শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২৮ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ জুন, ২০২১ ২৩:৫৪

ইটভাটার বিষাক্ত ধোঁয়ায় নষ্ট হচ্ছে আম

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি

ইটভাটার বিষাক্ত ধোঁয়ায় নষ্ট হচ্ছে আম
Google News

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ইটভাটার কালো ধোঁয়ায় নষ্ট হচ্ছে আম। ফলে বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীরা বিপাকে পড়েছেন। এতে করে বড় অঙ্কের ক্ষতির মুখে পড়েছেন তারা। জানা গেছে, জেলার ৫টি উপজেলায় ফসলী জমি, আম বাগান ও বসতিপূর্ণ এলাকায় অবৈধ ইটভাটা গড়ে উঠেছে। আইন অনুযায়ী ফসলী জমি, আমবাগান ও বসতিপূর্ণ এলাকায় ইটভাটা নির্মাণ করা যাবে না। কিন্তু আইন অমান্য করে জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার পাগলা নদীর তীরবর্তী ৪টি ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে অন্তত ৩০টি অবৈধভাবে ইটভাটা এবং সদর উপজেলার বারোঘরিয়ায় ৩০টিসহ জেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ৮/১০টি করে ইটভাটা করা হয়েছে। কিন্তু ইটভাটার কালো ধোঁয়ায় আম ফেটে যাওয়াসহ নিচের অংশে কালো হয়ে যাচ্ছে। পরে সেই আম গাছ থেকে ঝড়ে পড়ছে। চলতি মৌসুমে কয়েক কোটি টাকার আম নিয়ে বিপাকে পড়েছেন বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীরা। জানা গেছে, শিবগঞ্জ পৌরসভাসহ পাকা, উজিরপুর, ছত্রাজিতপুর ও ঘোড়াপাখিয়া ইউনিয়নে প্রায় ৩০টি অবৈধ ইটভাটা নির্মাণ করে দেদার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। এমন কি কেউ কেউ অবৈধ ড্রাম চিমনি ব্যবহার করে ইট ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। আর এ সমস্ত ইটভাটার মালিকগণ হচ্ছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের কতিপয় প্রভাবশালী নেতা। এদিকে প্রশাসনের নাকের ডগায় এ অবৈধ ইটভাটার কালো ধোঁয়ার প্রভাবে বড় বড় আমবাগানের আম নষ্ট ও বসত ভিটা এলাকায় শিশু ও বৃদ্ধরা অসুস্থ হয়ে পড়ছে। ক্ষতিগ্রস্ত বাগান মালিকরা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদফতরকে জানিয়েও কোনো প্রতিকার পাচ্ছে না বলে অভিযোগ রয়েছে। জানা যায়, সম্প্রতি আম ব্যবসা লাভজনক হওয়ায় জেলার বিভিন্ন স্থানে নতুন নতুন আমবাগান গড়ে উঠেছে। কিন্তু এক শ্রেণির অসাধু ইটভাটা মালিকরা প্রশাসনকে ম্যানেজ করে পরিবেশ অধিদফতরের আইনের তোয়াক্কা না করেই পাগলা নদীর তীরবর্তী এলাকায় প্রায় ৩০টি ভাটা স্থাপন করেছে। ফলে ওই এলাকায় প্রায় ৫ হাজার বিঘা আম বাগানের আম নিয়ে কৃষকরা উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার মধ্যে পড়েছেন। আমবাগান মালিক মো. হারুন অর রশীদ, মো. আবদুল কাদির, মো. সারওয়ার জাহান সোহাগ জানান, তাদের নিজস্ব ১০০ বিঘার আমবাগানে উৎপাদিত আমের নিচের অংশ শক্ত হয়ে কালো হয়ে যাচ্ছে এবং আম ফেটে যাচ্ছে। কিন্তু গত ৫ বছর আগে এলাকায় পরিবেশ আইনকে ব্দ্ধৃাঙ্গুলি প্রদর্শন করে  ১৫ জন ব্যাক্তি ৩০টি ইটভাটা স্থাপন করেছেন। ফলে ইটভাটার বিষাক্ত কালো ধোঁয়ায় প্রায় ১০ কি.মি. এলাকা জুড়ে আমসহ বিভিন্ন ফসল হুমকির মধ্যে পড়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ আঞ্চলিক উদ্যান গবেষণার কেন্দ্রের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা শ্রী হরিদাস মহান্ত জানান, আম নিয়ে গবেষণায় দেখা গেছে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ইটভাটার বিষক্ত ধোঁয়ায় আম ফেটে যাচ্ছে। পাশাপাশি বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে, কাজেই ইট ভাটাগুলো সঠিক জায়গায় স্থাপন করা জরুরি। অন্যদিকে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক নজরুল ইসলাম জানান, আমের রাজধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জে নিয়মনীতি মেনেই ইটভাটার অনুমতি দিলে অর্থকরী ফসল আমসহ বিভিন্ন ফসলের ক্ষতির হার কমে আসবে। এদিকে জেলা প্রশাসক মো. মঞ্জুরুল হাফিজ জানান, ইট ভাটায় আমের  ফাটাসহ যে সব সমস্যা দেখা দিয়েছে।

 সেটা যদি বাস্তবমুখী ও সত্য প্রমাণিত হয় তাহলে ভবিষ্যতে ইটভাটা সরিয়ে নেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর