শিরোনাম
প্রকাশ : ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২০:৫৭
আপডেট : ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২১:১২

জাককানইবিতে র‌্যাগিং: আন্দোলনের মুখে শাস্তি পুনঃবিবেচনায় সিন্ডিকেটে জরুরি সভা

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

জাককানইবিতে র‌্যাগিং: আন্দোলনের মুখে শাস্তি পুনঃবিবেচনায় সিন্ডিকেটে জরুরি সভা

র‌্যাগিং বিরোধী কমিটির তদন্ত নিয়ে প্রশ্ন এবং বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে আমরণ অনশনের ঘোষণা দিয়ে প্রশাসনিক ভবনে তালা দিয়ে আন্দোলন নামে শিক্ষার্থীরা। এদিকে, আগামী সাত দিনের মধ্যে জরুরি সিন্ডিকেট মিটিং বসে আলোচনার আশ্বাস দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাককানইবি) সম্প্রতি র‍্যাগিং ইস্যু নিয়ে ৫ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার আদেশ দিলে র‌্যাগিং বিরোধী কমিটির তদন্ত নিয়ে প্রশ্ন, বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে আমরণ অনশনের ঘোষণা দিয়ে রবিবার সকাল ১০ টা থেকে প্রশাসনিক ভবনে তালা দিয়ে আন্দোলনে নামে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানান, সাজাপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের বহিষ্কারাদেশ আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তুলে না নিলে তারা প্রশাসনিক ভবনে আমরণ অনশনে বসবে।

আন্দোলন চলাকালীন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল হাসান রাকিবের নেতৃত্বে তিন বিভাগ থেকে ছাত্রদের পক্ষ থেকে প্রতিনিধি নিয়ে র‍্যাগিং বিরোধী কমিটির সাথে প্রশাসনিক ভবনে আলোচনায় বসে। 

দীর্ঘ প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন র‍্যাগিং বিরোধী কমিটির আহবায়ক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা শেখ সুজন আলী, প্রক্টর ড. উজ্জ্বল কুমার প্রধান।

পরে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল হাসান রাকিব বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সাথে আলোচনা হয়েছে। আগামী সাত দিনের মাঝে অর্থ্যাৎ আগামী শনিবারের মধ্যে জরুরি সিন্ডিকেট মিটিং এর আহবান করবে প্রশাসন। সিন্ডিকেট মিটিং আগামী রবিবারের মধ্যে যে কোনো দিন বসতে পারে। সিন্ডিকেট মিটিং এ ফলাফল সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষে আসবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
 
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর ড. উজ্জ্বল কুমার প্রধানের সাথে কথা বললে তিনি জানান, বহিষ্কারের আদেশপ্রাপ্ত হওয়া শিক্ষার্থীরা ক্ষমা প্রার্থনা করে সিন্ডিকেট মিটিং এর সভাপতি বরাবর আবেদন করেছে। এর প্রেক্ষিতে আগামী শনিবারের মধ্যে সিন্ডিকেট মিটিং বসবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি র‍্যাগিং এর ঘটনায় ভিকটিমদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে পৃথক পৃথক দুটি ঘটনায় ছয়জনকে অভিযুক্ত করা হয়। পরে ঘটনার আলোকে র‍্যাগিং বিরোধী কমিটি গঠন করা হয়। র‍্যাগিং বিরোধী কমিটির প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয় শৃঙ্খলা বোর্ড কর্তৃক থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রী ফারহানা রহমান লিয়োনাকে র‍্যাগিং এর দায়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী তোয়াবা নুশরাত মিম ও শায়রা তাসনিম আনিকা এবং চারুকলা বিভাগের শিক্ষার্থী মৌমিতা পারভিনকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

পরে উপাচার্যের নির্দেশে এক জরুরি সিন্ডিকেট মিটিং এর ডাক দেয়া হয়। গত বৃহস্পতিবার সিন্ডিকেট মিটিং এর সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী তোয়াবা নুশরাত মীম ও একই বিভাগের শায়রা তাসনিম আনিকাকে এক শিক্ষাবর্ষের ( দুই সেমিস্টার) জন্য বহিষ্কার করা হয় ও মৌমিতা পারভিনকে মুচলেকা দিয়ে সতর্ক করা হয়। র‍্যাগিয়ের অপর ঘটনায় স্থানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের জাকির হোসেনকে তিন শিক্ষাবর্ষের জন্য, একই বিভাগের তানবীরুল ইসলামকে দুই শিক্ষাবর্ষের জন্য এবং ইইই বিভাগের মেহেদী হাসানকে দুই শিক্ষাবর্ষের জন্য বহিষ্কার করা হয়।


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর