শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:২৪

সেতু নির্মাণে ধীরগতি, ভোগান্তি

রঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

সেতু নির্মাণে ধীরগতি, ভোগান্তি

ঠাকুরগাঁও পৌর এলাকার টাঙ্গন সেতুর নির্মাণ কাজ মন্থরগতিতে চলছে বলে অভিযোগ রয়েছে এলাকাবাসীর। লোকবল না বাড়ালে আসন্ন রমজানের আগে শহরের গুরুত্বপূর্ণ এ ব্রিজটির নির্মাণ কাজ অসমাপ্তই রয়ে যাবে বলে মনে করছেন তারা।  জানা যায়, শহরের এই ব্রিজটির ওপর দিয়ে পৌর শহর থেকে কলেজপাড়াসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় মানুষজন যাতায়াত করেন। ব্রিজের ওপর দিয়েই শহরের মানুষজন, সরকারি কলেজ, ডায়াবেটিকস হাসপাতাল, জেলা শিল্পকলা একাডেমি, জেলা সার্ভার স্টেশন, বিএডিসি, হর্টিকালচার সেন্টার, ক্যাথলিক চার্চ, আকচাসহ বেশ কয়েকটি গ্রামে যাতায়াত করে। বিকল্প টাঙ্গন ব্রিজের ওপর দিয়ে যাতায়াতে ২-৩ কিলোমিটার পথ ঘুরতে হয়। এ কারণে পূর্বের লোহার ব্রিজটি ভেঙে ফেলায় ২ পারের মানুষের বিশেষ করে শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগ যেন চরমে উঠেছে। শহরের কলেজপাড়া এলাকার নিলয় জানান, টাঙ্গন নদীর উপরে যে লোহার ব্রিজটি ছিল তা ব্রিটিশদের আমলে নির্মিত হয়। তবে মুক্তিযুদ্ধের সময় ব্রিজটির একাংশে সমস্যা হলে মেরামত করা হয়। পরবর্তীতে দীর্ঘদিন যাবত ব্রিজটির ওপর দিয়ে ২ পারের মানুষজন চলাফেরা করে আসছিল। এ অবস্থায় দীর্ঘ ২-৩ যুগ ঝুঁকিপূর্ণ থাকা অবস্থায় গত বছর ব্রিজটি ভেঙে নতুন ব্রিজ নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে কর্তৃপক্ষ। পরবর্তীতে ব্রিজটি সম্পূর্র্ণ ভেঙে ফেলা হয়। নতুন ব্রিজ নির্মাণের কাজও শুরু করে কর্তৃপক্ষ। তবে এলাকাবাসী জানায় নির্মাণ কাজ অল্প কয়েকজন শ্রমিক দিয়ে করানোয় ধীরগতিতে কাজ চলছে। এ অবস্থায় কাজ চলতে থাকলে দীর্ঘদিন লাগবে সেতুর কাজ শেষ করতে।  ঠাকুরগাঁও সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী বৃষ্টি রাণী জানান, সরকারি কলেজে অধ্যায়নরত প্রায় দুই তৃতীয়াংশ শিক্ষার্থীই শহরের বিভিন্ন মেস ও বাসা-বাড়িতে থাকে। লোহার পুলটি ভাঙার পর থেকে প্রায় তিন কিলোমিটার পথ ঘুরে কলেজে যাতায়াত করছে তারা।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর