শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৫ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ মার্চ, ২০১৯ ২২:২০

ক্যাম্পাসে এখনো উত্তাপ

অনশন রাজু ভাস্কর্যের সামনে, স্থগিত রোকেয়া হলের, আলটিমেটাম লাঞ্ছনার অভিযোগ, প্রভোস্টকে পদত্যাগ করতে হবে : নুর, ব্যাখ্যা দিলেন প্রভোস্ট জিনাত, কাল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ডাকসু নেতাদের সাক্ষাৎ

নিজস্ব ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

ক্যাম্পাসে এখনো উত্তাপ

ডাকসু নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এখনো উত্তাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ও হল সংসদের নির্বাচনের জালিয়াতির অভিযোগ তুলে ফল বাতিল ও পুনঃতফসিলের দাবিতে আন্দোলন ধীরে ধীরে বড় আকার ধারণ করছে। আমরণ অনশনে নেমেছে শিক্ষার্থীরা। এর মধ্যে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অনশনের তৃতীয় দিন পার হয়েছে গতকাল। রোকেয়া হলের গেটে বসা  পাঁচজন ছাত্রী গত রাতে অনশন স্থগিত করেছেন। তারা দাবি মেনে নেওয়ার জন্য ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়েছেন। এর আগে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে অনশনকারী এক ছাত্রকে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত অনশনকারীদের দাবির প্রতি কোনো সাড়া দেয়নি। এমনকি তাদের কোনো খোঁজখবরও নেয়নি। তারপরও অনশনে থাকা শিক্ষার্থীদের দুটি দলই বলেছেন, দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত তাদের অনশন চলবে। অন্যদিকে, ভোট বর্জন করা প্যানেলগুলোর আলটিমেটাম আগামীকাল শনিবার শেষ হচ্ছে। কিন্তু এতে গা করছে না বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। উল্টো নির্বাচিতদের দায়িত্বগ্রহণের আনুষ্ঠানিকতা সারার ঘোষণা দিয়েছেন উপাচার্য। তবে দায়িত্ব নেওয়ার প্রশ্নে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মনোভাবকে গুরুত্ব দেওয়ার কথা জানিয়ে ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুর। তিনি বলেছেন, আমি শিক্ষার্থীদের মনোভাব বোঝার চেষ্টা করছি। চলমান আন্দোলনে একাত্মতাও প্রকাশ করেছেন তিনি। নির্বাচিত ভিপি হিসেবে নির্বাচনে ‘অনিয়ম ও কারচুপির’ বিরুদ্ধে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার কথাও বলেছেন নুরুল হক নুর। এদিকে ডাকসু নেতাদের গণভবনে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামীকাল এই সাক্ষাৎ হওয়ার কথা রয়েছে। জানা যায়, সোমবার অনুষ্ঠিত ডাকসু ও হল সংসদের ভোটগ্রহণের পরদিন মঙ্গলবার রাতে নতুন ভোটের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি রাজু ভাস্কর্যের নিচে অনশন শুরু করেন চার শিক্ষার্থী। তারা হলেন- ভূতত্ত্ব বিভাগের আল মাহমুদ ত্বাহা, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শোয়েব মাহমুদ, পপুলেশন সায়েন্সের দ্বিতীয় বর্ষের মাঈন উদ্দীন, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তাওহীদ তানজিম এবং গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের রাফিয়া তামান্না। তাওহীদ ডাকসুর পরিবহন সম্পাদক পদে এবং অনিন্দ্য, শোয়েব ও মাঈন উদ্দিন হল সংসদের বিভিন্ন পদে প্রার্থী ছিলেন। এর মধ্যে অনিন্দ্য অসুস্থ হয়ে পড়লে বুধবার তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। অনশনরত রাফিয়া তামান্না বলেন, ‘আমাদের শরীরে যতক্ষণ শক্তি আছে ততক্ষণ অনশন চলবে।’ রাজু ভাস্কর্যের বিপরীত দিকে রোকেয়া হলের গেটে রোকেয়া হল সংসদ নির্বাচন বাতিল করে পুনরায় নির্বাচন এবং হল প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগসহ চার দফা দাবিতে বুধবার রাত ৯টার দিকে অনশনে বসেন পাঁচ ছাত্রী। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রোকেয়া হলের গেটের সামনে চাদর পেতে বসে আছেন পাঁচ শিক্ষার্থী। তাদের পাশে একটি প্ল্যাকার্ডে লেখা তাদের ‘চার দফা, ১. প্রভোস্টের পদত্যাগ, ২. মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, ২. পুনর্নির্বাচন ৪. আন্দোলনকারীদের নিরাপত্তা’। মধ্যরাতে হেনস্তা : রোকেয়া হলের সামনে অনশনরত পাঁচ ছাত্রী ও তাঁদের সমর্থনকারী ওই হলের ছাত্রীদের হেনস্তার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর বিরুদ্ধে। রোকেয়া হলে ভিপি প্রার্থী মৌসুমি অভিযোগ করেন, রাত প্রায় ২টার দিকে গোলাম রাব্বানীর নেতৃত্বে তার প্রায় দুইশ নেতা-কর্মী মোটরসাইকেলে করে হলের সামনে আসে। তিনি এসে অনশনরত ছাত্রী ও হলগেটে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে লিঙ্গ সংবেদনশীল নানা উক্তি করেন।

রোকেয়া হলের প্রভোস্টের সংবাদ সম্মেলন : হল সংসদ নির্বাচন বাতিল করে পুনর্নির্বাচন ও প্রভোস্টের পদত্যাগের দাবিতে রোকেয়া হলের পাঁচ ছাত্রী অনশন চালিয়ে যাওয়ার মাঝে সংবাদ সম্মেলন করে হল প্রাধ্যক্ষ জিনাত হুদা বলেন, নির্বাচনের দিন সকালের ঘটনা নিছকই ভুল বোঝাবুঝি। সেই সঙ্গে নতুন করে নির্বাচন দেওয়ার এখতিয়ার তার নেই। গতকাল দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন, আমি কোনো মামলা করিনি। শাহবাগ থানায় দায়ের করা মামলাটি প্রত্যাহারে কোনো সহযোগিতা করবেন কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ছাত্রীদের আমার কাছে তো আসতে হবে। অনশনরত ছাত্রীদের সঙ্গে দেখা করেননি কেন, জানতে চাইলে প্রাধ্যক্ষ বলেন, আমি ওদের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছি। ওদের কথা বলার জন্য ডেকেছিও। কিন্তু ওরা কথা বলতে আসেনি।


আপনার মন্তব্য