Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২৫ জুন, ২০১৯ ১১:৫৫
আপডেট : ২৫ জুন, ২০১৯ ১৫:২১

তুরস্কে নিজের প্রতিপক্ষ পেয়ে গেছেন এরদোগান?

অনলাইন ডেস্ক

তুরস্কে নিজের প্রতিপক্ষ পেয়ে গেছেন এরদোগান?
এরদোগান (বামে) ও ইমামোগলু।

তুরস্কে ছয় মাস আগেও খুব অল্প মানুষই ইক্রেম ইমামোগলু নামটি শুনেছেন। মূলত তিনি ছিলেন ইস্তাম্বুলের একটি মধ্যম পর্যায়ের জেলা বেলিকডুযুর মেয়র।

কিন্তু এখন তার নাম দেশটির সব মানুষের জানা। কারণ ইস্তাম্বুলের মেয়র নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট এরদোগান ও তার ইসলামপন্থী একেপি পার্টিকে বড় ধাক্কা দিয়েছেন তিনি।

ইমামোগলু দেশটির ধর্মনিরপেক্ষ রিপাবলিকান পিপলস পার্টি বা সিএইচপির সদস্য।

তার জনপ্রিয়তা মূলত বাড়তে থাকে গত ডিসেম্বরে ইস্তানবুলের মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন পাবার পর থেকেই।

তুর্কি রাজনীতিতে চরম বিভেদ কমিয়ে আনা আর দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই- এ দুটি বিষয়কে সামনে রেখেই নির্বাচনী প্রচার চালিয়েছেন তিনি।

ইক্রেম ইমামোগলু মার্চের শেষে অনুষ্ঠিত হওয়া নির্বাচনেই জিতেছিলেন। কিন্তু নির্বাচনের পর একেপি পার্টি অনিয়মের অভিযোগ তোলে।

পরে দেশটির নির্বাচনী সংস্থা এক কোটি পঞ্চাশ লাখ মানুষের শহর ইস্তাম্বুলে পুনঃনির্বাচনের আদেশ দেয়।

ইস্তাম্বুল দুর্গ?

পুনঃনির্বাচনেও ইক্রেম ইমামোগলু যথেষ্ট ভোট লাভ করেছেন। এবং এর মাধ্যমে দীর্ঘ ২৫ বছর পরে শহরটির নিয়ন্ত্রণ হারালো একেপি পার্টি।

এমনকি পুনঃনির্বাচনে আগের চেয়ে বেশি ভোট পেয়েছেন ইমামোগলু।

তুরস্কের পাওয়ার হাউজ

তুরস্কের রাজনীতিতে ইস্তাম্বুলের গুরুত্ব অপরিসীম।

দেশের অর্থনীতিতে শহরটির যা অবদান তা পর্তুগাল, গ্রিস কিংবা মিসরের চেয়েও বেশি।

প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেছিলেন, " ইস্তাম্বুল যে জিতবে, তুরস্কও সে জিতবে"।

এই শহরেরই সাবেক মেয়র এরদোগান দেশটির সরকার চালাচ্ছেন ২০০২ সাল থেকে।

কমন গ্রাউন্ড

১৯৯৪ সালে মেয়র হিসেবে এরদোগানের আকস্মিক বিজয়ই তাকে জাতীয় রাজনীতিতে বিজয়ের দিকে নিয়ে যায়।

ধর্মীয় স্কুলে পড়াশোনা করেছিলেন তিনি এবং ইমামোগলুও এরদোগানের মতো একই ধর্মের অনুসারী।

যদিও ব্যবসায় ডিগ্রি নিতে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে এসেছিলেন ইস্তাম্বুলে।

দুজনের আরেকটি মিল হলো—ফুটবল নিয়ে।

ইমামোগলু ও এরদোগান দুজনেই ফুটবল পাগল। নিজেরাও খেলেছেন নিজেদের সময়ে।

নির্বাচনেও সে বিষয়টি উঠে এসেছিলো প্রচারণায়।

তবে দলের ধর্মনিরপেক্ষতা নীতির বাইরে এসে ইমামগলু নির্বাচনের প্রচারণার সময় মসজিদে গিয়েছেন ও কোরানও পড়তে দেখা গেছে তাকে, যেটি আসলে এরদোগানকে করতে দেখা যায়।

২০২৩ সালে দেশটিতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে।

অনেকেই মনে করেন এরদোগানকে সেই নির্বাচনে ইমামোগলু মোকাবেলা করতে হবে।

নিজেকে পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেখতে চান কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে ইক্রেম ইমামোগলু হেসে বলেছেন, "আল্লাহ জানেন"।

সূত্র: বিবিসি

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য