শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৮:২৬
আপডেট : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৯:০৬

পূর্বাচলে বঙ্গবন্ধু ট্রাইটাওয়ারের কার্যক্রমের অগ্রগতি পরিদর্শনে গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

পূর্বাচলে বঙ্গবন্ধু ট্রাইটাওয়ারের কার্যক্রমের অগ্রগতি পরিদর্শনে গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী

রাজধানীর পূর্বাচলে সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিক (সিবিডি) নির্মিত বঙ্গবন্ধু ট্রাইটাওয়ারের কার্যক্রমের অগ্রগতি পরিদর্শন করেছেন গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ।  

বুধবার বঙ্গবন্ধু ট্রাইটাওয়ারের কার্যক্রমের অগ্রগতি পরিদর্শন করেন গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, এটা সত্যিই গর্বের এই আইকনিক টাওয়ারে প্রতিফলিত হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আমাদের ৫২'র ভাষার আন্দোলন, ৭১'র মহান মুক্তিযুদ্ধ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লিগ্যাসি। আমি আনন্দিত শিকদার গ্রুপ ও কাজিমা করপোরেশন অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে এই কাজটি এগিয়ে নিচ্ছে।

শরীফ আহমেদ বলেন, আমি তাদের ধন্যবাদ দিতে চাই তারা প্রস্তাবিত সময়সীমার আগেই কাজ এগিয়ে নিচ্ছে। আমি আশা করবো চলতি বছরে মূল কাজ শুরু করে ২০২৪ সালের মধ্যে যেন দৃশ্যমান অগ্রগতি হয়। 

সিবিডি নির্মিত আইকনিক টাওয়ারে প্রতিফলিত হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আমাদের ভাষা আন্দোলনের স্মৃতিতে ৫২ তলা ভবন, মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিতে গড়ে তোলা হচ্ছে ৭১ তলা ভবন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লিগ্যাসির স্মরণে ৯৬ তলায় মিউজিয়ামসহ গড়ে উঠবে দেশের বৃহত্তম ১১১ তলা ভবন। 

আইকনিক এই তিনটি ভবনের পাশাপাশি এখানে গড়ে উঠবে ৪০ তলার আরও ৪৯টি ভবন। প্রায় ৯৬ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ের এই প্রকল্পের ইতোমধ্যে প্রায় ৬০ হাজার কোটি টাকার বিদেশি বিনিয়োগের সংস্থান করা হয়েছে বলে প্রকল্পের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। 

উল্লেখ্য, পূর্বাচলে সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিক নামে রাজউকের আইকনিক টাওয়ার নির্মাণের কাজটি দরপত্রের মাধ্যমে শিকদার গ্রুপ ও কাজিমা করপোরেশন যৌথভাবে নির্বাচিত হয়। ইতোমধ্যে প্রকল্পের মাটি পরীক্ষা, যানবাহন ব্যবস্থাপনাসহ বিভিন্ন সমীক্ষা প্রতিবেদন রাজউকে জমা দেয়া হয়েছে। 

পূর্বাচলের ১৯ নাম্বার সেক্টরের ১১১ নাম্বার রুডের পাশে প্রকল্পের অস্থায়ী সেডে নির্মিত গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব, রাজউক চেয়ারম্যান, গণপূর্তের প্রধান আর্কিটেক্ট, চীফ ইঞ্জিনিয়ার এবং প্রকল্প পরিচালক উপস্থিত ছিলেন। 

এছাড়াও প্রতিমন্ত্রী সাইট ভিজিট অনুষ্ঠানে পাওয়ার প্যাক হোল্ডিংস ও শিকদার গ্রুপ ছাড়াও এই কাজের সঙ্গে আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান হেরিম, প্লিডাব্লিউসি, আর্কেটাইপ, নর, চায়না পাওয়ার, চায়না এনার্জি এর প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন। 

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর