শিরোনাম
শুক্রবার, ৪ নভেম্বর, ২০২২ ০০:০০ টা

দেশে খরচ-ভোগান্তি দুটোই বেশি

---------- ড. সৈয়দ আবদুল হামিদ

দেশে খরচ-ভোগান্তি দুটোই বেশি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. সৈয়দ আবদুল হামিদ বলেছেন, ‘দেশের স্বাস্থ্যব্যবস্থায় আস্থার সংকট আছে। এখানে চিকিৎসার খরচ বেশি। চিকিৎসা নিতে গিয়ে দুর্ভোগের শিকার হতে হয় রোগীদের। চিকিৎসা সবই ঢাকাকেন্দ্রিক। এসব কারণ রোগীদের বিদেশে চিকিৎসা নিতে যাওয়ার প্রবণতা তৈরি করছে।’ গতকাল বাংলাদেশ  প্রতিদিনকে তিনি বলেন, ‘রোগীদের বিদেশমুখী হওয়ার পেছনে আরও কিছু কারণ রয়েছে। দেশের ডায়াগনস্টিকের মান নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। চিকিৎসকরা রোগীদের পর্যাপ্ত সময় দেন না। সরকারি হাসপাতালের অব্যবস্থাপনা, দালাল চক্র, সেবার গুণগত মান নিয়ে প্রশ্ন আছে। এ ছাড়া বিদেশি হাসপাতালের এজেন্টরা ছড়িয়ে পড়েছেন গ্রামেগঞ্জে। তারাও রোগীদের বিদেশে চিকিৎসা নিতে উৎসাহিত করেন। দেশে গুণগত মানের চিকিৎসক আছে। কিন্তু তারা রোগী দেখায় মনোযোগ দেন না। চিকিৎসক, ডায়াগনস্টিক সেন্টারে দৌড়াদৌড়ি করতে গিয়ে রোগীর খরচ বেড়ে যায়। চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে ওষুধ, টেস্ট এগুলো বেশি লেখার অভিযোগ আছে। বিদেশের হাসপাতালে রোগীরা বাজেট খরচে ভোগান্তি ছাড়া সেবা নিতে পারছেন।’ অধ্যাপক ড. সৈয়দ আবদুল হামিদ বলেন, ‘রোগীদের বিদেশ যাওয়া ঠেকাতে সরকারি হাসপাতালে কার্যকর সেবা নিশ্চিত করতে হবে। বেসরকারি হাসপাতালে সেবার দাম ও মান নির্ধারণ করে সেটা টানিয়ে রাখতে হবে। বেসরকারি হাসপাতালগুলোর ক্যাটাগরি অনুযায়ী দাম ঠিক করে দিতে হবে। রোগী তার সামর্থ্য অনুযায়ী সেবা নিতে পারবেন। ডায়াগনস্টিকেও দাম নির্ধারণ করে মান নিশ্চিত করতে হবে। প্রেসক্রিপশন অডিট চালু করতে হবে। সরকারি হাসপাতালে ডায়াগনস্টিক সেবা জোরদার করতে হবে। চিকিৎসায় রেফারেল পদ্ধতি চালু করতে হবে। হাসপাতাল থেকে দালাল ও বিদেশি এজেন্টদের উচ্ছেদ করতে হবে।’

সর্বশেষ খবর