শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৯ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৮ মে, ২০২১ ২৩:৪৮

‘গুম’ হওয়া ব্যক্তিদের ফেরার অপেক্ষায় স্বজনরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

‘গুম’ হওয়া ব্যক্তিদের ফেরার অপেক্ষায় স্বজনরা
প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধনে নিখোঁজদের ছবি হাতে অংশ নেয় স্বজনরা -বাংলাদেশ প্রতিদিন
Google News

‘গুম’ হওয়া ব্যক্তিদের ফেরার অপেক্ষায় স্বজনরা। ‘গুম’ হওয়া ব্যক্তিরা বেঁচে আছেন কি না জানেন না তাদের স্বজনরা। বেঁচে আছেন, নাকি চিরতরে হারিয়ে গেছেন- এ উৎকণ্ঠায় দিন পার করছেন তারা। গতকাল সকালে গুম হওয়া ব্যক্তিদের স্বজনরা হাজির হয়েছিলেন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে। আন্তর্জাতিক গুম সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত মানববন্ধনে অংশ নিয়ে বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলীর ছেলে আবরার ইলিয়াস বলেন, টিপাইমুখ বাঁধের বিরুদ্ধে কথা বলতে গিয়ে আমার বাবা ও তার গাড়িচালক গুম হন। এ অন্যায়ের প্রতিকার পেতে হলে সরকারের বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

ইসমাইল হোসেন বাতেন ২০১৯ সালের ২০ জুন নিখোঁজ হন। মানববন্ধনে অংশ নিয়ে তার মেয়ে আনিসা ইসলাম বলেন, বাবাকে ফিরে পেতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী র‌্যাবের কাছেও অভিযোগ করেছি আমরা। কিন্তু দুই বছর হয়ে গেলেও এখনো কোনো প্রতিকার পাওয়া যায়নি। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, আলোকচিত্রী শহিদুল আলম, অধিকারের পরিচালক নাসির উদ্দিন এলান, ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূর প্রমুখ।

এতে সভাপতিত্ব করেন নিখোঁজ সাজেদুল ইসলাম সুমনের বোন ও ‘মায়ের ডাক’ সংগঠনের সভাপতি আফরোজা ইসলাম আঁখি।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, এখানে অনেক শিশু তাদের কথা বলেছে, যা শুনে আমার চোখে পানি এসেছে। যতবারই এ অনুষ্ঠানে আসি, ততবারই এ হৃদয়বিদারক দৃশ্য বুকের ভিতর নিতে হয়েছে।

আলোকচিত্রী শহীদুল আলম বলেন, এখানে অনেকে আমাদের সঙ্গে রয়েছেন, যারা জানেন না তাদের স্বজনরা কোথায় আছেন। তারা দুঃসহ কষ্ট নিয়ে জানতে চান নিখোঁজ ব্যক্তিরা কোথায় আছেন, আমরা কি কোনোদিন তাদের খোঁজ পাব? তাদের কবর জিয়ারত করতে পারব? তিনি বলেন, এখানে যে শিশুরা রয়েছে তারা বছরের পর বছর অপেক্ষা করছে, কিন্তু ছবির মানুষটা কী অবস্থায় আছেন জানে না তারা। তাদের খুঁজে বের করার কোনো উদ্যোগ নেই। নুরুল হক নূর বলেন, এটা আমাদের দুর্ভাগ্য যে স্বাধীনতার ৫০ বছরে এসেও এসব নিখোঁজের ছবি নিয়ে আমাদের রাস্তায় দাঁড়াতে হয়েছে। শুধু ভিন্নমত ও রাজনীতির কারণে তাদের গুম করা হয়েছে। বিরোধীদলের মনোভাব ভেঙে দিতে এমন করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর