শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৩ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩ মে, ২০২১ ০০:০১

বগুড়ায় নিম্নমানের লাচ্ছা সেমাইয়ের ছড়াছড়ি

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

বগুড়ার তৈরি সেমাই স্বাদে ও মানে শ্রেষ্ঠ হলেও বগুড়াতেই আবার বিভিন্ন কোম্পানির লেবেল লাগিয়ে নিম্নমানের, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি হচ্ছে লাচ্ছা সেমাই। এ কারণে লাচ্ছা সেমাইয়ের গুণগত মানের ব্যাপারে মানুষকে ভাবিয়ে তুলেছে। সাধারণ ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে কিছু ব্যক্তি অধিক মুনাফার আশায় নিজেদের তৈরি লাচ্ছা সেমাই বড় বড় কোম্পানির নাম দিয়ে চালিয়ে দিচ্ছেন। আবার কিছু অসাধু ব্যবসায়ী নিম্নমানের তেলে তৈরি করছেন সেমাই। এসব নিম্নমানের খাবার তৈরির কারখানা ও অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। জানা যায়, ঈদের আগে শহরতলির বিভিন্ন এলাকায় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি হচ্ছে সেমাই।

এসব কারখানায় ব্যবহার হচ্ছে নিম্নমানের তেল আর মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় থাকছে চরম হুমকি। স্থানীয়ভাবে তৈরি এসব লাচ্ছা সেমাই বিক্রিও হচ্ছে কম দামে। ১০০ থেকে ১২০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে লাচ্চা সেমাই। লাচ্ছা তৈরিতে ব্যবহার করা হচ্ছে সয়াবিন ও ডালডা। একই সয়াবিন ও ডালডা ব্যবহারে তেল পুড়ে কালো হয়ে যাচ্ছে। বারবার একই তেলে ভাজার কারণে লাচ্ছার গুণগত মান থাকছে না। খোলাবাজারে করোনার মধ্যেও দেদার বিক্রি হচ্ছে এসব নিম্নমানের লাচ্ছা। আবার কিছু কিছু অসাধু ব্যবসায়ী ঢাকা, চট্টগ্রামের নামি কোম্পানির সিল লাগিয়ে বিক্রি করছে বগুড়ার তৈরি সেমাই। অথচ বগুড়ার লাচ্ছা সেমাই স্বাদে ও মানে সেসব কোম্পানির চেয়ে ভালো। তারপরও এক শ্রেণির অসাধু চক্র বেশি মুনাফার আশায় নকল লেবেল তৈরি করে বগুড়ার সেমাই বিভিন্ন বাজারে চালিয়ে দিচ্ছেন। শহরের ঝোপগাড়ীতে অনুমোদনহীন আজমেরী সেমাই কারখানায় অভিযান চালিয়ে ৩০০ কেজি নিম্নমানের সেমাই জব্দ ও বনফুল, রোমানিয়া ও কুটুমবাড়ীর তিন বস্তা নকল লেবেল উদ্ধার হয়েছে। এ ঘটনায় কারখানা মালিকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর