রবিবার, ৮ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা

কষ্টার্জিত জয় অস্ট্রেলিয়ার

কমাল সিরিজে ব্যবধান

ক্রীড়া প্রতিবেদক

কষ্টার্জিত জয় অস্ট্রেলিয়ার

বাংলাদেশ ব্যটিংয়ে গতকাল ছিল নি®প্রভ -রোহেত রাজীব

প্রথমবারের মতো টি-২০ সিরিজ জিতে ইতিহাস লিখেছে বাংলাদেশ। স্বপ্ন দেখছিল হোয়াইটওয়াশের। সে স্বপ্ন নিয়েই গতকাল টাইগাররা পাঁচ ম্যাচ সিরিজের চতুর্থটি খেলতে নামেন মাহমুদুল্লাহর নেতৃত্বে। কিন্তু স্বপ্ন পূরণ হয়নি। হোয়াইটওয়াশের স্বপ্ন জলাঞ্জলি দিতে হয়েছে ড্যান ক্রিশ্চিয়ানের আগ্রাসী ১৫ বলে ৩৯ রানের ইনিংসে। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিবের ১ ওভারে ক্রিশ্চিয়ান ৫ ছক্কায় ৩০ রান তুললে ৩ উইকেটে ম্যাচ জিতে সিরিজের ব্যবধান ৩-১ করে ম্যাথু ওয়েডের অস্ট্রেলিয়া। তখনো ম্যাচের বাকি ছিল ১ ওভার। আগামীকাল সিরিজের পঞ্চম ও শেষ ম্যাচ। টানা তিন ম্যাচ জিতে সিরিজ নিশ্চিত করে ইতিহাস লিখে ফেলেছেন টাইগাররা। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথমবারের মতো টি-২০ সিরিজ জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে গতকাল চতুর্থটি খেলতে নামেন। কিন্তু সফরকারী  বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের বিপক্ষে সাবলীল ছিলেন না টাইগাররা। সিরিজে সর্বনিম্ন স্কোর করেন ম্যাচটিতে। ২০ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ছিল ৯ উইকেটে ১০৪ রান। সিরিজে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ স্কোর ১৩১ রান। মাহমুদুল্লাহ বাহিনীকে গতকাল আটকে রাখেন দুই অসি বোলার মিচেল স্বেপসন ও অ্যান্ড্রু টাই। এক ম্যাচের বিরতি দিয়ে খেলতে নেমে ফাস্ট বোলার টাই নেন ৩ উইকেট। এ ছাড়া সিরিজে প্রথমবারের মতো খেলতে নামা লেগ স্পিনার স্বেপসনও নেন ৩ উইকেট। টাই ৪ ওভারে খরচ করেন ১৮ রান। লেগ স্পিনার স্বেপসন মিতব্যয়ী ছিলেন। তিনি ৪ ওভারে মাত্র ১২ রান দিয়ে নেন ৩ উইকেট। অথচ আগের ম্যাচে হ্যাটট্রিক করে ইতিহাসের পাতায় ঠাঁই নেওয়া নাথান এলিসকে গতকাল সাজঘরে বসে থাকতে হয়েছে। সফরকারী বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের বিপক্ষে স্বাগতিকদের পক্ষে সর্বোচ্চ ২৮ রান করেন বাঁ হাতি ওপেনার মোহাম্মদ নাইম। ৩৬ বলের ইনিংসে ছিল ২টি চার। ব্যর্থ হয়েছেন তার সতীর্থ সৌম্য সরকারও। চার ম্যাচে একবারও ২ অঙ্কের রান করতে পারেননি সৌম্য। সর্বোচ্চ ৮সহ চার ম্যাচে তার রান ১২। সাকিব ১৫ রান করেন ২৬ বলে, ধারাবাহিক আফিফ ২০ রান করেন ১৭ বলে এবং শেষ দিকে মেহেদি ১৬ বলে ১ চার ও ১ ছক্কায় ২৩ রান করলে শয়ের ঘর পেরিয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১০৪ রান।

টার্গেট ১০৫ রান। প্রথম ওভারেই আঘাত হানেন অফ স্পিনার মেহেদি। অসি অধিনায়ক ওয়েডকে সাজঘরে ফেরত পাঠিয়ে ম্যাচে উত্তেজনার সৃষ্টি করেন। কিন্তু হঠাৎ করে ইনিংসের চতুর্থ ওভারে আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠেন অসি অলরাউন্ডার ড্যান ক্রিশ্চিয়ান। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিবের ওভারে ৫ ছক্কায় ৩০ রান তুলে নেন। ওভারের ৪ নম্বর বলটি ছিল ডট। প্রথম ৩ বলে টানা ৩ ছক্কা এবং শেষ ২ বলে ফের ২ ছক্কা। অথচ প্রথম ওভারে সাকিব ৫ রান দিয়েছিলেন। পরের ওভারে ক্রিশ্চিয়ানকে আউট করলে ম্যাচে ফেরে বাংলাদেশ। ক্রিশ্চিয়ান ৩৯ রান করেন মাত্র ১৫ বলে ১ চার ও ৫ ছক্কায়। আগের তিন ম্যাচের মতো গতকালও দুর্দান্ত ছিলেন মুস্তাফিজ। ৪ ওভারে ৯ রানের খরচে তুলে নেন ২ উইকেট। ১ ওভার হাতে রেখে অস্ট্রেলিয়া টার্গেট ১০৫ রান তোলে ৭ উইকেট হারিয়ে।