শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:৩৮

আইন প্রয়োগ ও সংশোধনে চসিক পরামর্শক কমিটির পরামর্শ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

আইন প্রয়োগ ও সংশোধনে চসিক পরামর্শক কমিটির পরামর্শ

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) আয় বাড়াতে আইনের প্রয়োগ এবং সিটি করপোরেশন আইন সংশোধনের পরামর্শ দিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের উন্নয়নে গঠিত পরামর্শক কমিটি। আয়বর্ধক প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়নেও গুরুত্ব দিয়েছেন সদ্য গঠিত চসিক পরামর্শক কমিটির সদস্যরা। 

শনিবার টাইগারপাস চসিক ভবনে আয়োজিত কমিটির সভায় সদস্যরা এই পরামর্শ দেন বলে জানিয়েছেন চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন।

খোরশেদ আলম সুজন বলেন, প্রধানমন্ত্রী বিনিয়োগের সুবিধার জন্য কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল করছেন। চট্টগ্রাম থেকে ঘুনধুম পর্যন্ত রেললাইন যাচ্ছে। এটা পরবর্তীতে মায়ানমার হয়ে চায়নার সঙ্গে যুক্ত হবে। তখন দেশের অর্থনীতির বিশাল স্বর্ণদুয়ার খুলে যাবে। বে-টার্মিনাল চালু হলে ভারত, নেপাল, ভুটান, তিব্বত প্রভৃতি দেশ মাল্টিলেবেল কানেক্টিভিটির মাধ্যমে বন্দরকে ব্যবহার করতে পারবে।

চসিক প্রশাসক বলেন, একটি টেকসই অর্থনীতির জন্য উৎপাদনশীল বন্দর প্রয়োজন। আর উৎপাদনশীল বন্দরের জন্য একটি সচল শহর দরকার। শহর সচল না থাকলে বন্দর কিভাবে চলবে? প্রতিদিন কাস্টম থেকে প্রচুর অর্থ নিয়ে যাচ্ছে এনবিআর। সেখান থেকে করপোরেশনকে কেন এক শতাংশ দিবে না? বলেন চসিক প্রশাসক।

সভায় উপস্থিত ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, সাবেক চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, সাবেক মেয়র মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, দৈনিক আজাদী সম্পাদক এমএ মালেক, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিমেল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর গৌতম বুদ্ধ দাশ, নৌবাহিনীর কমোডর (অব.) জোবায়ের আহমেদ, নগর পরিকল্পনাবিদ ও রাশিয়ার অনারারি কনসাল স্থপতি আশিক ইমরান, শিক্ষাবিদ হাসিনা জাকারিয়া, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের সভাপতি প্রবীর কুমার সেন, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সভাপতি আলী আব্বাস এবং বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি এমএ সালাম।

প্রসঙ্গত নান্দনিক, পরিবেশ-বান্ধব ও উন্নত চট্টগ্রাম নগর গড়তে বিশিষ্ট জনদের পরামর্শ গ্রহণ উপলক্ষে ১৭ সদস্যের একটি পরামর্শক কমিটি গঠন করেছেন চসিক প্রশাসক।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর