শিরোনাম
প্রকাশ : ১১ নভেম্বর, ২০১৯ ১৯:৩৪
আপডেট : ১১ নভেম্বর, ২০১৯ ১৯:৩৭
প্রিন্ট করুন printer

তদন্ত প্রতিবেদন

ঘূর্ণিঝড়ে পূর্ব সুন্দরবনের দুটি রেঞ্জে মারা যায়নি কোন বন্যপ্রাণী

বাগেরহাট প্রতিনিধি:

ঘূর্ণিঝড়ে পূর্ব সুন্দরবনের দুটি রেঞ্জে মারা যায়নি কোন বন্যপ্রাণী

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে বাগেরহাটে পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের চাঁদপাই ও শরণখোলা রেঞ্জে রয়েল বেঙ্গল টাইগারসহ কোন বন্যপ্রাণী মারা যায়নি। তবে ৬টি আবাসিক, ১৭টি অনাবাসিক, ১০টি জেটি ও ১৯টি নৌযানের আংশিক ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতির পরিমাণ ৩৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা। 

দুই রেঞ্জ কর্মকর্তা সরেজমিন বন ঘুরে দেখে সোমবার সন্ধ্যায় তাদের প্রতিবেদন বাগেরহাটে পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. মাহমুদুল হাসানের কাছে জমা দিয়েছেন। তবে, কি পরিমাণ বনের ক্ষতি হয়েছে তা নিরুপনের কাজ এখনো শেষ হয়নি বলে জানানো হয়েছে।
 
ক্ষয়ক্ষতি নিরুপনে সংশ্লিষ্ট দুই রেঞ্জ কর্মকর্তাকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। রবিবার বিভাগীয় বন কর্মকর্তা এ নির্দেশনা দেন। এ প্রতিবেদন পাওয়ার পরই মূলত জানা যাবে সুন্দরবনের ক্ষয়ক্ষতির সঠিক পরিমাণ। তবে বনবিভাগের সংগৃহীত প্রাথমিক তথ্য মতে, দুবলার চরে বাঁশ, গোলপাতা, হোগলা ও পলিথিন দিয়ে তৈরি জেলেদের অস্থায়ী কিছু ঘরের আংশিক ক্ষয়ক্ষতির পাশাপাশি বনবিভাগের বিভিন্ন ষ্টেশন ও ক্যাম্পের পুরানো স্থাপনা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এখন পর্যন্ত বন্যপ্রাণির ক্ষয়ক্ষতির কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। 

তবে মোংলার সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জ’র বৈদ্যমারী ক্যাম্প এলাকায় বেশ কিছু রেইন্টি/সিরিচ গাছ উপড়ে পড়েছে। 

বাগেরহাটে পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. মাহমুদুল হাসান জানান, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাতে বনের কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা খতিয়ে দেখতে শনিবার চাঁদপাই রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক মো. শাহিন কবির ও শরণখোলা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক মো. জয়নাল আবেদীনকে দায়িত্ব দেয়া হয়। তারা, স্ব-স্ব রেঞ্জ এলাকায় সরেজমিনে গিয়ে সোমবার সন্ধ্যায় আমার কাছে তাদের তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। তবে, বনের অরণ্যের ক্ষয়ক্ষতি নিরুপণের কাজ এখনো চলছে। 

তিনি আরো জানান, প্রতিবেদনে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তান্ডবে বাগেরহাটে পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের চাঁদপাই ও শরণখোলা রেঞ্জে রয়েল বেঙ্গল টাইগারসহ কোন বন্যপ্রাণী মরা যায়নি বলে তাদের রির্পোটে উল্লেখ করেছেন। তবে ৬টি আবাসিক, ১৭টি অনাবাসিক, ১০টি জেটি ও ১৯টি নৌযানের আংশিক ক্ষতি হয়েছে বলে তারা জানিয়েছে। ঝড় হলে গাছপালার কিছু ক্ষতি হয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, এবার  বন বিভাগের সতর্কতাবস্থার জন্যই বন ও বন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ক্ষতিসাধন থেকে রেহাই মিলেছে।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ২১:২৫
প্রিন্ট করুন printer

ধেয়ে আসছে ‘বুলবুলে’র চেয়েও ভয়ানক ঘূর্ণিঝড় ‘নাকরি’

অনলাইন ডেস্ক

ধেয়ে আসছে ‘বুলবুলে’র চেয়েও ভয়ানক ঘূর্ণিঝড় ‘নাকরি’
প্রতীকী ছবি

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল সবকিছু তছনছ করে দিয়েছে বাংলাদেশ, ওড়িশা ও পশ্চিমবঙ্গের উপকূল। এখনও সেই আতঙ্কে ভুগছে সাধারণ মানুষ। সেই আতঙ্ক কাটতে না কাটতেই ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘নাকরি’। দক্ষিণ চীন সাগরে তৈরি ‘নাকরি’ বুলবুলের চেয়েও বেশি শক্তিশালী বলে জানা গেছে। 

‘বুলবুল’ এর মতোই প্রাথমিকভাবে দক্ষিণ চীন সাগরে তৈরি ‘নাকরি’ বুলবুলের চেয়েও বেশি শক্তিশালী হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আপাতত যথেষ্ট শক্তিশালী রয়েছে এই ঘূর্ণিঝড় এবং তা ধীরে ধীরে এগোচ্ছে ভিয়েতনামের ভূমি লক্ষ্য করে। ভিয়েতনামের উপকূলে ব্যাপক বৃষ্টিপাত ঘটানোর পর শক্তিক্ষয় হবে এর। এরপর দক্ষিণ থাইল্যান্ড অতিক্রম করে মায়ানমারের দক্ষিণ ভাগে এসে পৌঁছবে তা। মায়ানমার এসে পৌঁছালেও এর লণ্ডভণ্ড করার শক্তি তেমন থাকবে না। খুব বেশি হলে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

ভারতীয় আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার নাগাদ ঘূর্ণিঝড় ‘নাকরি’ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করতে পারে। এদিনই শক্তি বাড়িয়ে অন্ধ্রপ্রদেশের উত্তর দিক ও ওড়িশা উপকূলবর্তী এলাকাগুলোতে আঘাত হানবে। এর প্রভাব বাংলাদেশেও পড়বে। এছাড়া চেন্নাইসহ উত্তর তামিলনাড়ুর উপর দিয়েও ঘূর্ণিঝড়টি বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। তবে এই মুহূর্তে ঘূর্ণিঝড়টি ভারতে আছড়ে পড়ার সঠিক সময় অনুমান করা সম্ভব হয়নি। 

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ১৫:৪৫
প্রিন্ট করুন printer

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’: বঙ্গোপসাগরে নিখোঁজ এখনো ৭ জেলে

বরগুনা প্রতিনিধি :

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’: বঙ্গোপসাগরে নিখোঁজ এখনো ৭ জেলে

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর আঘাতে বঙ্গোপসাগরে ট্রলারসহ নিখোঁজ ১৫ জেলের ৭ জনের সন্ধান ৫ দিন অতিক্রম হলেও পাওয়া যায়নি। নিখোঁজ জেলেদের সন্ধানে এখনো সাগরে রয়েছে মৎস্যজীবীদের ২টি ট্রলারসহ জেলেরা। নিখোঁজ জেলেদের ৩ জনের বাড়ি বরগুনা সদর উপজেলায় এবং ৪ জনের বাড়ি তালতলী উপজেলায়। 

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ১৬:০৬
প্রিন্ট করুন printer

পিরোজপুরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা

পিরোজপুর প্রতিনিধি :

পিরোজপুরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা

পিরোজপুরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছেন পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মো. হাবিবুর রহমান মালেক। বুধবার দুপুরে পিরোজপুর শহরে আলামকাঠী পল্লী মঙ্গল মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত পৌর এলাকার ১ নং ওয়ার্ডের প্রায় শতাধিক মানুষের মাঝে মেয়র তার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৪ হাজার টাকা করে মোট ৪ লক্ষ টাতা প্রদান করেন। 

হাবিবুর রহমান মালেক বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ত্রাণের ব্যবস্থা করছেন। তারপরও স্থানীয়ভাবে তার সাধ্য অনুযায়ী ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে থাকার জন্য এ উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি। এছাড়াও পৌর এলাকার প্রতিটি ওয়ার্ডে বুলবুল ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের এ সহায়তা করবেন। এসময় উপস্থিত ছিলন পিরোজপুর পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর একরামুল কবিরসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:৩২
প্রিন্ট করুন printer

ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ফসলের বেশি ক্ষতি ভোলা ও পটুয়াখালীতে

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল:

ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ফসলের বেশি ক্ষতি ভোলা ও পটুয়াখালীতে

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে বরিশাল বিভাগে ১ লাখ ৭১ হাজার ৭শ হেক্টর জমির রোপা আমন ধান বিনষ্ট হয়েছে। এছাড়া ৩ হাজার ২৭ হেক্টর জমির শীতকালীন সবজী, ১ হাজার ৮শ’ ৬৮ হেক্টর জমির খেসারী, ৬১৬ হেক্টর জমির পানের বরজ, ৩৯৮ হেক্টর জমির কলাগাছ এবং ৪০৩ হেক্টর জমির পেঁপে গাছ পুরোপুরি বিনষ্ট হয়েছে। 

ঝড়ে গাছ উপড়ে পড়ে এবং অবকাঠামো বিধ্বস্ত হয়ে বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ায় ওইসব স্কুলের ক্লাশ, বার্ষিক পরীক্ষা এবং আসন্ন এসএসসি পরীক্ষা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন সংশ্লিষ্টরা। 

এই ঘূর্ণিঝড়ে বরিশাল বিভাগে সব চেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে পটুয়াখালী এবং ভোলা জেলায়। এছাড়া বিভাগের অন্যান্য জেলায়ও কৃষি এবং অবকাঠামোর কম-বেশি ক্ষতি হয়েছে। 

