সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা

বেইলি ব্রিজের দুর্ভোগে কুমিল্লার ৬০ লাখ মানুষ

মহিউদ্দিন মোল্লা, কুমিল্লা

বেইলি ব্রিজের দুর্ভোগে কুমিল্লার ৬০ লাখ মানুষ

২৮টি বেইলি ব্রিজের দুর্ভোগে পড়েছেন কুমিল্লার দাউদকান্দি, মুরাদনগরসহ জেলার ১৬ উপজেলার ৬০ লক্ষাধিক মানুষ। প্রায় সব ব্রিজই বার্ধক্যে ধুঁকছে। মুরাদনগর থেকে দাউদকান্দি পর্যন্ত ১২ কিলোমিটার সড়কে রয়েছে সবচেয়ে বেশি বেইলি ব্রিজ। স্থানীয়রা ব্রিজগুলোর স্থানে পাকা ব্রিজের দাবি জানিয়েছেন। সূত্র মতে, মুরাদনগর থেকে দাউদকান্দির ইলিয়টগঞ্জ পর্যন্ত ব্রিজগুলো হচ্ছে মুরাদনগর সদরে গোমতী নদীর ওপর ব্রিজ, চালিয়াকান্দি গ্রামে দুটি, ভোরার চর, নেয়ামতকান্দি, পাঁচপুকুরিয়া, জাহাপুর এলাকার ব্রিজ। তার মধ্যে গোমতী নদীর ওপর ব্রিজটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল। এটি জোড়াতালি দিয়ে চলছে ১৮ বছর। প্রায়ই ব্রিজের ভাঙা পাটাতনে গাড়ির চাকা আটকে যায়। সৃষ্টি হয় দীর্ঘ যানজট। ভোগান্তিতে পড়েন যাত্রীরা। যান চলাচলে ব্রিজের গোড়ায় বিকট শব্দ হচ্ছে। এতে আতঙ্কে দিন কাটে চালক ও যাত্রীদের। এ ছাড়া লাকসামের মুদাফরগঞ্জ সড়কের বেইলি ব্রিজটি প্রায় চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। এদিকে বিভিন্ন উপজেলার চার দশকের পুরাতন বেইলি ব্রিজগুলো প্রায় ভেঙে সড়ক বন্ধ হয়ে যায়। মুরাদনগর রুটের সিএনজি অটোরিকশা চালক কালাম মিয়া জানান, ব্রিজ ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় এই সড়কে যাত্রী কমে গেছে। আমরা ব্রিজের ওপর দিয়ে দোয়া কালাম পড়ে চলাচল করি। স্থানীয় ব্যবসায়ী এন এ মুরাদ বলেন, মুরাদনগর সদরের গোমতী নদীর ওপরের বেইলি ব্রিজটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল। এই স্থানে দ্রুত নতুন ব্রিজ না করলে যে কোনো সময় এটি ধসে গিয়ে বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। আমরা আটটি বেইলি ব্রিজের স্থলে নতুন আরসিসি গার্ডার ব্রিজ চাই। সওজ কুমিল্লা কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. রেজা-ই রাব্বি বলেন, মুরাদনগর সদরসহ মুরাদনগর-ইলিয়টগঞ্জ সড়কের আটটি বেইলি ব্রিজ বেশ পুরনো হয়ে গেছে। ইলিয়টগঞ্জ-মুরাদনগর সড়কের নেয়ামতকান্দি ব্রিজের সংস্কার শুরু হয়েছে।

দাউদকান্দি-গোয়লমথন সড়কের নিশ্চিন্তপুরের বেইলি ব্রিজটি সম্প্রতি সংস্কার করা হয়েছে। সব বেইলি ব্রিজ স্থায়ী পাকা করার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে।

সর্বশেষ খবর