৩১ মে, ২০২৪ ১৬:০৮

লাভের আশায় বাদামের সাথে কাউন চাষ

রিয়াজুল ইসলাম, দিনাজপুর:

লাভের আশায় বাদামের সাথে কাউন চাষ

স্বল্প খরচে অধিক লাভের আশায় পরীক্ষামূলকভাবে বাদামের সাথে কাউন চাষ করে সফলতা পেয়েছে বীরগঞ্জের তরুণ উদ্যোক্তা রেজানুর ইসলাম রেজা। ইউটিউব ও বিভিন্ন জার্নালের কলাম পড়ে স্বল্প খরচে অধিক লাভ হওয়ায় এই ফসল চাষে ঝুঁকেছেন তিনি। বর্তমান বাজার হিসাবে প্রায় ৪ লক্ষ হতে ৫ লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন বলে আশা করছেন তিনি।

দেশে কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার প্রতিনিয়ত বাড়ছে। তথ্য প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে বিলুপ্তপ্রায় কৃষিপন্য চাষাবাদে আগ্রহ বাড়ছে কৃষিতে। এক সময় দেশের উত্তরাঞ্চল ও দক্ষিণাঞ্চলে প্রচুর কাউন চাষ হতো। তবে এ অঞ্চলে গত কয়েকবছর ধরে তেমন একটা কাউন চাষ হয় না। এলাকা হতে হারিয়ে যেতে বসেছে কাউন চাষ। এবার তথ্য প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে উঁচু জমিতে স্বল্প খরচে অধিক লাভের আশায় বাদামের সাথে কাউন চাষ করে ব্যাপক সফলতা পেয়েছেন দিনাজপুরের বীরগঞ্জের শিবরামপুর ইউনিয়নের মুরারিপুর গ্রামের মোঃ রেজানুর ইসলাম রেজা নামে এক তরুণ কৃষি উদ্যোক্তা। প্রথমবারের মতো তিনি প্রায় সাড়ে ৩ একর উঁচু জমিতে বাদাম চাষ করছেন। এরমধ্যে পরীক্ষামূলকভাবে দেড় একর জমিতে বাদামের সাথে কাউন চাষ করে বেশ সফলতা পেয়েছেন। 

তরুণ উদ্যোক্তা রেজানুর ইসলাম রেজা জানান, সরকার কৃষিকে খাতকে স্মার্ট কৃষি হিসেবে গড়ে তুলতে চান। সরকারের এই উদ্যোগকে কাজে লাগিয়ে ইউটিউব ও বিভিন্ন জার্নালের কলাম পড়ে বাদামের সাথে কাউন চাষ শুরু করি। কৃষিতে পুর্ব ধারণা না থাকায় বিষয়টি আমার জন্য কঠিন ছিল। বাদাম এবং কাউন একসাথে চাষ করা তেমন সহজ ছিলো না। এলাকার কৃষকেরা তেমন একটা উৎসাহ জোগায়নি। তবে আমি কিন্তু নিরাশ হইনি এবং থেমেও যাইনি। বাদামের সাথে কাউন চাষে কাউনে তেমন একটা খরচ নাই। সেচ অনেক কম লাগে এবং অনাবৃষ্টিতে সমস্যা নাই। এখানে খুব একটা রোগবালাই না থাকলেও ইঁদুরে উপদ্রবে ফসল নষ্ট হওয়ার সম্ভবনা বেশি থাকে। আগে থেকে বীজ সংগ্রহ করলে বীজের দাম কম পাওয়া যাবে। এখন পর্যন্ত সাড়ে ৩ একর জমিতে বাদাম চাষে সব মিলে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। বর্তমান বাজার হিসাবে প্রায় ৪ লক্ষ হতে ৫ লক্ষ টাকা আয় হতে পারে বলে আশা করেছেন তিনি।

এ ব্যাপারে বীরগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, বাদামে সাথে কাউন চাষে বেশ ঝুঁকি রয়েছে। চাষাবাদে অভিজ্ঞতা থাকা প্রয়োজন। তবে এই তরুণ উদ্যোক্তার উদ্যোগটি সফলতার মুখ দেখেছে। তার সফলতা আমাদের কৃষকদের উৎসাহিত করবে। এ ব্যাপারে কৃষি অফিস সার্বক্ষণিকভাবে সহযোগিতা প্রদান করে আসছে।

বিডি প্রতিদিন/এএম

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর