Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২৫ মার্চ, ২০১৯ ১৯:৫৮
আপডেট : ২৫ মার্চ, ২০১৯ ২০:৩০

সংবর্ধনার সময় তরুণীকে আপত্তিকরভাবে জড়িয়ে ধরলেন চেয়ারম্যান!

কবির হোসেন সিদ্দিকী, বান্দরবান

সংবর্ধনার সময় তরুণীকে আপত্তিকরভাবে জড়িয়ে ধরলেন চেয়ারম্যান!

বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আবুল কালামের বিরুদ্ধে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর এক নারীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উঠেছে। আর নিপীড়নের ছবি ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল। আর এ ঘটনায় জেলা জুড়ে চলছে তোলপাড়। 

আলীকদম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজিমুল হায়দার জানান, এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাইনি। ওই নারীর পক্ষ থেতে কোনো অভিযোগ আসেনি। আমরা শুধু ফেইসবুকে ছবিটি দেখেছি। অভিযোগ ফেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে এ ঘটনায় সোমবার বিকালে আলীকদম প্রেস ক্লাবের সামনে এ ঘটনার বিচার দাবিতে ম্রো স্টুডেন্ট কাউন্সিল মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে। 

উপজেলা নির্বাচনের প্রথম ধাপে বান্দরবানের আলীকদমে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন মো. আবুল কালাম। এরপর ২২ মার্চ স্থানীয় নোয়াপাড়া ইউনিয়নের মেরিনচর পাড়ায় সংবর্ধনা নিতে যান তিনি। ওই পাড়াটিতে ম্রো ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর দেওয়া সংবর্ধনা সভায় এক ম্রো তরুণীকে অশ্লীলভাবে জড়িয়ে ধরেন তিনি। ম্রো লোকজনের অভিযোগ সংবর্ধনা নেয়ার সময় আবুল কালাম সবার সম্মুখেই ওই তরুণীর সঙ্গে বেশ আপত্তিকর আচরণ করেছেন। 

সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া কয়েকটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ম্রো নৃগোষ্ঠীর এক নারীকে জনসম্মুখে জড়িয়ে ধরে আছেন। ওই তরুণীর অভিব্যক্তি, তিনি এতে খুবই অস্বস্তি বোধ করছেন এবং জোর করে চেয়ারম্যানের হাত থেকে ছুটে যেতে চেষ্টা করছেন। অন্যদিকে চেয়ারম্যান তাকে জোরপূর্বক ধরে রাখার চেষ্টা করছেন।

এদিকে সামাজিক মাধ্যমে ছবিগুলো ছড়িয়ে পড়ার পর অনেকেই চেয়ারম্যানের সমালোচনায় সরব হয়েছেন। ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর একজন নারীকে এভাবে প্রকাশ্যে হেনস্তা করার দায়ে চেয়ারম্যানের বিচারও চেয়েছেন অনেকে।

ছবিগুলো শেয়ার করে মোহাম্মদ রকি নামে একজন ফেসবুকে লিখেছেন, ‘মো. আবুল কালাম একজন নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান। বান্দরবান জেলার আলীকদম উপজেলায় সম্প্রতি তিনি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হন। নির্বাচিত হওয়ার পর তিনি ম্রো আদিবাসীদের পাড়ায় যান সংবর্ধনা নেওয়ার জন্য। ম্রো আদিবাসী জনগোষ্ঠীরা সচরাচর একটু সরল প্রকৃতির। সাদা মনের মানুষও বটে, সরল মনে ম্রো আদিবাসীরা খুব সহজে বিশ্বাস করে থাকেন। তারা হয়ত এটা জানে না যে, মো. আবুল কালাম সাহেব (নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান) ম্রোদের মত একজন সরল প্রকৃতির মানুষ নন।

তিনি আরও লিখেছেন, ‘একজন জনপ্রতিনিধি কখনো এইভাবে একজন নারীকে জড়িয়ে ধরতে পারেন না ওই নারীর অনুমতি ছাড়া। কাণ্ড-জ্ঞানহীন ব্যক্তি ছাড়া কখনো একজন নারীকে এইভাবে জড়িয়ে ধরতে পারে না। এটি সম্পূর্ণ শ্লীলতাহানি ও নারী সমাজকে অবমূল্যায়ন করা।

এ ঘটনায় আরো অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনায় সরব থেকে বিচার দাবি জানিয়েছেন। তবে এবিষয়ে বান্দরবান জেলা প্রশাসক দাউদুল ইসলামকে ফোন করা হলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য