বরিশাল কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক মো. আফতাব উদ্দিন জানান, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে বরিশাল বিভাগে ৭ লাখ ১৪ হাজার ৭২০ হেক্টর জমির রোপা আমনের মধ্যে ১ লাখ ৭১ হাজার ৭শ’ হেক্টর জমির রোপা আমন পুরোপুরি বিনষ্ট হয়েছে। এছাড়া ৮ হাজার ৭৯৬ হেক্টর জমির শীতকালীন সবজীর মধ্যে ৩ হাজার ২৭ হেক্টর, ১ হাজার ৮শ’ ৬৮ হেক্টর জমির খেসারী, ৪ হাজার ১৩৮ হেক্টর জমির পান বরজের মধ্যে ৬১৬ হেক্টর বরজ, ২ হাজার ৬শ’১ হেক্টর কলাগাছের মধ্যে ৩৯৮ হেক্টর জমির কলাগাছ, ৯৮৭ হেক্টর পেঁপে ক্ষেতের মধ্যে ৪০৩ হেক্টর জমির কলা গাছ পুরোপুরি বিধ্বস্ত হয়েছে। 

ঘূর্ণিঝড়ে বরিশাল বিভাগের সব চেয়ে ক্ষতি হয়েছে ভোলা ও পটুয়াখালী জেলায়। ভোলায় ১ লাখ  ৭৯ হাজার ২৮০ হেক্টর জমির রোপা আমনের মধ্যে ৫৩ হাজার ৭৮৩ হেক্টর জমির রোপা আমন, ২ হাজার ৭শ’ ৪২ হেক্টর জমির শীতকালীন সবজীর মধ্যে ৭৪২ হেক্টর জমির সবজী, ৫১৮ হেক্টর জমির খেসারী, ৫৩৮ হেক্টর জমির পান বরজের মধ্যে ৫৪ হেক্টর জমির পান বরজ এবং পটুয়াখালীতে ২ লাখ ২ হাজার ৩৩০ হেক্টর জমির রোপা আমনের মধ্যে ৫৫ হাজার ১৬৫ হেক্টর জমির ধান, ৬শ হেক্টর জমির শীতকালীন সবজীর মধ্যে ১৮০ হেক্টর জমির সবজী এবং বির্স্তির্ন জমির খেসারী ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। 

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক হরিদাস শিকারী জানান, বরিশাল জেলায় ১ লাখ ২৪ হাজার ৬৩৩ হেক্টর জমির রোপা আমনের মধ্যে ৬২ হাজার ৩শ হেক্টর জমির ধান, ২ হাজার ৫শ’ হেক্টর জমি মধ্যে ৯শ’ ৮০ হেক্টর জমির সবজী, ১ হাজার ৩শ’ ৫০ হেক্টর জমির খেসারী, ৪৬৬ হেক্টর জমির কলাগাছের মধ্যে ৭০ হেক্টর জমির কলাগাছ, ৪৬৭ হেক্টর জমির পেঁপের মধ্যে ৭১ হেক্টর জমির পেঁপে এবং ২ হাজার ৬শ’ ৮২ হেক্টর জমির পান বরজের মধ্যে ৫শ’ ৩৬ হেক্টর জমির পান বরজ বিনষ্ট হয়েছে। 

বরিশাল কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক মো. আফতাব উদ্দিন বলেন, কৃষকদের প্রণোদনা কার্যক্রম চলছে। চাষিদের মাঠে ধরে রাখতে ও চাষাবাদে উৎসাহিত করতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। প্রণোদনা কার্যক্রমের মধ্যে এবার যারা ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তাদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে।


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ১২ নভেম্বর, ২০১৯ ২২:০৪
প্রিন্ট করুন printer

'ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত সকলকে সহায়তা করা হবে'

পিরোজপুর প্রতিনিধি:

'ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত সকলকে সহায়তা করা হবে'

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত সকলকেই সরকার সহযোগিতা করবে বলে জানিয়েছেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শ. ম. রেজাউল করিম (এমপি)। মঙ্গলবার পিরোজপুর সদর উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গনে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণকালে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, দুর্যোগ পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি প্রাপ্ত। আওয়ামী লীগ সরকার সব সময়ই দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, দুর্যোগে যাদের ঘর ভেঙে গেছে, তাদের সকলেরই ঘর তৈরি করে দেওয়া হবে।

এ সময় পিরোজপুর জেলা প্রশাসক আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন, পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান, বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

উল্লেখ্য, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে পিরোজপুরে ৪ হাজারেরও বেশি ঘরবাড়ি, প্রায় ৫০ হাজার কৃষকের প্রায় সাড়ে ৩ হাজার হেক্টর জমির ফসল এবং দেড় শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এছাড়া উপড়ে ও ভেঙে গেছে ৫ লক্ষাধিক গাছপালা। 

বিডি প্রতিদিন/মজুমদার

 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর