শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ অক্টোবর, ২০১৯ ২৩:২৪

সেমির পথে চট্টগ্রাম আবাহনী

চ. আবাহনী ৪ : ২ এলিফ্যান্ট

রাশেদুর রহমান, চট্টগ্রাম থেকে

সেমির পথে চট্টগ্রাম আবাহনী

৫১ বছর আগে ঘরোয়া ফুটবলে প্রতাপ শংকর হাজরা কর্নার কিকে সরাসরি গোল করে দর্শকদের চমকিয়ে দেন। গতকাল মুহূর্তের জন্য হলেও সেই স্মৃতি ফিরিয়ে এনেছিলেন চট্টগ্রাম আবাহনীর অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া। এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ৪-২ গোলের দারুণ জয় পেয়েছে চট্টগ্রাম আবাহনী। ম্যাচের ৭৮ মিনিটে দারুণ এক কর্নার কিক নেন জামাল ভূঁইয়া। গোল হয়। প্রথমে অফিশিয়ালরা জানান জামাল ভূঁইয়ার গোল। দর্শকরা আনন্দে ফেটে পড়েন। অবশ্য ম্যাচ শেষ হওয়ার পর অফিশিয়াল স্কোরারের নাম বদলে যায়। জামাল ভূঁইয়ার স্থানে লেখা হয় আইভরিয়ান ফুটবলার চার্লস দিদিয়েরের নাম। নিজেদের প্রথম ম্যাচে লাওসের ইয়াং এলিফ্যান্ট ভারতের ঐতিহ্যবাহী ক্লাব মোহনবাগানকে হারিয়ে চমকে দিয়েছিল। গতকাল স্বাগতিকদের বিপক্ষে ২-১ গোলে এগিয়েও দর্শকদের স্তব্ধ করে দিয়েছিল। তবে ফেবারিট চট্টগ্রাম আবাহনীর কাছে শেষ পর্যন্ত টিকল না তারা। আরও ঠিক করে বললে জামাল ভূঁইয়ার কাছে। একটি গোল করার পাশাপাশি দুটি গোলে এসিস্ট করেন তিনি। ম্যাচসেরার পুরস্কারও পান জামাল ভূঁইয়া। এ জয়ে সেমিফাইনাল অনেকটাই নিশ্চিত করে নিল মারুফের শিষ্যরা। অবশ্য শেষ ম্যাচে মোহনবাগানের ম্যাচের আগে অফিশিয়াল কিছু বলা ঠিক হবে না। কারণ এই গ্রুপে তিন দলেরই ছয় পয়েন্ট হওয়ার সুযোগ আছে। সে ক্ষেত্রে হেড-টু-হেড আর গোল ব্যবধানের হিসাব কষতে হবে।

গতকাল ম্যাচের শুরুতে এগিয়ে যায় চট্টগ্রাম আবাহনী। মারুফুল হকের শিষ্যরা এবার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্পিরিট নিয়েই টুর্নামেন্টে খেলতে নেমেছে। প্রথম ম্যাচেই তারা ৪-১ গোলে টিসি স্পোর্টসকে হারিয়ে নিজেদের ফেবারিট প্রমাণ করেছিল। গতকালও গোল উৎসব করল। ম্যাচের ১০ মিনিটে গোল করেন চিনেদু ম্যাথু। তবে ১৪ মিনিটে অ্যাফিশে থ্যানাক্যান্টি ও ৩৩ মিনিটে সোমশেই দুটি গোল করলে এগিয়ে যায় ইয়াং এলিফ্যান্ট। অবশ্য বিরতি থেকে ফিরে নতুন টেকনিক নিয়ে খেলতে থাকে চট্টগ্রাম আবাহনী। দিদিয়ের কিছুটা নেমে যান। জামাল কিছুটা ওপরে ওঠেন। এতেই বদলে যায় চিত্র। ম্যাচের ৫৪ মিনিটে জামাল ভূঁইয়ার এসিস্টে মাথা নিচু করা হেডে গোল করেন মন্টিনিগ্রোর ফুটবলার লুকা রটকোভিচ। এরপর জামাল ভূঁইয়া (৭১) এবং দিদিয়ের (৭৮) আরও দুটি গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেন।

শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপে প্রথম আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল চট্টগ্রাম আবাহনী। এবার তারা হারানো গৌরব উদ্ধার করতে চায়। গতকাল ম্যাচ শেষে কোচ মারুফুল হক জানান, ‘জয় পাওয়ায় আমি খুশি। ছেলেরা ভালো খেলছে। বিশেষ করে জামাল ভূঁইয়ার পারফরম্যান্সে তিনি খুশি।

তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য শিরোপা। সব কটি ম্যাচে জিততে চায়। সামনে আরও ভালো খেলতে হবে। ম্যাচ সেরা অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া বলেন, সম্মলিত প্রচেষ্টায় আমরা জয়ের ধারা ধরে রেখেছি। আশা করি সামনেও পারব। তবে সতর্ক হয়ে খেলতে হবে। সেমিতে যাওয়া মানে মৃত্যুর লড়াই। হারলেই বাদ। আশা করি বাকি ম্যাচ জিতেই আমরা শেষ চারে খেলবো এবং ফাইনালে যাবো। তারপর শিরোপার কথা ভাবো।


আপনার মন্তব্য