়তুল মোকাররম ইসলামি সেন্টার এবং মাতৃ মনিজ জামে মসজিদের যৌথ উদ্যোগে বিগত বছরের মতো বিভিন্ন দেশের হাজারো ধর্মপ্রাণ মুসলমানের উপস্থিতিতে ঈদের দিন সকাল ৮ টায় মাতৃ মনিজ পার্কে এই জামাতটি অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়াও লিসবনের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে সকাল ৬টা ৪৫ মিনিট এবং ৮ঃ৩০ মিনিটে ২টি ঈদ জামাত, রিবোইলার জামে মসজিদ এবং ওডিভিলাসে সকাল ৮ টায়, দমাইয়া খেলার মাঠে সকাল ৭টা ও ৮ঃ৩০ মিনিটে ২ টি, কাসকাইসের স্থানীয় স্টেডিয়ামে সকাল ৮ টায়, নীল ফন্টেস বাংলাদেশ কমিউনিটির আয়োজনে সকাল ৭ঃ৩০ মিনিটে, পর্যটন নগরী আলগ্রাভের ফারোর জামে মসজিদের আয়োজনে স্হানীয় লাইব্রেরির হল রুমে সকাল ৭ঃ৩০ মিনিটে, বন্দর নগরী পোর্তোর বাঙ্গালী অধ্যুষিত সাও বেন্তের হযতর হামজা (রাঃ) জামে মসজিদে সকাল ৮ঃ০০ এবং ৯ঃ০০ টায় এবং পোর্তোর কেন্দ্রীয় হযরত বেলাল (রাঃ) জামে মসজিদে ৭ঃ০০ এবং ৮ঃ০০ টায় ২টি করে, মিনদেলোর মার্কেটে অবস্থিত বাংলাদেশি জামে মসজিদে সকাল ৯ঃ৩০ মিনিটে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। 

গত বছর করোনা মহামারির কারনে পর্তুগালের কোথাও ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়নি। তাই এবার ঈদ জামাত আয়োজন ও অংশ নেওয়া সকলকে সরকারের শর্ত ও স্বাস্থ্যবিধি পুরোপুরি অনুসরণের অনুরোধ জানিয়েছে বাংলাদেশি কমিউনিটির বিভিন্ন সংগঠন গুলো।

এই বিষয়ে বাংলাদেশ ইসলামি সেন্টার লিসবনের সভাপতি রানা তসলিম উদ্দিন বলেন, সরকার কিছু শর্ত স্বপক্ষে মাতৃ মনিজের পার্কে আমাদের কে এবার নামাজ আদায় করার জন্য অনুমতি দিয়েছে, শর্ত গুলো হলো নামাজের আগে পুরো মাঠে জীবাণুনাশক ছিটিয়ে পরিষ্কার করতে হবে। মুসল্লিরা নিজ দায়িত্বে বাসা থেকে ওজু এবং জায় নামাজ সঙ্গে নিয়ে আসতে হবে, হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং সামাজিক দূরত্ব মেনে নামাজ আদায় করতে হবে, নামাজ শেষে কোন প্রকার কোলাকুলি কিংবা কুশল বিনিময় করা যাবে না, সেই সাথে নামায শেষে পার্কের মাঠ থেকে সঙ্গে সঙ্গে ত্যাগ করতে হবে কোন প্রকার জমায়েতের সৃষ্টি করা যাবে না।

এই সকল বিষয় গুলো তদারকিরর জন্য স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন সম্পূর্ণ মাঠ ও আশেপাশে বিশেষ নজর দারি করবে। তাই যে সকল ধর্মপ্রাণ মুসলিম ভাই পার্কে নামাজ আদায় করতে আসবেন উপরোক্ত শর্ত গুলো মেনে চলার জন্য আহবান করেন।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

এই বিভাগের আরও খবর