রবিবার, ২২ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা

আপত্তিকর ছবি তুলে অর্থ আদায়, স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

স্বামী-স্ত্রী মিলে মানুষের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৈরি করে বাড়িতে আটকে রেখে আপত্তিকর ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে অর্থ আদায় করতেন। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের হাতে ধরা পড়েন তারা। শুক্রবার বিকালে মেট্রোপলিটন গোয়েন্দা কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে উপ-পুলিশ কমিশনার কাজী মুত্তাকী ইবনু মিনান জানান, দিনাজপুরের একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সেবিকা পরিচয়ে এক স্কুলশিক্ষকের সঙ্গে পরিচিত হন দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার বাসিন্দা প্রতারক শাহিনা বেগম। এরপর ওই স্কুলশিক্ষককে ১১ আগস্ট ডাক্তার দেখানোর নাম করে রংপুরে নিয়ে আসেন। এরপর ডাক্তার চেম্বারে দেরি করে আসবেন বলে হোটেলে খাওয়া-দাওয়ার পর পাশেই কটকিপাড়ায় ভাবীর বাড়ি আছে বলে ওই শিক্ষককে সেখানে নিয়ে যান। বাসায় প্রবেশ করে ওই শিক্ষক দেখেন বাড়িতে আরও দুজন মহিলা। বাড়িতে অবস্থানের ১০-১৫ মিনিটের মধ্যে মমিনসহ (২৪) অজ্ঞাত আরও দুজন এসে রুমের দরজায় জোরে ধাক্কা দেয় এবং ওই শিক্ষককে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে।

এরপর অজ্ঞাত যুবকরা ওই শিক্ষককে জোর করে খাটে বসিয়ে দুই নারীকে পাশে রেখে ছবি তোলে। এ সময় শাহিনা ওই শিক্ষকের কাছে ৫ লাখ টাকা দাবি করেন এবং টাকা না দিলে ছবিগুলো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে তার সম্মানহানির হুমকি দেন। ওই শিক্ষক লজ্জা ও ভয়ে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে শাহিনাকে ৩৫ হাজার টাকা দেন। এরপর ১৯ আগস্ট মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা শাখায় অভিযোগ দেন। শুক্রবার মধ্যরাতে মহানগরের কটকিপাড়া থেকে প্রতারক শাহিনা ও তার স্বামী মমিনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সর্বশেষ খবর