শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:৩২

দখল-দূষণে দুই খালের পানিপ্রবাহ ব্যাহত

নেয়ামত হোসেন, চাঁদপুর

দখল-দূষণে দুই খালের পানিপ্রবাহ ব্যাহত
চাঁদপুরে ময়লা-আবর্জনা মৃতপ্রায় খাল -বাংলাদেশ প্রতিদিন

চাঁদপুর সদর উপজেলার দুটি খাল দখল করে গড়ে উঠছে বহুতল ভবন ও মার্কেট। খাল দুটিতে ফেলা হচ্ছে আশপাশের বাজারের ময়লা-আবর্জনা। অপরিকল্পিতভাবে নির্মাণ করা হচ্ছে ব্রিজ। এ সব কারণে পানি প্রবাহ ব্যাহত হওয়ায় দিন দিন এই খাল দুটি মরাখালে পরিণত হচ্ছে। অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে খাল দুটি রক্ষায় জেলা প্রশাসন ও সড়ক বিভাগে লিখিত অভিযোগ দেন এলাকাবাসী। এর পরিপ্রেক্ষিতে প্রশাসন উচ্ছেদ অভিযানও চালায়। কিন্তু কিছুদিন যেতেই পুনরায় গড়ে তোলা হয় স্থাপনা। অভিযোগ আছে, বাবুরহাটের মতলব রোডে খালের ওপর সরকারি ব্রিজের রেলিং ঘেঁষে তৈরি করা হয়েছে একাধিক বহুতল ভবন ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান। এছাড়া ওই এলাকায় চাঁদপুর-কুমিল্লা রোডে খালের দুই পাশ ভরাট করে কালভার্ট নির্মাণের ফলে পানি প্রবাহে বাঁধার সৃষ্টি হচ্ছে। সড়ক বিভাগের এসএই মারুফ হোসেন জানান, এগুলো নয়নজুরি খাল। খালের উপর অনেকগুলো কালভার্টের অনুমোদন নেই। তাছাড়া এখন খাল লিজ দেওয়া পুরোপুরি বন্ধ। স্থানীয় কৃষক খোকন ও কামাল জানান, এই খাল দিয়ে এক সময় নৌকা চলাচল করত। এখন খাল দখল করে বিভিন্ন স্থানে অবৈধ স্থাপনা ও বাঁধ নির্মাণ করায় পানি প্রবাহ বন্ধ হওয়ার উপক্রম। সামান্য বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। স্থানীয় ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা দীপ নারায়ণ চক্রবর্তী বলেন, এখানে সড়ক ও জনপদের (সওজ) নামে আলাদা খতিয়ানে ৮ একর ৫৭ শতাংশ জমি রয়েছে। যা বাবুরহাট বাজারের দক্ষিণ থেকে ঘোষেরহাট পর্যন্ত বিস্তৃত। এই ভূমিরক্ষার দায়িত্ব সওজ বিভাগের। আমরা দেখতে পাচ্ছি খাল দখল হচ্ছে, কিন্তু আমাদের কিছুই করার নেই। স্থানীয় অশিকাটি ইউপি চেয়ারম্যান বিল্লাল হোসেন জানান, জনগুরুত্বপূর্ণ এই খাল দুটি প্রভাবশালীরা দখল করে রেখেছেন। চেয়ারম্যান বলেন, ‘খাল দখল ও দূষণমুক্ত করে পরিচ্ছন্ন এলাকা গড়তে ও কৃষকের ফসল উৎপাদন বৃদ্ধিতে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতা থাকবে।’

এই বিভাগের আরও খবর