৪ জুন, ২০২২ ১৮:৪৮

পাটজাত পণ্য উৎপাদনে নারী উদ্যোক্তা সৃজন কর্মসূচি প্রশিক্ষণের উদ্বোধন

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

পাটজাত পণ্য উৎপাদনে নারী উদ্যোক্তা সৃজন কর্মসূচি প্রশিক্ষণের উদ্বোধন

বহুমুখী পাটজাত পণ্য উৎপাদন বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আওতায় চতুর্থ কোয়ার্টারের প্যাকেজ প্রশিক্ষণের উদ্বোধন ও তৃতীয় কোয়ার্টারের প্রশিক্ষণার্থীদের সনদপত্র বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার বেলা ১১টায় নেত্রকোনা সার্কিট হাউস মিলনায়তনে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে নতুন প্রজন্ম উদ্যোক্তা উন্নয়ন ফাউন্ডেশন এই প্রশিক্ষণের উদ্যোগ নেয়। উদ্বোধনী উপলক্ষে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ। 

বক্তব্য রাখেন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ফরিদা পারভীন, পরিচালক (যুগ্ম সচিব) মনোয়ারা ইশরাত, কর্মসূচি পরিচালক ফারহানা আখতার, নতুন প্রজন্ম উদ্যোক্তা উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সেগুপ্তা সুলতানা কাকলী, নেত্রকোনা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ পরিচালক নাজনীন সুলতানা প্রমুখ। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকারের উপ পরিচালক জিয়া আহমেদ সুমন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনির হোসেন।

প্রশিক্ষক সিমু আক্তার জানান, দেশের পাঁচটি জেলা ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, জামালপুর, শেরপুর ও ফরিদপুর সদরে এই কর্মসূচীর আওতায় ১৬৫ ব্যাচের মাধ্যমে ৪৯৫০ জন নারীকে স্বল্প মেয়াদী (৫ দিন) প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। এরমধ্যে ৫ দিনব্যাপী ১২০ টি ও ১০ দিন ব্যাপী ৪৫টি প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। প্রতি ব্যাচে ৩০ জন করে নতুন উদ্যোক্তাকে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন। 

গত ২০১৯ সনের জুন থেকে শুরু হওয়া এই প্রশিক্ষণ সমাপ্ত হচ্ছে চলতি জুনে। ৪৩২.৭০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে পাট এবং অব্যবহৃত পণ্য দিয়ে ৫ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণে আধুনিক শপিং ব্যাগ, জুতা ও স্যান্ডেল, ভ্যানেটি ব্যাগ ও মানিব্যাগ, পাটের ছিকা, চাবির রিং, টিস্যু বক্স, ল্যাম্প শেড, শো-পিস, সহ ৮ জাতের পণ্য তৈরি শেখানো হয়। ১০ দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণে সেমিনার ও অফিস ব্যাগ, রুম ডিভাইডার, সোফা ও পিলো কভার, কার্ড হোল্ডার ও ফটোফ্রেম, ডেকোরেশন ও ওয়ালমেট, শতরঞ্জি ও পাপস, জুট বেড শীট ইত্যাদি তৈরি শেখানো হয়। 

এই কর্মসূচীর মূল উদ্দেশ্য বহুমুখী পাটজাত পণ্য উৎপাদন ও বাজারজাতকরণে নতুন প্রজন্মের নারী উদ্যোক্তাদের কারিগরি দক্ষতা উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। এতে নারী উদ্যোক্তাদের কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে দারিদ্র বিমোচন ও ক্ষমতায়ন হবে। বহুমুখী পাটজাত পণ্য মানসম্পন্ন ভাবে উৎপাদন এবং স্থানীয়ভাবে বাজারজাতকরণসহ আন্তর্জাতিক পরিচিতি অর্জন ও পাটজাত পণ্যের রপ্তানি বৃদ্ধি করা। 

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর