শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২৩:৩৮

শীতে উত্তরের জনজীবন বিপর্যস্ত

তেঁতুলিয়ায় ৫.৭ তাপমাত্রা

নিজস্ব প্রতিবেদক

শীতে উত্তরের জনজীবন বিপর্যস্ত

উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় গতকালও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। সেখানে তাপমাত্রা ছিল ৫ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়া অধিদফতরের আবহাওয়াবিদ এ কে এম নাজমুল হক জানান, গতকাল রাজধানী ঢাকা, ফরিদপুর, সাতক্ষীরা, চুয়াডাঙ্গা ও মোংলায় সামান্য পরিমাণে এবং যশোরে ৫ মিলিমিটার ও গোপালগঞ্জে ১ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। অধিদফতরের আগামী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও ঢাকা বিভাগের দু-এক জায়গায় হালকা বৃষ্টি অথবা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে। অন্যত্র আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারা দেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। দেশের উত্তরাঞ্চলে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকবে এবং অন্যত্র সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে। দিনের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে। ঘন কুয়াশার কারণে রাজশাহীর হজরত শাহ মখদুম বিমানবন্দরে গতকাল নামতে পারেনি ইউএস-বাংলার একটি ফ্লাইট। সকাল ১০টায় ফ্লাইটটি অবতরণের কথা ছিল। কিন্তু রাজশাহীর আকাশে কয়েকবার চক্কর দিয়েও নামতে পারেনি। ওই ফ্লাইটে যাত্রীদের মধ্যে ছিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমও। তিনি তার ফেসবুকে লিখেছেন- ‘চারবার চেষ্টা করে রাজশাহীতে অবতরণ করতে না পেরে ঢাকায় ফেরত এসেছি।’ বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক সেতাফুর রহমান জানান, ইউএস-বাংলার বি-স্টার-১৬১৬ ফ্লাইটটির অবতরণের নির্ধারিত সময় ছিল সকাল ১০টা। কিন্তু ভোর থেকেই ঘন কুয়াশায় ঢাকা পড়ে আকাশ। এরই মধ্যে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিমানটি উড়াল দিয়ে রাজশাহীতে পৌঁছে। কুয়াশার কারণে অবতরণের সুযোগ পায়নি। শৈত্যপ্রবাহে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় জনজীবন বিপর্যস্ত। দিনের তুলনায় রাতে শীতের তীব্রতা বাড়তে থাকে। ঘন কুয়াশায় আবৃত থাকছে চারদিক। হিমেল বাতাসে হাড়কাঁপানো শীত অনুভূত হচ্ছে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে জেলার দরিদ্র এবং ছিন্নমূল মানুষ। শীতবস্ত্রের অভাবে অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। এদিকে ছিন্নমূল মানুষের অভিযোগ, তাদের খবর নিচ্ছেন না কেউই। কনকনে শীত আর ঘন কুয়াশায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে নানান রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন নীলফামারীর বিভিন্ন বয়সী মানুষ। এর মধ্যে ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্ট রোগীর সংখ্যাই বেশি। গতকাল জেলায় সর্বনিম্ন ৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অধিদফতর। ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়েছে ঠাকুরগাঁও। ঢাকা থেকে ঠাকুরগাঁও আসতে দূরপাল্লার বাসে সাধারণত সাত থেকে আট ঘণ্টা সময় লাগলেও ঘন কুয়াশার কারণে ১৪ থেকে ১৫ ঘণ্টা সময় লাগছে। ঠা াজনিত কারণে ১০১ জন শিশু হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে গত দুই দিনে। কনকনে শীত আর হিমেল হাওয়ায় কাহিল হয়ে পড়েছে দিনাজপুরসহ উত্তরাঞ্চলের মানুষের পাশাপাশি গবাদিপশুও। গবাদিপশু নিয়ে বিপাকে পড়েছেন খামারিসহ কৃষকরা। রাজবাড়ীতে শৈত্যপ্রবাহ আর ঘন কুয়াশার কারণে প্রায় ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে সংযোজিত ফগ অ্যান্ড সার্চলাইট কোনো কাজে আসছে না। ঘন কুয়াশায় প্রতিনিয়ত দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে নৌযান চলাচল বন্ধ রাখতে হচ্ছে। গত ৫ দিনে ৩২ ঘণ্টা ফেরি চলাচল বন্ধ রাখতে হয়। এতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয় চালক ও যাত্রীদের। শৈত্যপ্রবাহ আর হাড়-কাঁপুনি শীতে কাঁপছে দেশের বিভিন্ন জেলা। এতে বেশি দুর্ভোগে পড়েছে ছিন্নমূল মানুষ। জেঁকে বসা শীতে চরম বিপাকে পড়েছে শিশু ও বয়স্করা। আবার শীতজনিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে তারা। হিমেল হাওয়ায় নাকাল হয়ে পড়েছে দিনমজুর ও খেটে খাওয়া মানুষ। শীত আর কুয়াশা ছন্দপতন ঘটিয়েছে সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রায়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর