Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা
আপলোড : ৬ জুন, ২০১৬ ২৩:৩২

মামুনুলরা কী করবে আজ

তাজিকিস্তানের বিপক্ষে ফিরতি লড়াই

ক্রীড়া প্রতিবেদক

মামুনুলরা কী করবে আজ
সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় দলের কোচ লোডডিক ক্রুইফ ও অধিনায়ক মামুনুল ইসলাম —বাংলাদেশ প্রতিদিন

ডি বক্সের লাইন ধরে সাজানো বলগুলো। সেখান থেকে এক এক করে সেট পিস নিচ্ছেন তাজিকিস্তানের একজন ফুটবলার। বলগুলো কখনো সাইড বার ঘেঁষে বাইরে যাচ্ছে। কখনো গোলরক্ষক ফিস্ট করে বাইরে বের করে দিচ্ছেন। আবার কোনটির জায়গা হচ্ছে জালে। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে তাজিক কোচ খাকিম ফুজাইলভ শিষ্যদের সেট পিসই অনুশীলন করাচ্ছিলেন বেশি বেশি করে। কারণ কি? গত দুই ম্যাচের ফলাফলই উজ্জীবিত করেছে মধ্য এশিয়ার দেশটির কোচকে। সর্বশেষ দুই ম্যাচে তাজিকিস্তান গুনে গুনে ১০ গোল দিয়েছে বাংলাদেশের জালে। আজ আবার মুখোমুখি দুই দেশ। এশিয়ান কাপের প্লে-অফের বাছাইপর্বের ফিরতি ম্যাচের ফল কি পুনরাবৃতি হবে, না স্বপ্নের ফেরিওয়ালা লোডডিক ক্রুইফের স্বপ্ন পূরণ হবে? জানতে অপেক্ষা করতে হবে আজ সন্ধ্যা পর্যন্ত। পবিত্র রমজান বলে খেলা শুরু হবে বিকাল সাড়ে ৪টায়। 

বিকালে অনুশীলন করে তাজিকিস্তান। সন্ধ্যার সাঁজের আলোয় করেন মামুনুলরা। মধ্য এশিয়ার দেশটির টার্গেট শতভাগ সাফল্য নিয়ে পরের রাউন্ডে ঠাঁই নেওয়া। স্বাগতিক বাংলাদেশের টার্গেট, অবিশ্বাস্য কিছু করে দেখানো। গত কয়েক বছরের যে পারফরম্যান্স, তাতে কি অবিশ্বাস্য কোনো ফল উপহার পাবেন দেশের ক্রীড়াপ্রেমীরা? বিশেষ করে তাজিকিস্তানের সঙ্গে শেষ দুই ম্যাচে ৫-০, ৫-০ গোলে হারের পর স্বপ্ন দেখা একটু বাড়াবাড়িই বৈকি! দুই দল প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে ৯ বার। তাতে বাংলাদেশের এক জয়ের বিপরীতে তাজিকরা হেসেছে ৬ বার। দুবার ড্র। ২-১ গোলে বাংলাদেশ জিতেছিল ২০১০ সালের ১ ফেব্রুয়ারি। ১-১ গোলে ড্র হয়েছে দুবার। তাজিকিস্তানের জয়ের সর্বোচ্চ ব্যবধান ৬-১। এছাড়াও তিনবার ৫-০ ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ। এমন শক্তিশালী প্রতিপক্ষের বিপক্ষে অভাবনীয় পারফরম্যান্স করতে ‘ম্যাজিক বল’ লাগবে বলেন ক্রুইফ, ‘তাজিকিস্তানের ফুটবলাররা বয়সে তরুণ, গতিশীল। এমন দলের সঙ্গে ভালো ফল পেতে ম্যাজিক বল লাগবে।’ দুশানবেতে বিধ্বস্ত হওয়ার পরও ঢাকায় ইতিবাচক ফলের কথা বলেছিলেন ক্রুইফ। কিন্তু গতকাল ম্যাজিক বলের কথা বলে কি পিছুটান দিলেন? গত এক বছর জাতীয় দলের পারফরম্যান্সের যে গ্রাফ, তাতে আজকের ম্যাচ জেতা কিংবা ড্র- স্বপ্ন দেখারই নামান্তর। সেটা ভালোভাবেই জানেন অধিনায়ক মামুনুল ইসলাম। জানেন বলেই অনুশীলনের আগে হতাশার সুরে বলেন, ‘কি বলব। এক কথা বার বার বলতে ভালো লাগে না।’

বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে ২০১৫ সালের ১৬ জুন ১-১ গোলে ড্র করেছিল বাংলাদেশ। এরপর ফিরতি ম্যাচে ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়। গত ২ জুন পুনরায় এশিয়া কাপের প্লে-অফের বাছাই পর্বে  বিধ্বস্ত হয় ৫-০ গোলে। ৯ ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে তাজিকদের জয় ৬টি এবং গোল ২৬টি। এমন পারফরম্যান্সের পরও বাংলাদেশকে সমীহই করছেন তাজিক কোচ খাকিম ফুজাইলভ, ‘এখানকার  কন্ডিশন একেবারে ভিন্ন। আগের ম্যাচে বড় ব্যবধানে জিতলেই এবার সেটার পুনরাবৃতি হবে বলা যাচ্ছে না। ম্যাচে যে কোনো কিছু ঘটতে পারে। ঘরের মাঠ বলে বাংলাদেশ বাড়তি সুবিধা পাবে। তারপরও আমরা চেষ্টা করব সেরাটা খেলতে এবং এজন্য সিরিয়াস ম্যাচই খেলব।  ফুটবলে যে কোনো কিছুই হতে পারে। তবে আমরা ভালো খেলার চেষ্টা করব।’

ম্যাচ জিতলে পরের রাউন্ডে খেলার সম্ভাবনা থাকবে বাংলাদেশের। এজন্য জিততে ৬ গোলের ব্যবধানে। অবিশ্বাস্যই বটে!


আপনার মন্তব্য