শিরোনাম
প্রকাশ : ২০ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৮:৫২
আপডেট : ২০ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৯:১৭

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ

পূর্ণ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ল শেখ রাসেল

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

পূর্ণ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ল শেখ রাসেল

শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলছে মৌসুমের বিগ বাজেটের দল শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। মাত্র তিন মিনিটে উজবেকিস্তানের আক্রমণভাগের খেলোয়াড় আজিজোভ আলিসের ভলি করা বলটি ঢুকে পড়ে আরামবাগের জালে। গোল উৎসবে মাতে সাইফুল বারীর শিষ্যরা। তবে গোলের বলটি বানিয়ে দেন নাইজেরিয়ান ফরওয়ার্ডার রাফায়েল। এজন্য অবশ্য ম্যাচ শেষে সাংবাদিকদের কাছে কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেন আলিসের। 
আর ম্যাচ পরবর্তী সাংবাদিক সম্মেলনে কোচ সাইফুল বারী টিটু তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলেন। তবে প্রতিপক্ষকে হালকাভাবে দেখেননি টিটু। বলেন, ম্যাচটা খুব কঠিন ছিল। আরেকটা গোল দিতে পারলে নিশ্চিন্ত থাকতাম। সামনের ম্যাচগুলোতেও জয়ের ব্যাপারী আশাবাদী।
খেলার শুরু থেকেই মাঠ দাপিয়ে বেড়ায় আশরাফুল ইসলাম রানারা। তবে সবচেয়ে নান্দনিক ফুটবল উপহার দিয়েছে আলিসেন। নাইজেরিয়ান এই মিডফিল্ডার খুব ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছিলেন মাঝে মধ্যেই। এলেক্স রাফায়েলও চমৎকার খেলেছেন। তবে কোনো গোলের দেখা পাননি এই ব্রাজিলিয়ান ফরওয়ার্ডার। আর ন্যাশনাল টিমের এক নম্বর গোলকিপার রানার কিপিং ছিল অনবদ্য।
ম্যাচের ১৭ মিনিটেই আরো একটি গোল ঝুলিতে ভরতে পারতো শেখ রাসেল। বিপ্লু আহমেদের চমৎকার একটি ক্রস রাফায়েল বক্সের ভেতর থেকে হেড করে। কিন্তু আরামবাগের গোলরক্ষকের চোখ ফাঁকি দিতে পারেনি বলটি। ৫৭ মিনিটেও বক্সের বাইরে থেকে রাফায়েল জোরালো একটি শট নেয়। কিন্তু ব্যবধান বাড়াতে পারেননি। 
তবে ম্যাচের সবচেয়ে বড় আকর্ষণ ছিল দ্বিতীয়ার্ধের ৭০ মিনিট। এলেক্স এর বদলী হিসেবে মাঠে নামেন মিড ফিল্ডার সোহেল রানা। গেল নভেম্বরে সড়ক দুর্ঘটনায় স্ত্রী সন্তানকে হারানোর পর সোহেল রানার এটিই প্রথম ম্যাচ। সোহেল রানা যখন মাঠের প্রবেশ করছিলেন তখন সতীর্থ থেকে শুরু করে সবাই উৎসাহ দিচ্ছিলেন। মিডিয়া বক্সেও ছিল রানাকে নিয়ে বেশ আলোচনা। মাঠেও দেখা মেলে স্বভাব সুলভ খেলা।
গতিময় শেখ রাসেল ৮১ মিনিটে আবারো সুযোগ পেয়েছিল। ডিফেন্ডার খালেকুজ্জামানের জোরালো শটটি আরামবাগের গোলরক্ষক হিমেলের গ্রিপ থেকে বের হয়ে যায়। সামনে দাঁড়ানো এলেক্স রাফায়েলও সুযোগটি নিতে পারেনি। নয়তো ২-০ নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারতো শেখ রাসেল।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দিন

 


আপনার মন্তব্য