শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ অক্টোবর, ২০২০ ২২:৫৭

মানবেতর জীবন স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি শিক্ষকদের

আবদুস সামাদ সায়েম, সিরাজগঞ্জ

মানবেতর জীবন স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি শিক্ষকদের
সিরাজগঞ্জে চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে মানববন্ধন

প্রতিষ্ঠান আছে, আছে ছাত্র-ছাত্রীও। বিনামূল্যে প্রদান করা হচ্ছে বই। শিক্ষার্থীরা পাচ্ছে উপবৃত্তি। শুধু নেই শিক্ষকদের বেতন-ভাতা। এ অবস্থায় চলছে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসাগুলো। একই সঙ্গে গড়ে ওঠা প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো জাতীয়করণ হয়েছে। জাতীয় স্কেলে বেতনও পাচ্ছেন প্রাথমিকের ওই শিক্ষকরা। ৩৪ বছর বেতনহীন থেকে মানবেতর জীবনযাপন করছে ইবতেদায়ি শিক্ষক ও তাদের পরিবার। বেতনহীন অবস্থায় অনেক শিক্ষক ইতিমধ্যে অবসরে গেছেন। মারাও গেছেন অনেকে। শিক্ষকরা বলছেন, জাতীয়করণের দাবিতে বার বার আন্দোলনে নামলে সরকার শুধু আশ্বাস দিচ্ছে। তার প্রতিফলন ঘটছে না। শিক্ষক নেতা আব্দুল হামিদ, আবুল বাসার, সাইফুল ইসলাম, শাহজাহান আলী ও আবু সাইদ জানান, ১৯৭৮ সালের অর্ডিনেন্স মতে, শিক্ষাবোর্ডের শর্ত মেনে মন্ত্রণালয়ের বিধিমতে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা। ১৯৯৪ সালে একই পরিপত্রে বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষকদের ৫০০ টাকা বেতন নির্ধারণ করা হয়। পরবর্তীতে ধাপে ধাপে মহাজোট সরকার ২৬ হাজার ১৯৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করে। ইবতেদায়ি মাদ্রাসা থেকে যায় একই অবস্থায়। শিক্ষকদের অভিযোগ, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো ইবতেদায়ী মাদ্রাসার সবকিছু পরিচালিত হচ্ছে। শুধু বেতন থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে শিক্ষকদের। ২০১৮ সালে ধর্মঘট-অনশনের সময় তখনকার শিক্ষা সচিব আশ্বাস দিলেও আজও তা বাস্তবায়ন হয়নি। এ অবস্থায় শিক্ষক পরিবারগুলো অসহায় জীবনযাপন করছে। বাধ্য হয়ে শিক্ষকরা মুজিববর্ষে সব ইবতেদায়ি মাদ্রাসা জাতীয়করণ, কোডবিহীন মাদ্রাসাগুলো কোড নম্বরে অন্তর্ভুক্ত করা, শিক্ষকদের পিটিআই প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাসহ সাত দফা দাবিতে আন্দোলনে নামছেন। দাবি বাস্তবায়ন না হলে ১৫ নভেম্বর থেকে লাগাতার আন্দোলনের ঘোষণা দেন তারা। রায়গঞ্জ হাড়নি স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষক আব্দুল হামিদ জানান, প্রায় ২০ বছর ধরে চাকরি করছি। কোনো বেতন পাই না। শিক্ষকতার পর কৃষি কাজ করে সংসার চলে। তার মতো একই অবস্থা বারইবাঘ মাদ্রাসার শিক্ষক লিয়াকত আলী, খোর্দ্দবয়ড়া মাদ্রাসার মফিজ, বেলকুচির দৌলতপুর স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক নুরুল ইসলামসহ অনেকের।

বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির সিরাজগঞ্জের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক ও সম্পাদক আব্দুল বাতেন শেখ জানান, সরকার পরিবর্তন হয়েছে; কিন্তু ইবতেদায়ী শিক্ষকদের ভাগ্য পরিবর্তন হয়নি। বর্তমান শিক্ষাবান্ধব সরকার যেন শিক্ষিত জাতি গড়ার কারিগর এ সব শিক্ষকের দুর্দশার কথা ভেবে অবিলম্বে জাতীয়করণের ঘোষণা দেবেন।


আপনার মন্তব্য