Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ২২:১৯
আপডেট : ২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ২২:২৯

নোবিপ্রবিতে দুই দিনব্যাপী ইন্টারন্যাশনাল সিম্পোজিয়াম

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোবিপ্রবিতে দুই দিনব্যাপী ইন্টারন্যাশনাল সিম্পোজিয়াম

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) দুই দিনব্যাপী  ‘ইন্টারন্যাশনাল সিম্পোজিয়াম অন সাসটেইনএবল অ্যাকুয়াকালচার এন্ড ফিশারিজ ২০১৯’ এর উদ্বোধন হয়েছে। 

বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজী মোহাম্মদ ইদ্রিছ অডিটোরিয়ামে নোবিপ্রবি ফিশারিশ এন্ড মেরিন সায়েন্স বিভাগ এই সিম্পোজিয়ামের আয়োজন করে। উদ্বোধন করেন নোবিপ্রবি উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন নোয়াখালী ৪ আসনের সাংসদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নোবিপ্রবি রিজেন্ট বোর্ড সদস্য একরামুল করিম চৌধুরি।

ফিশারিজ এন্ড মেরিন সায়েন্স বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. জাহাঙ্গীর সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন-জাতীয় মৎস্য বিভাগের ডিরেক্টর জেনারেল আবু সায়েদ মো. রাশেদুল হক, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএফআরআই) এর ডিরেক্টর জেনারেল ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ, বাংলাদেশ এগ্রিকালচার রিসার্চ কাউন্সিল (বিএআরসি) এর এক্সিকিউটিব চেয়ারম্যান ড. কবির একরামুল হক, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের মৎস্য অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. গিয়াস উদ্দিন আহমেদ, ওয়াল্ড ফিস এর সাবেক কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. ক্রেইগ এ মেইজনার। 

অনুষ্ঠানে কি নোট উপস্থাপক ছিলেন জাপানের হিরোশিমা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত জীব বিজ্ঞান অনুষদের অধ্যাপক ড. তামিজি ইয়ামামোতো এবং বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের মৎস্য অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. আবদুল ওহাব। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে মৎস্য শিক্ষা ও গবেষণায় অনন্য অবদানের জন্য অধ্যাপক ড. মো. আবদুল ওহাবকে আজীবন সম্মাননা প্রদান করা হয়। 

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪ জন আমন্ত্রিত বক্তা বিষয়ভিত্তিক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। ২২জন গবেষক তাদের গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এবং ৪৫ জন গবেষক তাদের পোস্টার প্রেজেন্টেশন করে। এই সিম্পোজিয়ামে প্রায় ৪ শত অংশগ্রহণকারী উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে আলোচকগণ এসডিজি লক্ষ্য অর্জনের উদ্দেশ্যে এবং মৎস্য সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহারের উপর জোর দেন। এছাড়া প্রবন্ধসমূহে  ব্লু ইকোনমি, উপকূলীয় মৎস্য চাষ, লবণাক্ত সহিঞ্ষুতা, খাদ্য ও পুষ্টি বিষয়ে প্রবন্ধ উপস্থাপিত হয়।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

 


আপনার মন্তব্য