শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৯ মে, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৮ মে, ২০২০ ২২:৫৩

বোরো উঠছে গোলায়, আউশ আবাদে ব্যস্ত কৃষক

বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি

বোরো উঠছে গোলায়, আউশ আবাদে ব্যস্ত কৃষক
বিশ্বনাথে বোরো ধান খড়মুক্ত করছেন কৃষাণী (বাঁয়ে)। আউশের বীজ বপন করছেন কৃষক -বাংলাদেশ প্রতিদিন

করোনা সংকটেও থেমে নেই কৃষকের কাজ। প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও চলমান সংকট কাটিয়ে ইতিমধ্যে  বোরো ফসল কাটা শেষ করেছেন সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার কৃষকরা। ফসল গোলায় তুলতে চলছে মাড়াই-ঝাড়াই। কৃষাণিরাও ব্যস্ত সময় পার করছেন ধানের খড়-খুটো পরিষ্কার ও শুকানোর কাজে। অন্যদিকে খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধিতে আউশ আবাদের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন কৃষকরা। ইতিমধ্যেই বীজতলা প্রস্তুত শেষে বীজ বপন ও চারা উৎপাদনে মনোযোগ দিয়েছেন তারা। পাশাপাশি সবজি চাষও শুরু করেছেন কেউ কেউ। কৃষি অফিস সূত্র জানায়, এ বছর উপজেলার ৭৬২ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছিল বোরো ফসল। বাম্পার ফলনও ফসলের। শুরুতে করোনার প্রভাবে শ্রমিক সংকট ও প্রাকৃতিক দুর্যোগের আশঙ্কায় শঙ্কিত ছিলেন কৃষক। এ সংকট কাটিয়ে সম্প্রতি বোরো ধান কাটা শেষে আউশ আবাদের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন কৃষকরা। বীজতলা তৈরি, বীজ বপন ও চারা উৎপাদনে ব্যস্ত সময় কাটছে উপজেলার কৃষকদের। এ বছর আউশ আবাদে ৯১৮৬ হেক্টরের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে মাঠে নেমেছেন তারা। সেই সঙ্গে নানা জাতের সবজিও চাষ করছেন অনেকেই। কৃষকরা জানান, করোনার প্রভাবে এবার বোরো কর্তনে কিছুটা ধীরগতি হলেও আমরা আশানুরূপ ফসল তুলতে পেরেছি। সেই সঙ্গে উপজেলা কৃষি অধিদফতর থেকে প্রাপ্ত প্রণোদনায় আউশ আবাদ এখন আমাদের লক্ষ্য। এ বিষয়ে কথা হলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমজান আলী ‘বাংলাদেশ প্রতিদিন’কে বলেন, বোরো কর্তন শেষ পর্যায়ে। সেই সঙ্গে কৃষি প্রণোদনাসহ ৯১৮৬ হেক্টর জমিতে আউশ আবাদের প্রাথমিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। অব্যাহত আছে সবজি চাষও। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ‘এক ইঞ্চি জমিও যেন অনাবাদি না রাখা হয়’- সে অনুযায়ী মানুষকে উদ্বুদ্ধ করে যাচ্ছি আমরা।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর