শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৮ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:০৬

আন্তর্জাতিক আসরও রাঙাতে চায় বসুন্ধরা কিংস

ক্রীড়া প্রতিবেদক

আন্তর্জাতিক আসরও রাঙাতে চায় বসুন্ধরা কিংস

গ্রুপে প্রতিপক্ষরা শক্তিশালী এখানে সেরাটাই দিতে হবে। ঘরোয়া ফুটবলে শিরোপা পেয়েছি। এখন আমরা আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টেও বিজয় উৎসব করতে চাই।

দুর্ভাগ্য বলতে হয় বসুন্ধরা কিংসের। বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়ন দল হিসেবে গতবারই এএফসি কাপে অভিষেক হয়েছিল তাদের। আগে এ টুর্নামেন্ট এশিয়ান ক্লাব কাপ নামেই পরিচিত ছিল। ঐতিহ্যবাহী মোহামেডানই চমক দেখিয়েছিল। অভিষেকে শুরুটা দারুণ করেছিল ফুটবলে কিং বসুন্ধরা কিংস। গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টসকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে ভালো করার আভাস দিয়েছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্য কিংসের। এক ম্যাচ খেলেই শেষ। করোনাভাইরাসে পুরো টুর্নামেন্ট বাতিল হয়ে গেছে। এখন নতুনভাবে এএফসি ক্লাব কাপে মাঠে নামার অপেক্ষায় রয়েছেন অস্কারের শিষ্যরা।

আগামী মে মাস থেকেই মালদ্বীপে নতুন এএফসি কাপের খেলা। বসুন্ধরা কিংস খেলবে ‘ডি’ গ্রুপে। যেখানে প্রতিপক্ষ হিসেবে আছে মালদ্বীপের মাজিয়া স্পোর্টস, ভারতের এ টি কে মোহনবাগান ও প্লে অফ থেকে উঠে আসা দল। দুনিয়া জুড়ে করোনাভাইরাস যেভাবে ছড়িয়ে পড়েছে তাতে এবারও এএফসি কাপ হবে কি না তা নিয়ে সংশয় কাটছে না। তবে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন টুর্নামেন্টের ফিকশ্চার ঘোষণা করেছে। মাজিয়া ও মোহনবাগান তো আছেই সে সঙ্গে বসুন্ধরার সঙ্গী হতে পারে ঢাকা আবাহনী। প্লে-অফে আবাহনী খেলবে ভুটানের থিম্পু সিটি ও মালদ্বীপ ঈগল ক্লাবের বিপক্ষে। ১৪ এপ্রিলই আবাহনীর প্রথম ম্যাচ ছিল ঢাকায়। করোনা অবস্থায় এখানে ম্যাচ আয়োজন করা সম্ভব নয়। আবাহনী তাই এএফসির কাছে টুর্নামেন্ট পেছানোর অনুরোধ রেখেছে।

যাক এ ভাবনা কিংসের নয়। গ্রুপের ফিকশ্চার যখন চূড়ান্ত হয়ে গেছে তারা মাঠে নামতেই প্রস্তুত। কিংসের পুরো টিমই ফর্মে রয়েছে। প্রথম লেগে সুবিধাজনক অবস্থানে থেকে শীর্ষে রয়েছে। কিছুদিন খেলোয়াড়রা ছুটিতে কাটালেও দলের সাফল্য পেতে মুখিয়ে আছেন। ব্রাজিলের রবসন আজোভেদো রবিনহো, জনাথন ফার্নান্দেজ, আর্জেন্টিনার রাউল রেসেরা ও ইরানের ডিফেন্ডার খালেদ শাফি ছুটি কাটিয়ে ক্যাম্পে ফিরেছেন আগেই।

পেশাদার লিগের দ্বিতীয় লেগ যদি এর মধ্যে শুরু হয়ে যায় তাহলে হয় তো শিরোপার রাস্তাটা আরও পরিষ্কার হয়ে যাবে। অর্থাৎ পুরোপুরি প্রস্তুতি নিয়েই মালদ্বীপে উড়ে যাবে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নরা। করোনাভাইরাসের কারণেই মালদ্বীপের মালেতে ‘ডি’ গ্রুপের সব ম্যাচই হবে। ফিকশ্চার যখন চূড়ান্ত হয়ে গেছে তখন প্রতিপক্ষের ভালোমন্দ দিক নিয়ে ভাবতেই হবে। কিংসের সভাপতি ইমরুল হাসান বলেন, ‘গ্রুপে প্রতিপক্ষরা শক্তিশালী এখানে সেরাটাই দিতে হবে। ঘরোয়া ফুটবলে শিরোপা পেয়েছি। এখন আমরা আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টেও বিজয় উৎসব করতে চাই। বসুন্ধরা এখানে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছে। দেশের সুনামের জন্য আমরা মরিয়া হয়ে খেলব।’

এই বিভাগের আরও খবর