শিরোনাম
বুধবার, ২২ জুন, ২০২২ ০০:০০ টা

ব্যবসা-বাণিজ্যে অসমতা

বিশেষ প্রতিনিধি

ব্যবসা-বাণিজ্যে অসমতা

২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে সামগ্রিক শিল্প-বাণিজ্য খাতে সব শুল্ক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হওয়ায় ব্যবসা-বাণিজ্যে অসমতা দেখা দিয়েছে বলে মনে করেন এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন। তিনি বলেছেন, আগামী অর্থবছর থেকে জাতীয় স্বার্থে শুল্ক ও কর ব্যবস্থাকে বিনিয়োগবান্ধব এবং যুগোপযোগী করা, ব্যক্তি পর্যায়ে করমুক্ত আয় বৃদ্ধি, ল্যাপটপ ও লিফট আমদানিতে নতুন করে আরোপিত কর প্রত্যাহার, বিদেশে থাকা সম্পদ দেশে আনার জন্য সংশ্লিষ্ট দেশের কর প্রদানের সনদ প্রদর্শন করতে হবে। গতকাল সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সঙ্গে বৈঠকে এসব দাবি তুলে ধরেন এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, এনবিআরের চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম, এফবিসিসিআইর সিনিয়র সহসভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, সহসভাপতি এম এ মোমেন, আমিন হিলালী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে মোট বার্ষিক আয়ের ২০ শতাংশ পর্যন্ত বিনিয়োগ ও অনুদানের ক্ষেত্রে ১৫ শতাংশ কর রেয়াতের প্রস্তাব করা হয়েছে। কর ছাড়ের বিধানে এ পরিবর্তনের ফলে তুলনামূলক কম আয়ের করদাতাদের কর ছাড় পাওয়ার পরিমাণ কমে যাবে ও বিপরীতে বড় করদাতাদের ছাড়ের পরিমাণ বাড়বে। এতে ছোটদের তুলনায় বড়রা বেশি সুবিধা পাবেন। আগের মতো স্লাবভিত্তিক সুবিধা বহাল রাখা প্রয়োজন। ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বেতনবহির্ভূত অন্যান্য ভাতার করমুক্ত সীমা ৫ লাখ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ১০ লাখ টাকার প্রস্তাব দিয়েছেন তারা। এতে দরিদ্র মানুষের সম্পর্ক না থাকায় উচ্চ-মধ্যবিত্তরা উপকৃত হবেন। বিষয়টি পুনর্বিবেচনার প্রস্তাব করেছেন তিনি। তিনি আরও বলেন, ইউরিয়া রেজিনের শুল্কহার ১৫ শতাংশ থেকে হ্রাস করে ৫ শতাংশ নির্ধারণ, ইন্সুলেটিং বার্নিশ ফর কপার ওয়্যারের শুল্কহার ২৫ শতাংশ থেকে হ্রাস করে ১০ শতাংশ, অ্যালুমিনিয়াম শিটের শুল্কহার ১০ শতাংশ থেকে  হ্রাস করে ৫ শতাংশ নির্ধারণের প্রস্তাব করা হয়েছে। টেক্সটাইল শিল্পের জন্য আমদানিকৃত যন্ত্রপাতি, যন্ত্রাংশ, উপকরণ ইত্যাদির ওপর থেকে আমদানি শুল্ক, মূসক, সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতির সুবিধায় প্লাস্টিক সেক্টরের  যন্ত্রপাতি ও উপকরণের তালিকা অন্তর্ভুক্তকরণের প্রস্তাব করেছেন। ২০২৩ সালের প্রথম দিন থেকে সফটওয়্যার ভিত্তিক অটোমেটেড পদ্ধতিতে হিসাব-নিকাশ সংরক্ষণ করার নির্দেশনা দিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড। অন্যথায় ওই প্রতিষ্ঠানের কেন্দ্রীয় নিবন্ধন বাতিল হবে এবং সংশ্লিষ্ট কমিশনারেট থেকে নতুন নিবন্ধন গ্রহণ করতে হবে। ছয় মাস সময়ের মধ্যে এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা এবং কেন্দ্রীয় নিবন্ধন বাতিল এবং সংশ্লিষ্ট কমিশনারেট থেকে নতুন নিবন্ধন গ্রহণ করতে অনেক প্রতিষ্ঠানই চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হবে।

সফটওয়্যার ভিত্তিক অটোমেটেড পদ্ধতিতে হিসাব-নিকাশ সংরক্ষণের সময় বৃদ্ধি করে ২০২২-২৩ পূর্ণ অর্থবছর পর্যন্ত বিবেচনা করা হোক।

জসিম উদ্দিন বলেন, জীবনযাত্রার ব্যয়, মুদ্রাস্ফীতি এবং সামগ্রিক অর্থনৈতিক অবস্থা বিবেচনায় এনে ব্যক্তি শ্রেণির করমুক্ত আয় ৩ লাখ থেকে বৃদ্ধি করে ৪ লাখ টাকার প্রস্তাব করেছিলাম। মূল্যস্ফীতি বিবেচনায় করমুক্ত আয়সীমা বৃদ্ধির প্রস্তাবটি পুনর্বিবেচনার অনুরোধ করেছি। কারণ ভারতে করমুক্ত আয় ৫ লাখ রুপি। বিনিয়োগ আকর্ষণ এবং শিল্পায়নের স্বার্থে শিল্পের মৌলিক কাঁচামালের ওপর থেকে অগ্রীম আয়কর সম্পূর্ণ প্রত্যাহার, রপ্তানি থেকে প্রাপ্ত অর্থের ওপর উৎসে আয়কর আগের মতো দশমিক ৫০ শতাংশ ধার্য করার প্রস্তাব করেছেন জসিম উদ্দিন।

এই রকম আরও টপিক

সর্বশেষ খবর