শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৪ নভেম্বর, ২০২০ ২৩:২৫

রংপুরে মুক্তিপণ না পেয়ে শিশুকে হত্যা

দুই যুবক কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

রংপুরের মিঠাপুকুরে শিশু গোলাম রব্বানী রাব্বীকে (৭) অপহরণ করেছিল তারই প্রতিবেশী দুই যুবক। শিশুটির বাবা-মার কাছে ৩০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে তারা। কিন্তু টাকা না পাওয়ায় নৃশংসভাবে হত্যার পর বস্তায় ভরে লাশ ধানখেতে ফেলে দেয় খুনিরা। চার দিন পর রাব্বীর লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল তারা পুলিশের কাছে রাব্বী হত্যাকা-ের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। গ্রেফতার ওই দুজনকে আদালতের মাধ্যমে রংপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো- বাদল মিয়ার ছেলে আল আমিন (১৬) এবং জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলে মহিদুল ইসলাম ওরফে মুশফিকুর (২৬)। দুজনই নিহত শিশু রাব্বীর গ্রাম উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের গোকর্ণের বাসিন্দা। এদের মধ্যে আল আমিন বেকার এবং মুশফিকুর মোবাইল টাওয়ার কোম্পানিতে চাকরি করত। সে ব্যাটারি চুরির দায়ে বরখাস্ত বলে পুলিশ জানায়। মিঠাপুকুর থানার ওসি তদন্ত জাকির হোসেন বলেন, গ্রেফতার দুজন রাব্বীকে চকলেট খাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে কৌশলে বাড়িতে নিয়ে যায়। এরপর হাত-পা বেঁধে বস্তায় ভরে রাখে। পরে রাব্বীর বাবা-মার কাছে ৩০ হাজার টাকা দাবি করে। কিন্তু গরিব পরিবার টাকা দিতে না পারায় তারা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। শুক্রবার রাতে বস্তায় ভরা রাব্বীকে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে হত্যা করে।

 এরপর লাশ বাড়ির পাশে একটি ধানখেতে ফেলে দেয়।

 তিনি জানান, আলামিনের কাছ থেকে ৯টি মোবাইল সিম উদ্ধার করা হয়েছে- যেগুলো দিয়ে সে বিভিন্নজনের সঙ্গে যোগাযোগ করত।

উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের গোকর্ণ গ্রামের রফিকুল ইসলামের শিশুপুত্র গোলাম রব্বানী রাব্বি (৭) শুক্রবার বিকালে নিখোঁজ হয়। এর চার দিন পর সোমবার সকালে বাড়ির পাশে একটি ধানখেতে লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন এলাকাবাসী। নিহতের মা বাদী হয়ে মিঠাপুকুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর