শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:২০

ভোট দিতে পারবেন না ৮৫ হাজার তরুণ

সাইদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম

ভোট দিতে পারবেন না ৮৫ হাজার তরুণ

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন না প্রায় ৮৫ হাজার নতুন ভোটার। আগামী ১ মার্চ এ নতুন ভোটারের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করার কথা রয়েছে নির্বাচন কমিশনের। এর আগে হালানাগাদ খসড়া তালিকা প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন। ২০০২ এর আগে যাদের জন্ম তাদের এবার ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলার সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মুনীর হোসাইন খান বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, নতুন ভোটারের যে খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে, সে অনুযায়ী নতুনরা এবার ভোট দিতে পারবেন না। এতে সময় ও নিয়মানুযায়ী ১ মার্চ নতুন ভোটারের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হতে পারে। জন্ম সূত্র ২০০২ সালের আগে হলেও চূড়ান্ত ভোটার তালিকা আরও পরে প্রকাশ হবে। ১৬ ফেব্রুয়ারি চসিক নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে ১৮ বছর পূর্ণ হচ্ছে না নতুন ভোটারদের। তবে বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই নাম স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবে বলে জানান তিনি।

চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন এলাকার পাঁচলাইশে ১৭ হাজার ৭৫৪ জন, চান্দগাঁওয়ে ১১ হাজার ৪৭৬ জন, কোতোয়ালিতে ৯ হাজার ৯৬৭ জন, পাহাড়তলীতে ১১ হাজার ৯৫৩ জন, ডবলমুরিংয়ে ১৫ হাজার ৮৫৭ জন, বন্দরে ১৮ হাজার ৭৭ জন মিলে সর্বমোট ৮৫ হাজার ৮৪ জন নতুন ভোটার হচ্ছে। অন্যদিকে চট্টগ্রাম জেলার সন্দ্বীপ উপজেলায় ১২ হাজার ৪৯৩ জন, ফটিকছড়িতে ১৯ হাজার ২১৬ জন, হাটহাজারীতে ১৭ হাজার ৫৯০ জন, রাউজানে ১৭ হাজার ৮৪৩ জন, রাঙ্গুনিয়ায় ১১ হাজার ৬৩ জন, বোয়ালখালীতে    ১৩ হাজার ২৭০ জন, পটিয়ায় ১৭ হাজার ৮২৩ জন, সাতকানিয়ায় ১৬ হাজার ৬৭০ জন, বাঁশখালীতে ১৬ হাজার ২০৩ জন, চন্দনাইশে ৬ হাজার ৭০৬ জন, লোহাগাড়ায় ৭ হাজার ২২ জন, মিরসরাইয়ে ১৮ হাজার ৩০৩ জন, সীতাকুে  ১০ হাজার ২৭৮ জন, কর্ণফুলীতে পাঁচ হাজার ৯৯১ জন, আনোয়ারায় ৮ হাজার ৩০১ জন নতুন ভোটার হচ্ছে। এসব ভোটার চূড়ান্তভাবে প্রকাশ হবে ১ মার্চে। তবে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নতুন ভোটারসহ চট্টগ্রাম জেলায় এবার মোট নতুন ভোটার হয়েছে দুই লাখ ৮৩ হাজার ৮৩৪ জন।

 

 এর আগে গত বছর ২৩ এপ্রিল চট্টগ্রামে প্রথম ধাপে ৬ উপজেলায় ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম শুরু হয়। পরবর্তীতে বিভিন্ন উপজেলা ও থানায় এ কার্যক্রম শুরু হয়ে ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলে। হালনাগাদ কার্যক্রম সবমিলিয়ে নিবন্ধন হয়েছে তিন লাখ ৯৬ হাজার ৫৮৪ ভোট। এর মধ্যে পুরুষ দুই লাখ ৩১ হাজার ৩৯৯ ভোট ও মহিলা নিবন্ধন হয় এক লাখ ৬৫ হাজার ২৬২ জন। এ ছাড়া ৫০ হাজার ৯৬ জন মৃত ভোটার কর্তন করা হয়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর