শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৩ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ অক্টোবর, ২০১৭ ২৩:৫৯

প্রস্তুতি ম্যাচেও হারল মাশরাফিরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক


প্রস্তুতি ম্যাচেও হারল মাশরাফিরা

টেস্টে সিরিজের বিধ্বস্ত মানসিকতা ছেড়ে বেরুতেই পারছে না বাংলাদেশ। ১৫ অক্টোবর শুরু তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। তার আগে ব্লুমফন্টেইনের ম্যানগাউং ওভালে প্রস্তুতিমূলক ওয়ানডে খেলতে নামে মাশরাফি বিন মর্তুজার নেতৃত্বে টাইগাররা। ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সাকিব আল হাসান ও সাব্বির রহমান ভালো খেললেও ব্যর্থ হয়েছেন বাকিদের সবাই। ব্যর্থ হয়েছেন বোলাররাও। ব্যাটসম্যান ও বোলারদের ব্যর্থতায় প্রস্তুতিমূলক একমাত্র ওয়ানডেতে মাশরাফি বাহিনী হেরেছে ৬ উইকেটের বড় ব্যবধানে। এই হার পরিষ্কার করে দিয়েছে ওয়ানডে সিরিজে কঠিন পরীক্ষায় পড়তে হবে বাংলাদেশকে।

টেস্ট সিরিজের শেষ তিন ইনিংসের স্কোর ৯০, ১৪৭ ও ১৭২। তাতেই স্পষ্ট কতটা ব্যর্থ বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। বিশ্রামের জন্য সাকিব খেলেননি টেস্ট সিরিজ। ওয়ানডে সিরিজে নামার আগে প্রস্তুতি ম্যাচে ৬৮ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলেই জানান দিলেন তিনি প্রস্তুত। কিন্তু বাকি ব্যাটসম্যানরা? মানগাউং ওভালের ব্যাটিং স্বর্গ উইকেটে শুধু রান করেছেন সাব্বির। অবশ্য ওপনার ইমরুল কায়েস ও টেস্ট অধিনাযক মুশফিকুর রহিমও রান করার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু পুরোপুরি ব্যর্থ মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, সৌম্য সরকার, লিটন দাস, নাসির হোসেনরা। থাই মাসলের ইনজুরি থেকে পুরোপুরি সুস্থ না হওয়ায় খেলেননি তামিম ইকবাল। সৌম্য টেস্ট সিরিজের ব্যর্থতা ধরে রেখে গতকাল করেছেন ৩, লিটন ৮, ইমরুল চেষ্টা করেছেন ফর্মে ফেরার ২৭ রান করে। মুসফিকের ব্যাট থেকে বেরিয়েছে ২২, মাহমুদুল্লাহ করেছেন ২১, নাসির ১২। মাশরাফি শেষ দিকে ১৩ বলে ১৭ রান করেন। প্রথমবারের মতো খেলতে নামা সাইফুদ্দিন করেন ১৩ রান। সাকিব ৬৮ রানের ইনিংস খেলেন ৬৭ বলে ৯ চারে। সাত নম্বর পজিশনে সাব্বির ৫২ রান করেন ৫৪ বলে ২ চার ও ৩ ছক্কায়। আমন্ত্রিত একাদশের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে টাইগারদের ব্যাটিং ব্যর্থতায় বাংলাদেশ ৪৮.১ ওভারে গুটিয়ে যায় ২৫৫ রানে। মাশরাফি বাহিনীর প্রতিপক্ষ আমন্ত্রিত দক্ষিণ আফ্রিকা একাদশ যথেষ্ট শক্তিশালী। দলটি গড়া হয়েছে আইডেন মারক্রাম, এবি ডি ভিলিয়ার্স, জ্যা ডুমিনি, অ্যারণ ফাঙ্গিসো, জেনড্রিকসদের মতো ক্রিকেটার নিয়ে। ২৫৬ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে দুই স্বাগতিক ওপেনার মারক্রাম ও ম্যাথিউ ব্রিটজে ২৫.৪ ওভারে ১৪৭ রানের ভিত দিয়ে জয়ের পথ সহজ করে দেন। মারক্রাম ব্যক্তিগত ৮২ রানে সাজঘরে ফিরেন নাসিরকে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে। ৭১ রানের ইনিংস খেলা ব্রিটজকে বোল্ড করেন মুর্তুজা। এরপর দলকে জয়ের পথে নিয়ে যান ডুমিনি ও ডি ভিলিয়ার্স।

 


আপনার মন্তব্য