শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৬ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ জুলাই, ২০২১ ২৩:৩৪

গাজীপুরে বেতন ভাতার দাবিতে শ্রমিক বিক্ষোভ

গাজীপুর প্রতিনিধি

Google News

গাজীপুরে বকেয়া বেতন-ভাতা পরিশোধসহ নানা দাবিতে গতকাল তৃতীয় দিনের মতো দিনভর কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ করেছেন এক পোশাক কারখানার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। বিক্ষুব্ধ কর্মচারীরা সকাল থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত ঢাকা-গাজীপুর সড়ক অবরোধ করে রাখেন। এতে সড়কের উভয়দিকে দিনভর আটকে থাকে শতাধিক যানবাহন। গাজীপুর শহরে প্রবেশের প্রধান ও গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি গত কয়েক দিন ধরে পোশাক কর্মীরা পর্যায়ক্রমে অবরোধ করে রাখায় প্রতিদিন চরম ভোগান্তি পোহাচ্ছেন রোগী, ব্যবসায়ী ও যাত্রীসহ সাধারণ মানুষ। গাজীপুর শিল্প পুলিশের ইন্সপেক্টর সমীরচন্দ্র সূত্রধর জানান, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের (ব্রি) সামনে লক্ষ্মীপুরা এলাকায় স্টাইল ক্র্যাফট পোশাক কারখানার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা গতকাল সকালে কারখানার গেটে এসে জড়ো হয়ে কর্মবিরতি শুরু করেন। এ সময় তারা বকেয়া পাওনাদি পরিশোধসহ নানা দাবিতে বিক্ষোভ করতে থাকেন। একপর্যায়ে তারা সকাল সাড়ে ৮টার দিকে কারখানার সামনে ঢাকা-জয়দেবপুর সড়কের ওপর অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অবরোধকারীদের সড়কের ওপর থেকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেও তারা সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত অবরোধ অব্যাহত রাখেন। কারখানার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তাদের পাওনাদি পরিশোধের দাবিতে কয়েক দিন ধরে প্রতিদিন সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ করে আসছেন। এ ব্যাপারে গার্মেন্ট মালিকের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও কোন সুরাহা করা সম্ভব হচ্ছে না।  এ ছাড়াও কারখানার কর্মচারীরা ইনক্রিমেন্টসহ তাদের চার বছরের বার্ষিক ছুটির ও ২ বছরের ঈদবোনাস পাওনা রয়েছে।

রূপগঞ্জে খালেক টেক্সটাইলে শ্রমিক অসন্তোষ : রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি  জানান, রূপগঞ্জে চার মাসের বকেয়া বেতন-ভাতা পরিশোধের দাবিতে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেছেন খালেক টেক্সটাইল নামে পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। গতকাল উপজেলার তারাব পৌরসভার বরপা এলাকায় সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত তারা ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে প্রায় ৩ ঘণ্টা আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেন। আন্দোলনরত শ্রমিকরা জানান, কারখানায় প্রায় ৭০ জন শ্রমিক রয়েছেন।

কর্মরত শ্রমিকদের মার্চ থেকে চলতি মাস পর্যন্ত বেতন বকেয়া রয়েছে। গতকাল বেতন দেওয়ার কথা থাকলেও দেওয়া হয়নি। কারখানা কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের বেতন ও বোনাস আগামী সোমবার পরিশোধ করবে বলে জানিয়ে দিয়েছে। পরে শ্রমিকরা চলে যান।