২৪ নভেম্বর, ২০২২ ১৯:১৯

কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যার দায়ে ৫ জনের আমৃত্যু কারাদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর:

কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যার দায়ে ৫ জনের আমৃত্যু কারাদণ্ড

রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলায় এক কিশোরীকে গণধর্ষণ ও হত্যার ঘটনার ৭ বছর পরে পৃথক দুটি মামলায় ৫ আসামির আমৃত্যু কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালতের বিচারক। বৃহস্পতিবার দুপুরে রংপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক রোকনুজ্জামান এই রায় ঘোষণা করেন। 

দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, মর্ণেয়ার হাজীপাড়া তালপট্টির শামসুল আলমের ছেলে আবুজার (২১), আব্দুর রহমানের ছেলে আব্দুল করিম (২২), মতিয়ার রহমানের ছেলে নাজির হোসেন (২৫), মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে আমিনুর রহমান (২২) ও মোঃ হান্নানের ছেলে আলমগীরকে (২০) আমৃত্যু কারাদন্ডসহ প্রত্যককে এক লাখ টাকা অর্থদন্ড করা হয়। রায় ঘোষণার সময় ৪ আসামী আদালতে উপস্থিত ছিল। আলমগীর নামে এক আসামি পলাতক রয়েছে। 

মামলা সূত্রে জানা গেছে, আবুজারের সাথে শাহিনার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। শাহিনা বিভিন্ন সময় বিয়ের কথা বললে আবুজার টালবাহানা শুরু করে। শাহিনা প্রেমের সম্পর্কটি তার বাবা-মাসহ গ্রামাবাসীকে জানিয়ে দেবে হুমকি দিলে আবুজার শাহিনাকে হত্যার পরিকল্পনা করে। ২০১৫ সালের ১৪ মে শাহিনাকে বাড়িতে একা পেয়ে কৌশলে বাড়ি থেকে ডেকে নির্জন স্থানে নিয়ে যায় আবুজার। এরপর আবুজার ও তার বন্ধুরা শাহীনকে গণধর্ষণসহ দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হত্যা করে বাড়ির পাশে ধইঞ্চা ক্ষেতে ফেলে পালিয়ে যায়। পরদিন ১৫ মে স্থানীয়রা শাহিনার লাশ ধইঞ্চা ক্ষেতে দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। এ ঘটনায় শাহীনার বাবা আইয়ুব আলী ওইদিন গঙ্গাচড়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই তৌহিদুল ইসলাম আবুজারসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। ১০ জনের সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে বৃহস্পতিবার আদালত ৫ আসামীকে আমৃত্যু কারাদন্ড ও এক লাখ টাকা করে অর্থদন্ড প্রদান করেন।  

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এম এ জাহাঙ্গীর আলম তুহিন বলেন, আদালতের রায়ে আমরা সন্তুষ্ট। বাদীপক্ষ ন্যায় বিচার পেয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/এএম

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর