শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৪ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩ মার্চ, ২০২০ ২৩:২৭

উত্তেজনার ম্যাচে টাইগারদের ২৫তম সিরিজ জয়

মেজবাহ্-উল-হক, সিলেট থেকে

উত্তেজনার ম্যাচে টাইগারদের ২৫তম সিরিজ জয়

শেষ ওভারে জমে উঠেছিল ম্যাচ। জয়ের জন্য তখন দরকার ছিল ২০ রান। কিন্তু জিম্বাবুয়ে ১৫ রানের বেশি করতে পারেনি। ৪ রানে জিতে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। দ্বিপক্ষীয় ওয়ানডেতে এটি বাংলাদেশের ২৫তম সিরিজ জয়, জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে ১১তম।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গতকাল প্রথমে ব্যাট করে বাংলাদেশ করেছিল ৩২২ রান। জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে এটিও একটি রেকর্ড। আফ্রিকার দলটির বিরুদ্ধে আগের ম্যাচেই ৩২১ রান করেছিল মাশরাফির দল। তবে ৩২৩ রানের পাহাড় টপকাতে  নেমেও জয়ের খুব কাছে চলে গিয়েছিল জিম্বাবুয়ে। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। ৩১৮ রানে আটকে যায় সফরকারীদের ইনিংস। শেষ দুই বলে জয়ের জন্য জিম্বাবুয়ের দরকার ছিল মাত্র ৬ রান। কিন্তু পেসার আল-আমীন ১ রানের বেশি  দেননি। তবে এই পেসার ১০ ওভারে দিয়েছেন মোট ৮৫ রান। গতকাল ১৫৮ রানের ইনিংস খেলে ইতিহাস গড়েছেন তামিম ইকবাল। বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের নতুন রেকর্ড এটি। এর আগের সর্বোচ্চ ১৫৪ রানের রেকর্ডটিও ছিল তামিমের। কাল নিজেকেই নিজে ছাড়িয়ে গেলেন আরেকবার। তামিমের ১৩৬ বলের মহাকাব্যিক ইনিংসে ছিল ২০ চার ও ৩টি ছক্কার মার। কাল ৫০ বলে ৫৫ রানের দারুণ একটি ইনিংস খেলেছেন মুশফিকুর রহিমও। কালকের ম্যাচটি ছিল নাটকীয়তায় ভরা। ৩২৩ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ২২৫ রান করতেই ৭ উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে। তখন মনে হচ্ছিল জয় যেন সময়ের ব্যাপার মাত্র। কিন্তু অষ্টম উইকেট জুটিতে তিরিপানো ও মুতুম্বজি মাত্র ৪৪ বলে ৮০ রানের করে ম্যাচের চিত্র পাল্টে দেয়। তারপর শেষ ওভারের নাটকে জিতে যায় বাংলাদেশ। অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা বলেন, ‘জয় তো জয়ই। তবে শেষ পর্যন্ত আমরা নার্ভ ঠিক রেখেছিলাম। তাই আমাদেরই জয় হয়েছে।’

জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক শন উলিয়ামস বলেন, ‘আমরা জয়ের খুব কাছে গিয়েছিলাম। আমাদের তরুণ শেষ দিকে দারুণ খেলেছেন। এটাই আমাদের জন্য অনেক বড় পাওয়া।’


আপনার মন্তব্য