শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৩১ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩১ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০৫

তরুণদের প্রাধান্য দিচ্ছেন কোচ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

তরুণদের প্রাধান্য দিচ্ছেন কোচ

কড়ে আঙ্গুলে গুনলে বাকি মাত্র চার দিন। প্রস্তুতির শেষ পর্যায়ে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম। ঘণ্টার হিসাবে ৯৬ ঘণ্টা পর বঙ্গবন্ধুর সবুজ ঘাসের মাঠে দক্ষিণ এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ, ভারতসহ সাত দল। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপকে সামনে রেখে আগামী পরশু থেকে ঢাকায় পা রাখতে শুরু করবে দলগুলো। যদিও ঢাকায় অবস্থান করছে ‘দ্বীপরাষ্ট্র’ শ্রীলঙ্কা। ফিফা স্বীকৃত একটি আন্তর্জাতিক ম্যাচে স্বাগতিক বাংলাদেশকে হারিয়ে প্রস্তুতিও বেশ ভালোভাবে সেরে নিয়েছে পাকির আলির দল শ্রীলঙ্কা। বসুন্ধরা কিংসের ‘হোম ভেন্যু’ নীলফামারী স্টেডিয়ামে হেরে বাস্তবতার কঠিন জমিনে নেমে এসেছে জেমি ডে-এর বাংলাদেশ। তারপরও ২০০৩ সালের পর সব ব্যর্থতা ঘুচিয়ে দ্বিতীয় শিরোপা জয়ের মিশনে নামবে বাংলাদেশ। স্বপ্ন কি পূরণ হবে?

র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশ ১৯৪। শ্রীলঙ্কা ২০০। অতীত লড়াইয়ের হিসাবেও এগিয়ে বাংলাদেশ। নীলফামারী স্টেডিয়ামে দাপুটে ফুটবল খেলেও জিততে পারেনি জেমি ডে-এর শিষ্যরা। হেরে যাওয়া দলটি কোচ সাজিয়েছিলেন সিনিয়র ও জুনিয়রদের মিশেলে। জাকার্তা এশিয়ান গেমসে দুর্দান্ত খেলা অলিম্পিক দলের মূল একাদশের প্রায় সবাইকে বিশ্রাম দিয়েছিলেন কোচ। অভিজ্ঞতাকে দাম দিয়ে খেলিয়েছেন মামুনুল, ওয়ালি ফয়সাল, নসির, সোহেল রানাদের। কিন্তু গতির কাছে হেরে যাওয়া সিনিয়ররা মন জয় করতে পারেননি কোচের। চালকের আসনে বসে থাকার পরও ম্যাচ জিততে না পারায় হতাশ কোচ, ‘আমরা ম্যাচের নিয়ন্ত্রণে ছিলাম। কিন্তু গোলের সুযোগ তৈরি করতে পারেননি কেউ। সত্যি বলতে নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি। সবচেয়ে বড় বিষয় স্ট্রাইকাররা সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি। এই পজিশনে আমাদের অনেক উন্নতি করতে হবে।’

জাকার্তা গেমসে সুফিল, সাদউদ্দিন, বিপলুদের নিয়ে গড়া দলটি দারুণ ফুটবল খেলেছে। র‌্যাঙ্কিংয়ে ৯৮ এগিয়ে থাকা কাতারকে হারানো ছাড়াও ড্র করে থাইল্যান্ডের সঙ্গে। অলিম্পিক দলে খেলার সুযোগ ছিল না সিনিয়র ফুটবলারের। অনূর্ধ্ব-১৯-এর ৬/৭ ফুটবলারকে নিয়ে গড়া দলটি স্বপ্ন দেখিয়েছে গোটা দেশকে। তাই বসুন্ধরা কিংসের হোম ভেন্যু নীলফামারী স্টেডিয়ামে উপচে পড়েছিল দর্শক। কিন্তু মন ভরাতে পারেনি সিনিয়ররা। তাই সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে তরুণদের উপরই আস্থা রাখতে পারেন কোচ জেমি ডে। দলের সহকারী কোচ মাহাবুব হোসেন রক্সির ধারণা এমনই, ‘সিনিয়র ফুটবলারদের জাকার্তায় খেলানোর সুযোগ পাননি কোচ। তাই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলিয়েছেন। তিনি খুব কাছ থেকে দলের সব ফুটবলারদের পারফরম্যান্স দেখেছেন। স্কোয়াড কেমন হবে, সেটা তিনি ভালো বুঝবেন। তবে জাকার্তা গেমস খেলা ফুটবলারদের পারফরম্যান্সে তিনি সন্তুষ্ট। তাদের প্রাধান্যই বেশি থাকবে বলে মনে করি।’ আজ অনুশীলন আছে জাতীয় দলের। এরপরই সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ২৩ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করার কথা। ২০০৩ সালে প্রথমবারের মতো সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের আয়োজন করেছিল বাংলাদেশ। সেবারই চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল এবং এটাই এখন পর্যন্ত একমাত্র শিরোপা।

জাকার্তা গেমসে সুফিলদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে ফুটবলপ্রেমীরা সবাই স্বপ্ন দেখছেন দ্বিতীয়বারের মতো উৎসবে মাততে। কিন্তু সেটা কি সম্ভব? সাত বারে শিরোপাজয়ী ভারত বরাবরের মতোই ফেবারিট। তার উপর রয়েছে মালদ্বীপ ও নেপালের মতো দল। এসব দলকে পেছনে ফেলে শিরোপা সেরাটাই খেলতে হবে জেমি ডে-এর দলকে। কিন্তু সিনিয়র ও জুনিয়রদের মিশেলের দলের পক্ষে সেটা কি সম্ভব? না, নতুন দায়িত্ব পাওয়া কোচ ডে আস্থা রাখবেন জুনিয়রদের উপর। জুনিয়রদের উপর আস্থা রেখে বৈতরণী পার হওয়া কি সম্ভব? অবশ্য জাকার্তা গেমসে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত একটানা ফুটবল খেলে সুফিলরা আত্মবিশ্বাসী করেছেন কোচকে। এখন শুধু অপেক্ষা।


আপনার মন্তব্য